মুম্বই: আর চার দিন পর শুরু আইপিএল, কিন্তু তার আগেই ক্রমে যেন বেড়ে যাচ্ছে চোটগ্রস্ত ক্রিকেটারদের তালিকা। ক্রিকেটারদের অভাবে বিপদে পড়ছে তাদের ফ্রাঞ্চাইসিগুলি।

চোটগ্রস্ত খেলোয়াড়দের তালিকায় প্রথমে ছিলেন বিরাট কোহলি। রাঁচি টেস্টে কাঁধে চোট পাওয়ায় ধর্মশালা টেস্টে খেলতে পারেননি বিরাট। এখনও সেই চোট সম্পূর্ণ সেরে ওঠেনি। তাই আইপিএলের প্রথম কয়েকটি ম্যাচে অংশগ্রহণ করতে পারবেন না আরসিবি অধিনায়ক। তবে বিরাট চোট সারিয়ে আইপিএলে ফিরলেও, ভাগ্য খারাপ আরসিবির আরও এক নির্ভরযোগ্য ক্রিকেটার কেএল রাহুলের। কাঁধে চোট নিয়ে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে খেলে গিয়েছেন রাহুল। দুর্ধর্ষ পারফর্মও করেছেন  গোটা সিরিজে। কিন্তু আর কাঁধের চোট সহ্য করতে পারছেন না তিনি। আগামী সপ্তাহে কাঁধে অস্ত্রোপচারের জন্য ইংল্যান্ড উড়ে যাবেন তিনি। এ বার আইপিএলে নেই রবিচন্দ্রন অশ্বিনও। পুনে সুপারজায়ান্টস দলে স্টিভেন স্মিথের অন্যতম ভরসা অশ্বিন। কিন্তু তলপেটে হার্নিয়ার জন্য আপাতত দেড় থেকে দু’মাস মাঠের বাইরে থাকতে হবে অশ্বিনকে।

ধাক্কা খেয়েছে কিংস ইলেভেন পঞ্জাবও। সম্ভবত পুরো আইপিএলই খেলতে পারবেন না মুরলী বিজয়। কবজি এবং কাঁধে চোট রয়েছে তাঁর। অস্ত্রপচারের প্রয়োজন হতে পারে। উমেশ যাদব এবং রবীন্দ্র জাদেজাকে নিয়েও প্রশ্নচিহ্ন রয়েছে। গোটা ঘরোয়া মরশুমে ভারতীয় দলের হয়ে অতিরিক্ত পরিশ্রম করার জন্য এই দু’জন ক্রিকেটারকে অন্তত দু’সপ্তাহের বিশ্রামের পরামর্শ দিয়েছে বিসিসিআইয়ের মেডিক্যাল টিম।

শুধু কী ভারতীয় ক্রিকেটাররা। কিছু নামী বিদেশি খেলোয়াড়ও এ বার আইপিএলে অংশগ্রহণ করতে পারবেন না। বিদেশির অভাবে সব থেকে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে দিল্লি ডেয়ারডেভিলস। প্রথমেই ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে আইপিএল থেকে নাম তুলে নিয়েছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার জে পি দুমিনি। এ বার চোটের জন্য আইপিএল থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন দক্ষিণ আফ্রিকার আরও এক নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যান কুইন্টন ডি কক। অন্য দিকে মিচেল মার্শকেও এ বার পাবে না পুনে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here