নির্দল প্রার্থী হয়ে ভোটযুদ্ধে বিক্ষুব্ধরা, কড়া পদক্ষেপ নিচ্ছে তৃণমূল

0

কলকাতা: দলের কড়া বার্তার পরেও নির্দল প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন প্রত্যাহার করেননি একাধিক তৃণমূল নেতা। দল থেকে তাঁদের বহিষ্কারের সুপারিশ করবেন বলে স্পষ্ট জানিয়ে দিলেন দক্ষিণ কলকাতা জেলা তৃণমূল সভাপতি দেবাশিস কুমার।

দলের টিকিট না পেয়ে নির্দল হিসেবে মনোনয়ন জমা দিয়েছিলেন বেশ কয়েকজন তৃণমূল নেতা। তাঁদের মধ্যে ৭৩ নম্বর ওয়ার্ডের বিদায়ী কাউন্সিলর শেষমেশ মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নেন। কিন্তু কলকাতা পুরসভার ৭২ নম্বর ওয়ার্ড থেকে নির্দল প্রার্থী হিসেবেই ভোটে লড়ছেন বিক্ষুব্ধ তৃণমূল নেতা সচ্চিদানন্দ বন্দ্যোপাধ্যায়।

এ ছাড়াও ৬৮ নম্বর ওয়ার্ডে জোড়া পাতা প্রতীকেই লড়ছেন রাজ্যের প্রয়াত মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের বোন তনিমা চট্টোপাধ্যায়। তৃণমূলের প্রাথমিক প্রার্থী তালিকায় নাম ছিল তাঁর। শুরু করেছিলেন ভোটের প্রচারও। দলীয় প্রতীক দিয়েও দেওয়া হয়েছিল তাঁকে। কিন্তু এর পরই প্রার্থী নিয়ে টানাপড়েন শুরু হয়। রাজ্য সভাপতি সুব্রত বক্সীর নির্দেশে তনিমার কাছ থেকে প্রতীক ফিরিয়ে নেন দক্ষিণ কলকাতা জেলা তৃণমূলের সভাপতি দেবাশিস কুমার।

এ ব্যাপারে দেবাশিস জানান, “জেলা সভাপতি হিসেবে আমি এঁদের বহিষ্কারের সুপারিশ করব রাজ্য কমিটির কাছে। ৭২ নম্বরের সচ্চিদানন্দ বন্দ্যোপাধ্যায় এবং ৬৮ নম্বর ওয়ার্ডে তনিমা চট্টোপাধ্যায়কে দলের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী বহিষ্কারের জন্য রাজ্য কমিটির কাছে সুপারিশ করব”।

যদিও নির্দল হয়ে ভোটযুদ্ধে নামলেও বিক্ষুব্ধরা জানিয়ে দিয়েছেন, তাঁদের লড়াই দলের বিরুদ্ধে নয়, দল মনোনীত প্রার্থীদের নিয়েই তাঁদের আপত্তি। অন্য দিকে, তৃণমূলের প্রার্থীতালিকায় নাম না দেখে কংগ্রেসে যোগ দিয়েছিলেন ৮ নম্বর ওয়ার্ডের বিদায়ী কাউন্সিলর পার্থ মিত্র। শোনা যায়, কংগ্রেসে যোগ দিয়ে টিকিটও পেয়ে যান তিনি। তবে ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই তিনি জানিয়ে দেন, “তৃণমূলেই আছি”।

আরও পড়তে পারেন:

টিকাপ্রাপকদের তালিকায় মোদী-শাহ, প্রিয়ঙ্কা চোপড়া, বিহারের স্বাস্থ্যকেন্দ্রে চাঞ্চল্য

বিধানসভায় লক্ষ্য ছিল দুশো আসন, সেই বিজেপির কলকাতায় টার্গেট মাত্র ১০টা ওয়ার্ড!

৫৫৯ দিনের মধ্যে সর্বনিম্ন কোভিড সংক্রমণ রেকর্ড করল ভারত

বিজেপির সঙ্গেই জোটে যাচ্ছেন সদ্যপ্রাক্তন কংগ্রেসি মুখ্যমন্ত্রী

অবশেষে রোদ উঠল, তবে কনকনে শীত পড়ার আগে ফের একবার বৃষ্টির সম্ভাবনা দক্ষিণবঙ্গে

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন