Mamata Banerjee
ছবি: প্রতীকী

কলকাতা: দুর্ঘটনাস্থল খতিয়ে দেখতে দমদম বিমানবন্দর থেকে সোজা মাঝেরহাট সেতুতে পৌঁছালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কলকাতা পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমার এবং রাজ্যের নিরাপত্তা উপদেষ্টা সুরজিৎ করপুরকায়স্থ-সহ উচ্চপদস্থ কর্তারা তাঁকে দুর্ঘটনাস্থল পর্যবেক্ষণ করান।

গত মঙ্গলবার দিনের ব্যস্ততম সময়ে কী ভাবে হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ল ওই সেতু, সে ব্যাপারে এখনও পর্যন্ত নির্দিষ্ট কোনো তথ্য জানা যায়নি। ওই দিন মুখ্যমন্ত্রী প্রশাসনিক বৈঠকে যোগ দিতে দার্জিলিংয়ে ছিলেন। দুর্ঘটনার খবর শোনার পরই তিনি কলকাতায় ফেরার ইচ্ছাপ্রকাশ করেছিলেন। কিন্তু কোনো বিমান না থাকায় তিনি ফিরতে পারেননি। যে কারণে এ দিন তিনি কলকাতায় ফিরেই সটান চলে যান দুর্ঘটনাস্থলে।

মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “আমরা পুরো জায়গাটা ঘুরে দেখেছি। এটা খুব বড়ো ঘটনা হতে পারত। সেতুটি এ ভাবে ভেঙে পড়ায় আরো বেশি মানুষের ক্ষতি হতে পারত। কিন্তু ঈশ্বরের আশীর্বাদে তেমনটা হয়নি”।

তিনি বলেন, “এই সেতু ৫৪ বছরের পুরনো। পুরনো সেতুগুলির কাগজপত্রও আমরা হাতে পাইনি। আমরা সমস্ত বিষয়ের উপর নজর রাখছি। পুরনো সেতুগুলি নিয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আগামী বৃহস্পতিবার একটি বৈঠক ডাকা হয়েছে”।

মমতা বলেন, “সেতুটি মেরামত করতে বেশ কয়েক দিন সময় লাগবে। এই ক’দিন অন্য রাস্তা দিয়ে গাড়ি চলবে। কয়েকটা দিন একটু সমস্যা হতে পারে। তার পর আবার স্বাভাবিক হয়ে যাবে। যাঁরা দুর্ঘটনার কবলে পড়েছেন, তাঁদের প্রতি আমরা সমব্যথী”। পাশাপাশি তিনি উদ্ধারকারীদের ধন্যবাদ জানান। বিগত ৯ বছর ধরে এই এলাকায় মেট্রোর কাজ চলায় প্রায়শই ভূ-কম্পন হতে বলে দাবি করেন মমতা।

এ দিন মমতা ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর পর ধ্বংসস্তূপের নীচে থাকা আরও এক জনকে উদ্ধার করা হয়েছে। একটি অ্যাম্বুলেন্স খননস্থলের একেবারে কাছে নিয়ে গিয়ে দেহটিকে হাসপাতালের উদ্দেশে নিয়ে যাওয়া হয়। এই নিয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ২, আহত ২৫।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন