ultadanga aurobinda setu
উল্টোডাঙা অরবিন্দ সেতু। ছবি দ্য টেলিগ্রাফ থেকে

কলকাতা: মাঝেরহাট সেতুর একাংশ ভেঙে পড়ার ঘটনার পরই মহানগরের সেতুগুলির স্বাস্থ্যপরীক্ষার উদ্যোগ নিয়েছে রাজ্যের পূর্ত দফতর। জানা গিয়েছে, কলকাতার সেতুগুলির মধ্যে এ মুহূর্তে ৭টি সেতুর অবস্থা সব থেকে অসুরক্ষিত। এই সেতুগুলির দ্রুত সংস্কারের কথা জানিয়েছেন পূর্ত দফতরের এক আধিকারিক।

কয়েক দিন আগেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন, কলকাতার ২০টি সেতুর অবস্থা ভালো নয়। সেগুলি একাধিক কারণে দুর্বল হয়ে পড়েছে। পূর্ত দফতরের মতে, এই ২০টি সেতুর মধ্যে ৭টি অবস্থা সবথেকে আশঙ্কাজনক। ওই ৭টি সেতুকে ইতিমধ্যেই সব থেকে অসুরক্ষিত হিসাবে চিহ্নিত করা হয়েছে। সেতুগুলি হল বিজন সেতু, গৌরীবাড়ি অরবিন্দ সেতু, বেলগাছিয়া ব্রিজ, টালিগঞ্জ সার্কুলার রোড ব্রিজ, ডাকুরিয়া ব্রিজ, টালা ব্রিজ এবং সাঁতরাগাছি ব্রিজ।

santragachi bridge kolkata
সাঁতরাগাছি ব্রিজ। ছবি ইউটিউব থেকে

পূর্তকর্তাদের মতে, এই ৭টি সেতুর ভারবহন ক্ষমতা কমে গিয়েছে। যে কারণে সেতুগুলি দিয়ে পণ্যবাহী গাড়ি চলাচল নিয়ন্ত্রণে পুলিশি উদ্যোগের কথাও বলা হয়েছে। যত দিন না সেতুগুলির সংস্কারের কাজ সম্পন্ন হচ্ছে তত দিন এই যাননিয়ন্ত্রণ জারি রাখা ভালো বলেই তাঁরা মনে করেন।

Bijan-Setu
বিজন সেতু। ছবি ইন্ডিয়া ব্লুমস থেকে

এ ব্যাপারে কলকাতা পুলিশের ট্রাফিক বিভাগের ইতিমধ্যেই কার্যকরী উদ্যোগ নিয়েছে। উপরোক্ত ৭টি সেতুর মধ্যে প্রথমের ৪টিতে সমস্ত রকমের পণ্যবাহী যান নিষিদ্ধ করা হয়েছে। বাকিগুলিতেও একই ধরনের নির্দেশিকা জারি করার চিন্তাভাবনা চলছে বলে জানা গিয়েছে।


আরও পড়ুন: ১ অক্টোবর থেকে দ্বিতীয় হুগলি সেতুতে বাইক আরোহীদের জন্য বিশেষ ছাড়, ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর

অবশ্য পূর্ত দফতরের এক কর্তা সংবাদ মাধ্যমের কাছে অভিযোগ করে বলেছেন, নিষিদ্ধ ঘোষণা করার পরেও কোনো কোনো সেতুতে পণ্যবাহী যান চলছে। বিশেষ করে রাতের দিকে এমন ঘটনা ঘটছে।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন