kolkata1

কলকাতা: ইএম বাইপাসের চিংড়িঘাটায় বেলঘাটার দিক থেকে রাস্তা পার হচ্ছিলেন বছর পঞ্চাশের মহিলা ঝুমা সর্দার। ঠিক সেই সময়ই উল্টোডাঙার দিক থেকে সায়েন্সসিটিগামী একটি বেসরকারি বাস ধাক্কা মারে তাঁকে।

গুরুতর আহত অবস্থায় তাঁকে উদ্ধার করেন পথচলতি মানুষ এবং স্থানীয় বাসিন্দারা। সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। চিকিৎসা শুরু হলেও তাঁর অবস্থা মোটেই স্থিতিশীল নয়। এই ঘটনার পরেই স্থানীয় বাসিন্দারা রাস্তা অবরোধ করেন।

ঝুমাদেবীর বাড়ি চিংড়িঘাটাতেই। তিনি প্রতিদিনের মতোই রবিবারও নিজের কাজে যাচ্ছিলেন। ঠিক সে সময়ই এই ধরনের দুর্ঘটনার শিকার হন।

kolkata

উল্লেখ্য, গত ৩ ফেব্রুয়ারি ওই একই এলাকায় ভয়ঙ্কর দুর্ঘটনা ঘটে গিয়েছিল। মৃত্যু হয়েছিল বিশ্বজিৎ ভুঁইয়া ও সঞ্জয় বণি নামের দুই যুবকের। ওই দিন সকাল সোয়া এগারোটা নাগাদ ওই দুর্ঘটনা ঘটার পর থেকেই কার্যত রণক্ষেত্রের আকার নেয় চিংড়িঘাটা এলাকা। উত্তেজিত জনতা তিনটি বাসে আগুন ধরিয়ে দেয়। পুলিশের সঙ্গে জনতার খণ্ডযুদ্ধ বেঁধে যায়। যা নিয়ন্ত্রণে নামাতে হয় অতিরিক্ত পুলিশ বাহিনীকেও।

কিন্তু তার পরেও চিংড়িঘাটা এলাকায় যান চলাচল নিয়ন্ত্রণে তেমন কোনো জোরালো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি বলে স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here