‘গরম’ বড়োদিন কলকাতায়, বর্ষশেষে কমতে পারে তাপমাত্রা

0

কলকাতা: পৌষের আগেই শীতের পরশ দেখে আন্দাজ করা হয়েছিল ফুরফুরে উত্তুরে হাওয়ায়, কনকনে ঠান্ডা গায়ে মাখিয়ে বড়োদিন কাটাবে বাঙালি। কিন্তু কোথায় কী? ঠান্ডা উধাও তো বটেই, উলটে দখিনা হাওয়ার টানে রীতিমতো ঘর্মাক্ত পরিবেশ কলকাতায়। বড়োদিনের দিন কলকাতায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হল ১৭.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আপাতত যা পরিস্থিতি, তাতে আগামী কয়েক দিন পারদ পতনের কোনো সম্ভাবনাই নেই। বর্ষশেষের সময়ে কিছুটা কমতে পারে তাপমাত্রা।

কিন্তু শীতের এ ভাবে দফারফা হওয়ার কারণ?

কলকাতা তথা সমগ্র দক্ষিণবঙ্গের শীত নির্ভর করে বঙ্গোপসাগরের মন মর্জির ওপর। ফুরফুরে উত্তুরে হাওয়া ঢোকার অন্যতম শর্ত হল বঙ্গোপসাগরে কোনো নিম্নচাপ বা ঘূর্ণাবর্ত থাকা চলবে না। কিন্তু সেটাই এ বার হয়েছে। বাংলাদেশ উপকূল এবং সন্নিহিত ত্রিপুরা-মিজোরাম অঞ্চলে একটি ঘূর্ণাবর্ত রয়েছে। এর প্রভাবে জলীয় বাষ্প ঢুকছে দক্ষিণবঙ্গে। আকাশ মেঘলা থাকার ফলে উত্তরে হাওয়া যেমন আসছে না, তেমনই রোদেরও দেখা পাওয়া যাচ্ছে না। এই পরিস্থিতি থেকে আগামী দু’দিন মুক্তি পাওয়ার কোনো সম্ভাবনা তো নেই-ই, বরং সোমবার আরও কিছুটা বাড়তে পারে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা।

আবহাওয়া দফতর সূত্রে জানান হয়েছে, ঘূর্ণাবর্তটির ফলে উত্তরপূর্ব ভারতে বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা থাকলেও, এ রাজ্যে বৃষ্টির কোনো সম্ভাবনা নেই। কিন্তু সোমবার সকালে গাঢ় কুয়াশায় ঢেকে যেতে পারে কলকাতা তথা সমগ্র রাজ্য।

ফের কবে থেকে পড়বে শীত?

আবহাওয়া দফতর জানাচ্ছে, মঙ্গলবার থেকে কিছুটা উন্নতি হতে পারে এই অস্বস্তিকর পরিস্থিতির। ফের ঢুকতে শুরু করবে উত্তুরে হাওয়া। ১৪-১৫ ডিগ্রির কাছাকাছি নামবে তাপমাত্রা। তবে হাড়হিম করা কনকনে ঠান্ডার এখনই কোনো সম্ভাবনা নেই।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here