তুলোঁ (ফ্রান্স) : শুয়ে থাকত কে না ভালোবাসে। তবে সেটা যদি কোনো কাজ হয়?  

ফ্রান্সের ইনস্টিটিউট ফর স্পেস মেডিসিন অ্যান্ড ফিজিওলজি-র গবেষকরা শুধুমাত্র শুয়ে থাকার জন্য স্বেচ্ছাসেবক খুঁজছেন। ‘কাজ’-এর মেয়াদ দু’মাস। এর জন্য পারিশ্রমিক দেওয়া হবে ১৬ হাজার ডলার অর্থাৎ প্রায় সাড়ে ১০ লক্ষ টাকা। পদের সংখ্যা ২৪। অবশ্য শুধুমাত্র পুরুষদের জন্য সংরক্ষিত। 

শিক্ষাগত যোগ্যতার কথা কিছু বলা নেই। তবে যা দরকার তা হল শুধু বিছানায় শুয়ে থাকার ক্ষমতা। সংস্থা জানিয়েছে, টানা ৬০ দিন অর্থাৎ দু’মাস শুধু শুয়ে থাকতে হবে। প্রতি দিনের যা কিছু করণীয় তা শুয়ে শুয়েই করতে হবে। বয়স হতে হবে ২০ থেকে ৪৫ বছরের মধ্যে। আর অবশ্যই শারীরিক ভাবে সম্পূর্ণ সুস্থ হতে হবে। নিয়মিত খেলাধুলোর অভ্যাস থাকতে হবে। কোনো রকম অ্যালার্জির ধাত থাকলে হবে না। ধূমপানের অভ্যাস থাকলেও চলবে না। বিএমআই অর্থাৎ বডি মাস ইনডেক্স হতে হবে ২২ থেকে ২৭-এর মধ্যে।

সংস্থার কো-অর্ডিনেটিং ফিজিশিয়ান ডক্টর আর্নড বেক জানান, মাইক্রোগ্র্যাভিটি তথা কার্যত ভারহীনতা নিয়ে পরীক্ষা করা। আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনে ভারহীনতার ফলে শরীরের ওপর কী ধরনের প্রভাব পড়ে তা জানার জন্য গবেষণা করা হচ্ছে। আর সেই গবেষণা কাজের জন্যই চাই স্বেচ্ছাসেবক। এঁদের মোট ৮৮ দিন ইনস্টিটিউটে থাকতে। গবেষণায় তিনটে ধাপ রয়েছে। প্রথম দু’ সপ্তাহে বিজ্ঞানীরা তাঁদের নানা রকমের পরীক্ষানিরীক্ষা করবেন। শরীরের মাপজোখ করবেন। তার পর ৬০ দিন তাঁদের সম্পূর্ণভাবে বিছানায় শুয়ে থাকতে হবে। এই সময় তাঁদের মাথাটা একটু নীচের দিকে ঝোলানো থাকবে। প্রায় ৬ ডিগ্রি মতো। দু’ মাস পেরিয়ে যাওয়ার পর শেষের দু’ সপ্তাহে তাঁদের শারীরিক পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করা হবে। তখন আবার এক গুচ্ছ পরীক্ষানিরীক্ষা করা হবে, মাপ নেওয়া হবে। দেখা হবে এই সুদীর্ঘ সময় মাটিতে পা না পড়ার জন্য শরীরের কোনো কিছুর পরিবর্তন হয়েছে কিনা। 

ডক্টর আর্নড বেক বলেন, দীর্ঘদিন ধরে ভারহীন থাকার ফলে মানুষের শরীরে কী ধরনের ক্ষতিকর প্রভাব পড়ে তা জানতে এবং তা মোকাবিলার উপায় খুঁজে বার করতেই এই গবেষণা করা হচ্ছে। 

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here