কলকাতা : এই নিয়ে দ্বিতীয় বার। মাত্র ৯ মিনিটে কিডনি গেল অ্যাপেলো হাসপাতাল থেকে এসএসকেএম হাসপাতালে। কলকাতা পুলিশ গ্রিন করিডরের ব্যবস্থা করে দেওয়ায় এটা সম্ভব হল।

ব্রেন টিউমার হয়েছিল আসানসোলের মাত্র ২২ বছরের রোগিণী সুরভি বরাটের। তিনি অ্যাপেলো হাসপাতাল ভর্তি ছিলেন। অস্ত্রোপচারের পর তিনি কোমায় চলে যান এবং ব্রেন ডেথ হয়। এর পরেই তাঁর পরিবারের সদস্যরা তাঁর শরীরের পাঁচটি অঙ্গ দানের সিদ্ধান্ত নেন। ইতিমধ্যে তাঁর চোখদু’টি প্রতিস্থাপিত হয়েছে। তাঁর লিভার পাবেন তামিলনাড়ুর রেলজা উভারিক। তিনি অ্যাপেলো হাসপাতালেই ভর্তি আছেন। একটি কিডনি প্রতিস্থাপন হবে অ্যাপেলো হাসপাতালেই। হাওড়ার অমৃতা পাইন লেনের বাসিন্দা বিজয় কুমার ভূত ওই কিডনি পাবেন। এবং দ্বিতীয় কিডনিটি এসএসকেএম হাসপাতালে ভর্তি বারুইপুরের বাসিন্দা পরিতোষ নস্করের শরীরে প্রতিস্থাপন করা হবে। সেই কারণেই গোটা পথের সব সিগন্যাল সবুজ করে, সামনে পাইলট কার দিয়ে অর্থাৎ গ্রিন করিডরের ব্যবস্থা করে রবিবার সেই কিডনি পৌঁছে দেওয়া হল ওই হাসপাতালে। সুরভির কিডনি নিয়ে অ্যাপেলো হাসপাতাল থেকে গাড়ি ছাড়ে রাত্রি ১০টা ১৯ মিনিটে, এবং ১০টা ২৮ মিনিটে ওই গাড়ি পৌঁছে যায় এসএসকেএম-এ। এই নিয়ে দ্বিতীয় বার গ্রিন করিডরের ব্যবস্থা করে কলকাতা পুলিশ এক হাসপাতাল থেকে আরেক হাসপাতালে অঙ্গ পৌঁছে দিল। এর আগে নভেম্বরের গোড়ায় দুর্ঘটনায় ব্রেন ডেথ হয়ে যাওয়ার পরে স্বর্ণেন্দু রায়ের কিডনি এ ভাবেই অ্যাপেলো থেকে এসএসকেএম-এ নিয়ে যাওয়া হয়েছিল।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here