১২ দিনের পুলিশি হেফাজতে ঘাতক গাড়ির চালক আরসালান পারভেজ

0
Arsalan Pervez
প্রতীকী ছবি

ওয়েবডেস্ক: গত শুক্রবার রাতে বেপরোয়া গাড়ি চালিয়ে দুই বাংলাদেশিকে পিষে মারায় অভিযুক্ত আরসালান পারভেজকে ১২ দিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দিল ব্যাঙ্কশাল আদালত। রবিবার তাঁকে আদালতে তুললে সরকারি আইনজীবী ১৪ দিনের পুলিশ হেফাজতের আর্জি জানান। তবে বিচারক ১৪-র পরিবর্তে ১২ দিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দেন।

গত শুক্রবার রাত ১.৫০টা নাগাদ শেকসপিয়র সরনির কাছে ট্যাক্সির অপেক্ষায় দাঁড়িয়ে থাকা দুই বাংলাদেশি নাগরিককে গাড়ির চাকায় পিষে দেন পারভেজ। তিনি কলকাতার বিখ্যাত রেস্তোঁরা মালিকের ছেলে। লন্ডনে পড়াশোনা করে বাড়ি ফিরে এসে রাতের কলকাতায় বেপরোয়া ভাবে গাড়ি চালাতে গিয়েই এই মর্মান্তিক দুর্ঘটনাটি ঘটান।

তাঁর গাড়িতে পিষ্ট হয়েছেন কাজি মহম্মদ মইনুল আলম (৩৬) ও ফারহানা ইসলাম তানিয়া (২৮) নামে দুই বাংলাদেশি নাগরিক। মইনুলের বাড়ি বাংলাদেশের ঝিনাইদহে। চাকরি করতেন গ্রামীণ ফোনে। অন্য দিকে, তানিয়া ছিলেন বাংলাদেশের সিটি ব্যাঙ্কের অ্যাসিস্ট্যান্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট পদে। তাঁরা চিকিৎসা করাতে ঢাকা থেকে কলকাতায় এসেছিলেন বলে জানা গিয়েছে।

সূত্রের খবর, ওই #গাড়ি দুর্ঘটনার পর আসরালান হেঁটে বাড়ি ফেরেন। পুলিশ তাঁকে গ্রেফতার করে ভারতীয় দণ্ডবিধির ২৭৯ (বেপরোয়া ভাবে গাড়ি চালানো), ৪২৭ (সম্পত্তির ক্ষতিসাধন করা) এবং ৩০৪(২) (অনিচ্ছাকৃত মৃত্যু ঘটানো) ধারায় মামলা দায়ের করে তাঁর বিরুদ্ধে। একই সঙ্গে জানা গিয়েছে, আরসালানকে গ্রেফতারের পর তাঁর বিরুদ্ধে ৩০৪এ ধারায় মামলা হলেও পরে সেটি পরিবর্তন করা হয়। ৩০৪এ অনিচ্ছাকৃত খুনের মামলা হলেও জামিনযোগ্য ছিল। কিন্তু পারভেজকে গ্রেফতারের পর ৩০৪(২) ধারায় মামলা পরিবর্তন করে। এটি জামিন অযোগ্য ধারা।

পুলিশ জানিয়েছে, শুধু দুর্ঘটনাস্থলে নয়, ওই রাতে তিনি একাধিক জায়গায় সিগন্যাল ভেঙে প্রায় ৯০ কিমি/ঘণ্টা গতিবেগে বেপরোয়া ভাবে গাড়ি চালাচ্ছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here