মহিলারাও কাজ করবেন তবে শরিয়া আইন মেনে, অবস্থান বদলের ইঙ্গিত দিল তালিবান

0

খবরঅনলাইন ডেস্ক: কুড়ি বছর আগের দুর্বিষহ অভিজ্ঞতার কারণেই আফগানিস্তানের তালিবানরাজে মহিলাদের অধিকার নিয়ে সব থেকে বেশি চিন্তিত গোটা বিশ্ব। তবে আফগানিস্তান দখলের পর মঙ্গলবার প্রথম সাংবাদিক বৈঠক মহিলাদের অধিকার সম্পর্কে কুড়ি বছর আগের অবস্থান থেকে সরে আসার ইঙ্গিত দিল তালিবান।

তালিবানের মুখপাত্র জবিউল্লাহ মুজাহিদ এই প্রসঙ্গেই বলেন, ‘‘তালিবান শাসনে মহিলাদের কাজ করার অধিকার দেওয়া হবে। তাঁরা কর্মক্ষেত্রে যোগ দিতে পারবেন। তবে সবই হবে ইসলামিক আইন মেনে। ইসলামিক আইন মেনে মহিলাদের অধিকার রক্ষা করা হবে। মহিলারা তালিবান শাসিত আফগানিস্তানে আগামী দিনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেবেন। কিন্তু সব কিছুই হবে শরিয়া আইন মেনে।’’

মহিলাদের অধিকারের প্রসঙ্গে বলতে গিয়েই মুখপাত্র বলেছেন, ‘‘আজ থেকে ২০ বছর আগে পৃথিবীটা যেমন ছিল, আজ আর তেমন নেই। অনেক কিছু বদল হয়েছে। আপাতত আইনটি তৈরি হোক, তার পর আলোচনা করা যাবে।’’

মঙ্গলবারই তালিবানের সাংস্কৃতিক শাখার প্রধান জানিয়েছিলেন, প্রশাসন ও সরকারে মহিলাদের উপস্থিতি চায় তালিবান। তিনি বলেছিলেন, ‘‘শরিয়তি আইন মেনে প্রশাসনে ও সরকারি কাজে মহিলাদের অংশগ্রহণকে প্রাধান্য দেবে তালিবান।’’ যদিও সরকারি স্তরে কোনও বক্তব্য মঙ্গলবারের আগে মেলেনি।

মহিলা সাংবাদিককে সাক্ষাৎকার দিলেন তালিবান নেতা

এরই মধ্যে কিছু অন্য রকম ছবি ধরা পড়েছে যা কুড়ি বছর আগের তালিবানরাজের সময় কল্পনাও করা যেত না। দেখা যাচ্ছে আফগান সংবাদমাধ্যমের মহিলা সঞ্চালককে সাক্ষাৎকার দিচ্ছেন তালিবান মিডিয়া সেলের অন্যতম শীর্ষ আধিকারিক।

এই ছবিটা ভাইরাল হতেই অনেকে মনে করছেন কুড়ি বছর আগের সেই দুর্বিষহ সময়ের শিকার হয়তো এ বার আফগানিস্তানের মহিলারা হবেন না।

আরও পড়তে পারেন

‘কাশ্মীর দ্বিপাক্ষিক এবং অভ্যন্তরীণ বিষয়’, নয়াদিল্লির অবস্থানেই সায় দিল তালিবান

বাংলাদেশকে ৩১টি লাইফসাপোর্ট অ্যাম্বুলেন্স, চিকিৎসাসামগ্রী উপহার দিল ভারত

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন