kolkata high court

কলকাতা: মাঝেরহাট সেতু ভেঙে পড়া নিয়ে জনস্বার্থ মামলা দায়ের হল কলকাতা হাইকোর্টে। গত মঙ্গলবার দুপুরে ওই সেতু ভেঙে পড়ার ঘটনায় এখনও পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা ১, আহত হয়েছেন ২৫ জন। এ দিন কলকাতা হাইকোর্টের আইনজীবী রবিশঙ্কর চট্টোপাধ্যায় সেতু ভেঙে পড়ার পূর্ণাঙ্গ তদন্ত চেয়ে আদালতে মামলা করলেন। জানা গিয়েছে, প্রধান বিচারপতি জ্যোতির্ময় ভট্টাচার্য ও অরিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চে এই মামলা গৃহীত হয়েছে।

মাঝেরহাট সেতু ভেঙে পড়ার পর কেটে গিয়েছে ২৪ ঘণ্টা। পুলিশের তরফে স্বত:প্রণোদিত হয়ে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। কিন্তু সেতু ভাঙার দায় নিয়ে এখনও কোনো স্বচ্ছ ধারণা উঠে আসেনি। জানা গিয়েছে, রাজ্যের পূর্ত দফতরের অধীনে ছিল। কিন্তু রাজ্য সরকারি দফতরের তরফে সেতু ভাঙার দায় ঠেলে দেওয়া হয়েছে অন্যের ঘাড়ে। ওই এলাকায় বর্তমানে মেট্রো রেলের কাজ চলছে। ফলে পূর্ত দফতরের ইঙ্গিত সে দিকেই। আবার উঠে এসেছে পূর্ব রেল এবং পোর্ট ট্রাস্টের ভূমিকার কথাও।


আরও পড়ুন: ব্রিজ ভাঙার দায় কার? প্রাথমিক রিপোর্ট জমা দিল রাইটস


এ কথা ঠিক রাজ্য প্রশাসন ও কলকাতা পুলিশের তরফে উদ্ধারকাজ চলছে যথাযথ। এমনকী নৌসেনাও উদ্ধারকাজে হাত লাগিয়েছে। কিন্তু এখনও পর্যন্ত সেতু ভেঙে পড়ার জন্য দায় নেয়নি কোনো মহলই।

এ বিষয়ে সংবাদপত্রের ছবি সম্বলিত অভিযোগ দায়ের করেছেন রবিশঙ্করবাবু। তাঁর অভিযোগ, দীর্ঘদিন ধরেই এই সেতুর অবস্থা আশঙ্কাজনক। তবুও দায়িত্বপ্রাপ্ত দফতরের পক্ষ থেকে সেটির রক্ষণাবেক্ষণে পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। রাজ্যের আরও বেশকিছু সেতুর অবস্থা ভালো নয়। মাঝেরহাট সেতু ভেঙে পড়ার পূর্ণাঙ্গ তদন্ত ও পুরনো সেতুর রক্ষণাবেক্ষণ নিশ্চিত করার দাবি জানিয়েছেন মামলাকারী।

কলকাতা হাইকোর্ট সূত্রে খবর, এই মামলার শুনানি হতে পারে আগামী সপ্তাহে।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন