Connect with us

কলকাতা

বাতানকুল বাসে আরও বেশি গরম, সমস্যায় শহরের নিত্যযাত্রীরা

Published

on

কলকাতা: শহরে গরম যত বেড়েছে, ততই বেড়েছে বাতানকুল বাসের চাহিদাও। গত কয়েক মাসে দিনপ্রতি গড়ে আড়াই লক্ষ যাত্রী এই বাতানুকূল বাসে ভ্রমণ করছেন। কিন্তু গরম থেকে রেহাই মিলছে কোথায়? বহু যাত্রীর অভিযোগ, বাতানুকূল বাসগুলিতে আরও বেশি গরম। বাসের মধ্যে অস্বস্তিকর পরিস্থিতি কাটানোর জন্য অনেকেই বাতানুকূল বাস থেকে নেমে সাধারণ বাসে ভ্রমণ করছেন।

যাত্রীদের অভিযোগ কিন্তু একেবারে অমূলক নয়। কারণ দেখা গিয়েছে যে সব বাতানুকূল বাসের সামনে ইঞ্জিন, সেই বাসগুলি কার্যত ঠান্ডাই হচ্ছে না। পরিবহণ মন্ত্রকের এক আধিকারিকের কথায়, যে সব বাসে পেছনে ইঞ্জিন, সেই বাস অনেক বেশি ঠান্ডা হয়।

এপ্রিল থেকে ক্ষমতার চার গুন বেশি যাত্রী নিয়ে যাচ্ছে বাসগুলি। ফলে মাঝেমধ্যেই একটি বাসের ভেতরে যাত্রী সংখ্যা ছুঁয়ে যাচ্ছে ১৫০। ফলে এত সংখ্যক যাত্রীর শরীর থেকে নির্গত গরমও পুরো পুরিস্থিতিকে আরও ঘোরালো করে তুলছে। এই সমস্যার জেরে যাত্রী অসন্তোষ যে বাড়ছে সেটা স্বীকার করে নিচ্ছেন কন্ডাকটররা। বাতানুকূল যন্ত্র অকেজো হওয়ার জন্য অনেকে পর্যাপ্ত ভাড়ার কম ভাড়া দিচ্ছেন, এমনও দাবি করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন শুক্রবার বিকেলে নতুন মন্ত্রীসভার বৈঠক, মন্ত্রক নিয়ে জল্পনা কাটার ইঙ্গিত

রক্ষণাবেক্ষণের অভাব একটা কারণ বলে জানান পশ্চিমবঙ্গ পরিবহণ নিগমের (ডব্লিউবিটিসি) এক আধিকারিক। পাশাপাশি সামনে ইঞ্জিন থাকা বাসের প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “সামনে ইঞ্জিন থাকা বাসে যে গরম নির্গত হয়, সেটা বাইরে বেরোতে পারে না। ফলে বাসের ভেতর ক্রমশ গরম হয়ে ওঠে। এই সব বাসে যাঁরা পেছনে থাকেন, তাঁরাই ঠান্ডা অনুভব করেন।”

এই সমস্যার সমাধান হিসেবে উঠে আসছে ইলেকট্রিক বাস। এই বাস যে হেতু ব্যাটারিতে চলে, তাই গরম নির্গত হওয়ার কোনো ব্যাপার নেই। যার ফলে পুরো বাসের ভেতর সমান ভাবেই ঠান্ডা হচ্ছে। কিন্তু আপাতত ইলেকট্রিক বাসের সংখ্যা কম। তাই এই বাসের সংখ্যা আরও বাড়ানোর দাবি করছেন শহরবাসী।

কলকাতা

কলকাতার সিংহভাগ অভিভাবক চাইছেন না এখনই স্কুল খুলুক: অনলাইন সমীক্ষা

রাজ্য সরকার জানিয়েছে, আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত রাজ্যের সমস্ত স্কুল বন্ধ থাকবে।

Published

on

আংশিক ভাবে স্কুল খুলেছে আটটি রাজ্য। প্রতীকী ছবি

কলকাতা: অভিভাবকদের বড়ো অংশই চাইছেন না, এখনই নিজের সন্তানকে স্কুল পাঠাতে। বিভিন্ন স্কুলের অনলাইন সমীক্ষা এবং ভার্চুয়াল মত বিনিময়ে এই তথ্য উঠে এসেছে।

করোনা সংক্রমণের আবহেই ইতিমধ্যেই গত ২১ সেপ্টেম্বর থেকে নবম-দ্বাদশ শ্রেণির পড়ুয়াদের জন্য আংশিক ভাবে স্কুল খুলেছে দেশের আটটি রাজ্য। তবে সে ক্ষেত্রেও কোনো পড়ুয়ার উপস্থিতি নির্ভর করছে অভিভাবকের অনুমতির উপর। স্বেচ্ছায় স্কুলে যেতে পারে কোনো পড়ুয়া, তবে কেন্দ্রীয় সরকারের নির্দেশিকা অনুযায়ী, কাউকেই স্কুলে যেতে বাধ্য করতে পারবেন না কোনো শিক্ষক অথবা স্কুল কর্তৃপক্ষ।

এমন পরিস্থিতিতে কলকাতার কয়েকটি স্কুল অভিভাবকদের মতামত যাচাই করে বলে উল্লেখ করা হয়েছে দ্য টাইমস অব ইন্ডিয়ার একটি প্রতিবেদনে।

বলা হয়েছে, স্কুলের তরফে অভিভাবকদের বেশ কয়েকটি বিষয়ে আশ্বস্থ করা হয়। যেমন, সব সময়ের জন্য শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা, মাস্ক এবং গ্লাভস বাধ্যতামূলক ভাবে ব্যবহার, ঘন ঘন স্যানিটাইজেশন-সহ স্বাস্থ্যসুরক্ষা বিধির প্রতিটি নির্দেশ মেনে চলার ব্যাপারে নিশ্চিত করা হয়। কিন্তু তার পরেও ৯০ শতাংশ অভিভাবকের কাছ থেকে এখনই স্কুল খোলার প্রশ্নে ‘না’ উত্তর এসেছে।

কী কারণে এই অনলাইন সমীক্ষা?

অন্য দিকে কেন্দ্র অপেক্ষাকৃত উঁচু ক্লাসের জন্য আংশিক ভাবে স্কুল খোলার ব্যাপারে সবুজ সংকেত দিলেও পশ্চিমবঙ্গ সরকার আগেই জানিয়ে দিয়েছে, আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত রাজ্যের সমস্ত স্কুল বন্ধ থাকবে।

শহরের স্কুলগুলির জানিয়েছে, রাজ্য সরকারের কাছ থেকে নির্দেশ পেলে স্কুল খোলার জন্য আগাম রূপরেখা তৈরির জন্যই তারা অভিভাবকদের সঙ্গে যোগাযোগ করে। তাদের দাবি, বাবা-মা যে বাচ্চাদের এখনই স্কুলে পাঠাতে চাইবেন না, তা তারা জানত। তবুও স্কুল খোলার ব্যাপারে রাজ্য সরকার তাদের প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে সম্ভাব্য প্রস্তুতি নিয়ে রাখতে চাইছে তারা।

এই উদ্দেশ্য নিয়েই শহরের বেশ কয়েকটি স্কুল অভিভাবকদের সঙ্গে স্কুল খোলার ব্যাপারে যোগাযোগ করে। কিন্তু গড়ে ৮৫-৯০ শতাংশ অভিভাবকই এখনই স্কুল খোলার ব্যাপারে সায় দেননি।

(আরও পড়তে পারেন: ২১ সেপ্টেম্বর থেকে স্কুল খোলা বাধ্যতামূলক নয়, দেখে নিন কোন রাজ্য কী সিদ্ধান্ত নিল)

এমনটাও জানা যায়, কয়েকটি স্কুল ৩০ সেপ্টেম্বরের পর থেকে পড়ুয়াদের ছোটো ছোটো দলে ভাগ করে স্কুল খোলার প্রস্তাব দেয়। কিন্তু সে প্রস্তাবও খারিজ হয়ে যায় অভিভাবক মহলে।

সর্বভারতীয় সমীক্ষা

তবে মাসখানেক আগের সর্বভারতীয় একটি সমীক্ষায় স্কুল খোলার ব্যাপারে সায় জানিয়েছিলেন ৩৩ শতাংশ অভিভাবক। তবে ৫৮ শতাংশ অভিভাবক এক কথায় ‘না’ জানিয়ে দিয়েছেন।

এ বিষয়ে লোকাল সার্কেলস (LocalCircles) নামে একটি বেসরকারি সংস্থার সমীক্ষায় বলা হয়েছিল, কেন্দ্রীয় সরকার পুনরায় স্কুল খোলার ব্যাপারে যে প্রস্তাব প্রকাশ করেছে, তাতে সায় জানিয়েছেন ৩৩ শতাংশ অভিভাবক। তবে ৫৮ শতাংশ অভিভাবক এক কথায় ‘না’ জানিয়ে দিয়েছেন।

স্কুল খোলার আগে সন্তানকে জানান ৫টি প্রয়োজনীয় তথ্য

সংক্রমণের হার, সক্রিয় রোগীর সংখ্যা, সুস্থতার হার ইত্যাদি কতটা বাড়ল অথবা কমল, সে সব জটিল পরিসংখ্যান শিশুদের বোঝানো কোনো মতেই সম্ভব নয়। কিন্তু ভয়াবহ এই সমস্যা সম্পর্কে তাদের ন্যূনতম শিক্ষিত করে তোলার মাধ্যমেই সুরক্ষিত রাখার কৌশল নিতে হবে।

(বিস্তারিত পড়ুন এখানে: স্কুল খোলার আগে নিজের সন্তানকে এই ৫টি তথ্য অবশ্যই জানাবেন)

Continue Reading

কলকাতা

ঐতিহ্যবাহী প্রতিভা গ্রন্থাগারের দ্রুত সংস্কারের প্রতিশ্রুতি দিলেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়

এ দিন তিনি ১২৭ নম্বর ওয়ার্ডের প্রায় বন্ধ হয়ে যাওয়া ঐতিহ্যবাহী প্রতিভা গ্রন্থাগার পরিদর্শন করেন।

Published

on

partha chatterjee
পার্থ চট্টোপাধ্যায়। ফাইল ছবি

কলকাতা: ঐতিহ্যবাহী প্রতিভা গ্রন্থাগারের দ্রুত সংস্কারের প্রতিশ্রুতি দিলেন রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। এ দিন তিনি গ্রন্থাগারটি পরিদর্শন করেন।

নিজের বেহালা পশ্চিম কেন্দ্রের অন্তর্গত গুরুত্বপূর্ণ ১১৯ নম্বর ওয়ার্ড পরিদর্শনে যান শিক্ষামন্ত্রী। অন্যান্য দিনের মতোই নিজের কেন্দ্র পরিদর্শন কর্মসূচির অঙ্গ হিসেবে মনি টাওয়ারে এক ঝটিকা সফর করেন। উদ্দেশ্য, ওই টাওয়ারের আবাসিকের বিভিন্ন বিষয়ে বিশদে খবর নেওয়া। পাশাপাশি তাঁদের যদি কোনো সমস্যা বা অসুবিধা থেকে থাকে, তা দ্রুত নিষ্পত্তি করা।

আবাসিকরাও বিধায়কের এই কর্মসূচিতে এ দিন সাড়া দেন। বিধায়ক হিসেবে পার্থবাবুর বিভিন্ন কাজের সম্মান ও স্বীকৃতি জানান। এ দিনই তিনি কলকাতা পুরসভার ১২৭ নম্বর ওয়ার্ডের প্রায় বন্ধ হয়ে যাওয়া ঐতিহ্যবাহী প্রতিভা গ্রন্থাগার পরিদর্শন করেন।

আরও পড়তে পারেন: শ্রমিক স্পেশাল ট্রেনে ৯৭ অভিবাসীর মৃত্যু, রেলমন্ত্রীর তথ্য উসকে দিল গরমিলের ইঙ্গিত!

এর আগে পার্থবাবুকে একাধিক বার বলতে শোনা গিয়েছে, “গুগুল সার্চ, সোশ্যাল মিডিয়াতেই বই পড়ার অভ্যাস শেষ হয়ে যাচ্ছে। বই যত পড়বেন তত জ্ঞানের অন্বেষণ হবে। বইয়ের বিকল্প কিছু নেই”। এ দিন তিনি গ্রন্থাগারটি পরিদর্শন করেই অতিসত্ত্বর সংস্কারের মাধ্যমে আবার আগের অবস্থায় ফিরিয়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন।

Continue Reading

কলকাতা

ট্যাক্সি চালকের হাতে হেনস্থা মামলায় আলিপুর আদালতে গোপন জবানবন্দি সাংসদ- অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তীর

শুক্রবার আলিপুর আদালতে গোপন জবানবন্দি দিলেন মিমি চক্রবর্তী।

Published

on

কলকাতা: প্রকাশ্য দিনের আলোয় গত সোমবার হেনস্থার শিকার হয়েছিলেন সাংসদ এবং অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী (Mimi Chakraborty)। শুক্রবার আলিপুর আদালতে গোপন জবানবন্দি দিলেন তিনি।

সোমবার ভরদুপুরে জনবহুল এলাকায় মিমিকে লক্ষ্য করে কটূক্তি ও শ্লীলতাহানির অভিযোগ ওঠে এক ট্যাক্সি চালকের বিরুদ্ধে। গড়িয়াহাট থানায় অভিযোগ দায়ের হলে তড়িঘড়ি ব্যবস্থা নিয়ে ঘটনায় অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

এ দিন জবানবন্দি দেওয়ার পর সাংবাদিকদের সামনে মিমি চক্রবর্তী বলেন, “আজকে আমার আসাটা খুব দরকার ছিল। তা হলে ও হয়তো ছাড়া পেয়ে যেত। এর পর অন্য কারুর সঙ্গে তো আরও খারাপ কিছু করতে পারে”।

একই সঙ্গে মিমি বলেন, “আমার কলকাতা প্রশাসন কিংবা রাজ্যের বদনাম হোক চাই না। আজ দোষী ছাড়া পেয়ে গেলে আমার শহর আর নিরাপদ থাকবে না। ভবিষ্যতে এ রকম আরও অপ্রীতিকর পরিস্থিকির সম্মুখীন হতে পারেন মহিলারা। তাই এই মামলায় পুলিশি তদন্তে সহযোগিতা করতে আজ নিজে এসে জবানবন্দি করে গেলাম”।

কী ঘটেছিল সে দিন?

গত সোমবার বিকেলে জিম থেকে ফেরার পথে মিমি হেনস্থার শিকার হন। বিকেলে বালিগঞ্জ এবং গড়িয়াহাটের মাঝামাঝি এলাকায় ট্র্যাফিক সিগনালে দাঁড়িয়েছিল মিমির গাড়ি। ঘটনায় প্রকাশ, তখন একটি ট্যাক্সি তাঁর গাড়িকে ওভারটেক করে। মিমি যখন কাচ নামিয়ে দেখতে যান, তখনই তিনি লক্ষ্য করেন, পাশে দাঁড়ানো ট্যাক্সির চালক তাঁর উদ্দেশে অশ্লীল অঙ্গভঙ্গি করছে।

বিস্তারিত পড়ুন এখানে: মিমি চক্রবর্তীকে অশ্লীল ইঙ্গিতের অভিযোগে গ্রেফতার ট্যাক্সিচালক

Continue Reading
Advertisement
Umar Khalid
দেশ5 hours ago

উমর খালিদের মুক্তির দাবিতে সরব অমিতাভ ঘোষ, মীরা নায়ার-সহ দুশোর বেশি বিদ্বজ্জন

KL Rahul
ক্রিকেট7 hours ago

রাহুল-ঝড়ে তছনছ বেঙ্গালুরু

KL Rahul
ক্রিকেট9 hours ago

রেকর্ড বইয়ে নাম লিখিয়ে দুর্ধর্ষ ইনিংস কেএল রাহুলের

কেনাকাটা9 hours ago

পুজো কালেকশনে ৬০০ থেকে ১০০০ টাকার মধ্যে চোখ ধাঁধানো ১০টি শাড়ি

Poorva Express
রাজ্য9 hours ago

রবিবার থেকে হাওড়া-দিল্লি স্পেশাল ট্রেনের সংখ্যা বাড়াচ্ছে রেল

coronavirus west bengal
রাজ্য10 hours ago

রাজ্যের সামগ্রিক করোনা-পরিস্থিতি অপরিবর্তিত, বাড়ল সুস্থতার হার

রাজ্য10 hours ago

সিভিক ভলান্টিয়ার ও আশাকর্মীদের বেতন বাড়াল রাজ্য, সঙ্গে হকারদের জন্য অনুদান

Yeddyurappa and siddaramaiah
দেশ11 hours ago

কর্নাটকে বিজেপি সরকারের স্থায়িত্ব ঘিরে নয়া জল্পনা! অনাস্থা প্রস্তাব আনল কংগ্রেস

কেনাকাটা

কেনাকাটা9 hours ago

পুজো কালেকশনে ৬০০ থেকে ১০০০ টাকার মধ্যে চোখ ধাঁধানো ১০টি শাড়ি

খবর অনলাইন ডেস্ক: পুজোর কালেকশনের নতুন ধরনের কিছু শাড়ি যদি নাগালের মধ্যে পাওয়া যায় তা হলে মন্দ হয় না। তাও...

কেনাকাটা2 days ago

মহিলাদের পোশাকের পুজোর ১০টি কালেকশন, দাম ৮০০ টাকার মধ্যে

খবরঅনলাইন ডেস্ক : পুজো তো এসে গেল। অন্যান্য বছরের মতো না হলেও পুজো তো পুজোই। তাই কিছু হলেও তো নতুন...

কেনাকাটা6 days ago

সংসারের খুঁটিনাটি সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে এই জিনিসগুলির তুলনা নেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক : নিজের ও ঘরের প্রয়োজনে এমন অনেক কিছুই থাকে যেগুলি না থাকলে প্রতি দিনের জীবনে বেশ কিছু সমস্যার...

কেনাকাটা1 week ago

ঘরের জায়গা বাঁচাতে চান? এই জিনিসগুলি খুবই কাজে লাগবে

খবরঅনলাইন ডেস্ক : ঘরের মধ্যে অল্প জায়গায় সব জিনিস অগোছালো হয়ে থাকে। এই নিয়ে বারে বারেই নিজেদের মধ্যে ঝগড়া লেগে...

কেনাকাটা2 weeks ago

রান্নাঘরের জনপ্রিয় কয়েকটি জরুরি সামগ্রী, আপনার কাছেও আছে তো?

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রান্নাঘরের এমন কিছু সামগ্রী আছে যেগুলি থাকলে কাজ করাও যেমন সহজ হয়ে যায়, তেমন সময়ও অনেক কম খরচ...

কেনাকাটা2 weeks ago

ওজন কমাতে ও রোগ প্রতিরোধশক্তি বাড়াতে গ্রিন টি

খবরঅনলাইন ডেস্ক : ওজন কমাতে, ত্বকের জেল্লা বাড়াতে ও করোনা আবহে যেটি সব থেকে বেশি দরকার সেই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা...

কেনাকাটা3 weeks ago

ইউটিউব চ্যানেল করবেন? এই ৮টি সামগ্রী খুবই কাজের

বহু মানুষকে স্বাবলম্বী করতে ইউটিউব খুব বড়ো একটি প্ল্যাটফর্ম।

কেনাকাটা4 weeks ago

ঘর সাজানোর ও ব্যবহারের জন্য সেরামিকের ১৯টি দারুণ আইটেম, দাম সাধ্যের মধ্যে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ঘর সাজাতে কার না ভালো লাগে। কিন্তু তার জন্য বাড়ির বাইরে বেরিয়ে এ দোকান সে দোকান ঘুরে উপযুক্ত...

কেনাকাটা1 month ago

শোওয়ার ঘরকে আরও আরামদায়ক করবে এই ৮টি সামগ্রী

খবর অনলাইন ডেস্ক : সারা দিনের কাজের পরে ঘুমের জায়গাটা পরিপাটি হলে সকল ক্লান্তি দূর হয়ে যায়। সুন্দর মনোরম পরিবেশে...

kitchen kitchen
কেনাকাটা1 month ago

রান্নাঘরের এই ৮টি জিনিস কাজ অনেক সহজ করে দেবে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: আজকাল রান্নাঘরের প্রত্যেকটি কাজ সহজ করার জন্য অনেক উন্নত ব্যবস্থা এসে গিয়েছে। তা হলে ঘণ্টার পর ঘণ্টা কষ্ট...

নজরে