আপনার কি ইএমআই বকেয়া রয়েছে, তা হলে এ ধরনের হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজ থেকে সতর্ক হোন

0

কলকাতা: অনলাইনে লেনদেন বাড়ার সঙ্গেই বেড়েছে প্রতারণার মাত্রাও। ব্যাঙ্ক থেকে শুরু করে পুলিশের তরফেও গ্রাহকদের লাগাতার সতর্ক করা হচ্ছে। তবে পরিস্থিতির সঙ্গে ভোল বদলাচ্ছে প্রতারকরাও। স্বাভাবিক ভাবেই জালিয়াতির নিত্যনতুন ফন্দি এড়াতে তাৎক্ষণিক ভাবে ঘাবড়ে না যাওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা।

সম্প্রতি এমনই একটি ঘটনা প্রকাশ্যে এল, যেখানে কোনো একটি ঋণ প্রদানকারী অ্যাপের নাম করে কলকাতার এক বাসিন্দাকে ঘন ঘন হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজ পাঠানো হয় গত সোমবার থেকে। প্রথম মেসেজে বলা হয়, “আপনার ঋণ বকেয়া রয়েছে। দয়া করে আজ পরিশোধ করে দিন। প্রতিদিনই সুদের পরিমাণ বাড়ছে। যা আপনার জীবনে প্রভাব ফেলবে। আমরা চেষ্টা করছি সমঝোতার মাধ্যমে সুদের পরিমাণ কমাতে। এ ব্যাপারে আপনার পরিবারের অন্য সদস্যদের সঙ্গেও যোগাযোগ করা হবে না”। অর্থাৎ, টাকা না দিলে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে যোগাযোগ করার প্রচ্ছন্ন হুমকিও দেওয়া হয় ওই মেসেজে।

Shyamsundar

ওই মেসেজের নীচের দিকে দেওয়া হয় একটি অ্যাপের লিঙ্ক, যেটা ডাউনলোড করে টাকা মিটিয়ে দেওয়া যাবে বলে জানায় মেসেজ প্রেরণকারী। সঙ্গে দেওয়া হয় সমঝোতার জন্য একটি মোবাইল নম্বর।

মেসেজের গ্রাহক কোনো প্রত্যুত্তর না দেওয়ায় ঘণ্টা কয়েক বাদেই ফের একই বার্তা পাঠানো হয়। তবে একাধিক মোবাইল নম্বর থেকে পাঠানো হয় মেসেজগুলি। আবার সেগুলিতে অ্যাপের লিঙ্ক একই থাকলেও বদলে যায় কাস্টমার সার্ভিসের মোবাইল নম্বরটি।

বাধ্য হয়ে ওই ব্যক্তি মেসেজ প্রেরণকারীকে পাল্টা মেসেজে জানিয়ে দেন, আমাকে পাঠানো মেসেজটি আমি কলকাতা পুলিশের সাইবার ক্রাইম বিভাগে পাঠাচ্ছি”।

এর পর সাময়িক ভাবে বন্ধ হয়ে যায় মেসেজ লেনদেন। তবে মঙ্গলবার সকালে ফের ওই মেসেজ পাঠানো হয়। ওই ব্যক্তি প্রত্যুত্তরে একই কথা জানিয়ে দেন।

ওই ব্যক্তির সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, “ওই ধরনের কোনো অ্যাপ থেকে আমি কোনো ঋণ-ই নিইনি। ফলে বাকি পড়ে যাওয়া ঋণ পরিশোধের কোনো প্রশ্নই ওঠে না। যে কারণে হোয়াটসঅ্যাপে পাঠানো অ্যাপের লিঙ্কে ক্লিক অথবা মোবাইল নম্বরে ফোন করার প্রয়োজন রয়েছে বলে মনে হয়নি”।

একই সঙ্গে এক জন সচেতন নাগরিক হিসেবে তিনি বলেন, “গুগল প্লে স্টোরে এ ধরনের অ্যাপের কোনো অস্তিত্ব নেই। অ্যাপটি নির্দিষ্ট করে শুধুমাত্র হোয়াটসঅ্যাপে পাঠানো লিঙ্ক থেকেই ডাউনলোড করা সম্ভব। কিন্তু গুগল প্লে স্টোর অথবা অন্য কোনো অ্যাপ স্টোরে যে অ্যাপ পাওয়া যায় না, তা মোটেই নিরাপদ নয়। বর্তমান পরিস্থিতিতে কারও ইএমআই বকেয়া পড়তেই পারে, সে ক্ষেত্রে এ ধরনের ভুয়ো হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজে ঘাবড়ে গিয়ে ফাঁদে পা দেওয়ার সম্ভাবনা থেকেই যায়”।

আদতে এ ধরনের ঘটনা মোটেই নতুন নয়। গত এপ্রিল মাসেও বাজাজ ফিনান্সের মতো বড়োসড়ো ঋণপ্রদানকারী সংস্থার নামে ভুয়ো কলসেন্টার চালানোর অপরাধে মুম্বই এবং দিল্লি থেকে একাধিক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে সংশ্লিষ্ট রাজ্যের পুলিশ। ঋণের বাকি পড়ে যাওয়া ইএমআই পরিশোধের ‘লোভনীয়’ শর্ত দিয়ে ফোন করা হতো ওই কলসেন্টারগুলি থেকে। এক বার কেউ তাদের ফাঁদে পা দিলেই প্রতারিত হওয়া ছাড়া কোনো গত্যন্তর নেই!

সাইবার প্রতারণা বেড়ে যাওয়ার কারণে অনেক দিন ধরেই সতর্ক করছে ব্যাঙ্ক এবং পুলিশ। কলকাতা পুলিশ জানিয়েছে, “দয়া করে এই ধরনের ভুয়ো মেসেজ / কলের ফাঁদে পড়ে প্রতারিত হবেন না। আপনার ব্যক্তিগত তথ্য শেয়ার করবেন না। এবং এ ধরনের সমস্ত ঘটনার তদন্ত করতে অ্যান্টি ব্যাঙ্ক ফ্রড হেল্প লাইন নম্বর 8585063104-এ ২৪x৭ রিপোর্ট করুন। এ ছাড়া আপনি [email protected]এ আমাদের ইমেলও করতে পারেন”।

উল্লেখযোগ্য আরও এই খবরগুলি পড়তে পারেন

কোয়াড শীর্ষ বৈঠকে যোগ দিতে আগামী সপ্তাহে আমেরিকা সফরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী

আফগানিস্তানে মানবিক বিপর্যয় সামলাতে অর্থ সাহায্যপ্রার্থী রাষ্ট্রপুঞ্জ, সদর্থক সাড়া দিল ভারত

ভয়াল ভাঙনের মুখে মালদহ, নতুন বাড়ি খুঁজছেন প্রাক্তন বিধায়ক

২৫ হাজারে নেমে গেল দৈনিক সংক্রমণ, সক্রিয় রোগী কমল আরও ১২ হাজার

সোমবার রাত থেকে ভারী বৃষ্টি দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলায়, সকাল থেকে শুরু কলকাতায়

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন