Connect with us

কলকাতা

দর্জিপাড়া দাঁ বাড়িতে দশমীতে দেবীকে বরণ করেন পুরোহিতমশাই

দাঁ বাড়িতে দেবী অসুরদলনী দশভুজা নন, এখানে তিনি দ্বিভূজা, প্রসন্নবদনা এবং সিংহাসীনা।

Published

on

দাঁ বাড়ির অভয়াদুর্গা।

শুভদীপ রায় চৌধুরী

শুরু হয়ে গেল দেবীপক্ষ। বনেদিবাড়িতে শুরু হয়ে গিয়েছে পুজোর প্রস্তুতি। দিন কয়েকের মধ্যেই ঠাকুরদালান সেজে উঠবে আলোর মালায়। বাংলার কিছু বনেদিবাড়িতে দেবীর অভয়ারূপের পুজো হয়, অর্থাৎ দেবী এখানে সকল ভক্তকে অভয়দান করছেন।

Loading videos...

চণ্ডীমঙ্গল কাব্যের চণ্ডীকে অভয়াচণ্ডী নামেও অভিহিত করা হয়। সেখানে তিনি রণংদেহী নন, তিনি সেখানে বিন্ধ্যবাসিনী কাত্যায়নী। সেই চণ্ডীমঙ্গলে বনের পশুদের যেমন অভয়প্রদান করছেন ঠিক তেমনই কালকেতুকেও বরপ্রদান করছেন। অর্থাৎ সেই অভয়ারূপ থেকেই দুর্গার অভয়ারূপ এসেছে। মা দুর্গার অভয়ারূপের    আরও একটি ব্যাখ্যা রয়েছে। দেবীর হাতে শূলবিদ্ধ হওয়ার সময় তাঁর কাছে ক্ষমাপ্রার্থনা করেন মহিষাসুর। দেবী তাঁকে ক্ষমা করে দিয়ে অভয় দান করেন। সেই থেকে মা দুর্গার অভয়ারূপ।

এই পর্বে কলকাতার এমন এক বনেদিবাড়ির দুর্গাপূজার কথা বলা হবে যেখানে মা পূজিত হন অভয়াদুর্গা রূপে। 

এক দিকে যখন মোঘল রাজশক্তি প্রায় লুপ্ত হতে বসেছে, অপর দিকে ইংরেজ ‘বণিকের মানদণ্ড রাজদণ্ড’ রূপে দেখা দিতে শুরু করেছে, ঠিক সেই সময়ে (১৭৩৪ খ্রিস্টাব্দ) দাঁ বংশের পূর্বপুরুষ দয়ারাম দাঁ বাঁকুড়া জেলার কোতলপুর গ্রামের পৈতৃক বসতি ত্যাগ করে উজ্জ্বল ভবিষ্যতের আশায় শ্রীধর জিউকে সঙ্গে নিয়ে চলে আসেন কলকাতায়। কলকাতার সুতানুটি অঞ্চলের এক পল্লিতে এসে নিজের বসতবাড়ি তৈরি করেন, পরবর্তীকালে সেই পল্লিটি ‘দর্জিপাড়া’ নামে পরিচিত হয়।

১৭৩৫ সালে দয়ারাম দাঁ বড়োবাজার এলাকায় একটি মশলার দোকানের পত্তন করেন যা ‘দয়ারামের পশারী’ নামেই বিখ্যাত। পরবর্তী কালে দাঁ বংশের উত্তরসুরিরা কয়লার খনি, পাট, মোম, মধু ইত্যাদি ব্যাবসায় শ্রীবৃদ্ধি লাভ করেন ও প্রভূত সম্পত্তির মালিক হন।

১৭৬০ সালে রামনারায়ণ দাঁ মা দুর্গাকে অভয়া রূপে পুজো করতে শুরু করেন। এই অভয়া রূপে পুজো করার পেছনে রয়েছে এক বিশেষ কাহিনি। রামনারায়ণ দাঁ তাঁর একমাত্র কন্যা দুর্গারানির খুবই অল্প বয়সে বিবাহ দিয়েছিলেন। বিবাহের পর প্রথম দিন দুর্গারানি যখন বাপের বাড়িতে এলেন মাঙ্গলিক ক্রিয়াকর্মের (ধুলা পায়ের দিন) জন্য, সে সময়ে তিনি কলেরা রোগে আক্রান্ত হন এবং কিছু দিনের মধ্যেই মারা যান। সেই থেকে দাঁ বংশে ‘ধুলা পায়ের দিন’ নামের মাঙ্গলিক ক্রিয়াটি বন্ধ হয়ে যায় এবং রথযাত্রায় কাঠামোপুজোর পর থেকে মহাপূজা অবধি কোনো কন্যার বিবাহ দেওয়া হয় না।

কন্যার মৃত্যুতে রামনারায়ণ খুবই ভেঙে পড়েন এবং তাঁর স্ত্রীকে সান্ত্বনা দেওয়ার জন্য তিনি কন্যা রূপে অভয়াদুর্গার পুজো শুরু করেন। রামনারায়ণ দাঁ দেবীকে মাতৃ রূপে নয় নিজের কন্যা রূপেই পুজো করেছিলেন। তাই দাঁ বাড়িতে দেবী অসুরদলনী দশভুজা নন, এখানে তিনি দ্বিভূজা, প্রসন্নবদনা এবং সিংহাসীনা। অর্থাৎ এই বাড়িতে মহামায়া সিংহবাহিনী নন তিনি এখানে সিংহাসনের ওপর অধিষ্ঠিতা এবং পরম কল্যাণের আধার। তাই তিনি কল্যাণী। তাঁর পায়ে নূপুর এবং তাঁকে ঘিরে রয়েছেন সন্তানেরা, একদম বাড়ির ছেলেমেয়েদের মতন। এই অপূর্ব একচালার অভয়ারূপ দাঁ বাড়ির ঠাকুরদালানকে আরও মহিমান্বিত করে।

দাঁ বাড়িতে কুমারীপুজো।

এই বাড়ির প্রতিমা তৈরি করতেন উত্তর কলকাতার স্বনামধন্য শিল্পী খগেন্দ্রনাথ পালের বংশধরেরা। তবে বর্তমানে কাশীপুর নিবাসী শিল্পী গোবিন্দ দে মূর্তি তৈরি করছেন। প্রাচীন কাল থেকে যে রীতিতে দুর্গাপুজো হত এখনও সেই রীতি মেনেই পুজো হয় এবং পাশাপাশি পারিবারিক কুলদেবতা শ্রীধর জিউয়ের সেবাও হয় নিষ্ঠাসহকারে।

রামনারায়ণ দাঁ মহাশয়ের পৌত্র হরেকৃষ্ণ দাঁ পূর্বপুরুষদের মতনই ধর্মপ্রাণ ব্যক্তি ছিলেন। তাঁর জীবনে শাক্তি এবং বৈষ্ণবভাবের অপূর্ব সংমিশ্রণ ঘটে। অর্থাৎ তিনি শাক্তধর্মে দীক্ষিত হয়েও বৈষ্ণবধর্মের পৃষ্ঠপোষকতা করতেন। কলকাতার বাসভবনে এক বিরাট গ্রন্থাগারও নির্মাণ করেছিলেন। সেই সময়ে বহু খ্যাতনামা ব্যক্তিবর্গ আসতেন তাঁর গ্রন্থাগারে এবং আলোচনা হত সংস্কৃতির বিভিন্ন দিক নিয়ে। এই সূত্রে নবদ্বীপ, ভাটপাড়া, শান্তিপুর-সহ বিভিন্ন স্থানের পণ্ডিতমহলে তাঁর সুনাম বৃদ্ধি পায়।

উত্তর কলকাতার এই প্রসিদ্ধ দাঁ বংশের সদস্যরা আজ বহু শাখায় বিভক্ত। দর্জিপাড়া ছাড়াও কাশীপুর, বরানগর, শিবপুর, ঠনঠনিয়া প্রভৃতি জায়গায় দাঁ বংশের সদস্যরা আছেন। ১৯৩৪ সালে অভয়াদুর্গার স্থায়ী দালান-সহ দর্জিপাড়ার পুরোনো বাড়ির কিছু অংশের জমি সিআইটি (ক্যালকাটা ইমপ্রুভমেন্ট ট্রাস্ট) নেয় নতুন রাজপথ নির্মাণের জন্য। তাই বর্তমানে অভয়াদুর্গার পুজো দাঁ পরিবারের সকল বাড়িতেই পালা হিসাবে হয়। প্রতি বছরই সেবায়েতদের নিজের বাড়িতে দেবীর পুজো হয়। তবে বর্তমানে ধর্মদাস দাঁ ও স্বরূপচাঁদ দাঁ বংশের সদস্যরা মহাপূজার আয়োজন করে আসছেন গত কয়েক বছর ধরে।

দাঁ বাড়িতে প্রতিপদের দিন দেবীর বোধন হয় এবং তার পর পুজোর চারটি দিন পরিবারের সকল সদস্য এক সঙ্গে নিষ্ঠা সহকারে পুজো করেন মা অভয়ার। সপ্তমীর দিন গঙ্গায় নিয়ে গিয়ে স্নান করানো হয় নবপত্রিকাকে।

বলা বাহুল্য, এই দাঁ বাড়িতেই প্রথম শুরু হয় অভয়াদুর্গার পুজো। এই বাড়িতে পুজোর আচার হিসাবে ধুনোপোড়ানো (মহাষ্টমীর দিন) এবং কুমারীপুজোও অনুষ্ঠিত হয়। এই বাড়িতে পুজোর সময় কোনো অন্নভোগ হয় না। দেবীকে গোটা ফল, গোটা আনাজপত্র, শুকনো চাল ও নানান রকমের মিষ্টান্ন নিবেদন করা হয়। সন্ধ্যাবেলায় লুচিভোগ, মিষ্টি ইত্যাদি নিবেদন করা হয়। মহাষ্টমীর সন্ধিপূজায় প্রায় ২৫ কিলো চালের নৈবেদ্যভোগ নিবেদন করা হয়।

এই বাড়ির পুজোয় কোনো বলিদানের প্রথা নেই। দশমীর দিন সকালে দেবীর  দর্পণ-বিসর্জন হয়। দাঁ বাড়ির একটি বিশেষ বৈশিষ্ট্য হল এই বাড়িতে দশমীর দিন পুরোহিতমশাই বরণ করেন দেবীকে, বাড়ির মহিলারা এই অনুষ্ঠানে যোগ দেন না এবং তার পর সকলে মিলে উমা-বিদায়ের আয়োজন করেন। এই ভাবেই বহু প্রাচীন ঐতিহ্য মেনেই আজও পুজো করে আসছেন দর্জিপাড়া দাঁ বাড়ির সদস্যরা। তবে এ বছর করোনা ভাইরাসের কারণে ঘটেই পুজো হবে। এ বছর চোরবাগানের দাঁ বাড়িতে মঙ্গলঘটের মাধ্যমে পুজো পাবেন মা অভয়া।

খবরঅনলাইনে আরও পড়ুন

আজও সব প্রথা মেনেই পূজা হয় ৪০০ বছরেরও বেশি প্রাচীন চিত্তেশ্বরী দুর্গার

কলকাতা

Bengal Polls 2021: ভোটের পর তৃণমূলকে সমর্থন করা নিয়ে ইঙ্গিতপূর্ণ মন্তব্য অধীররঞ্জন চৌধুরীর

“সংযুক্ত মোর্চা নবান্ন দখল করবে”, অধীর নিশ্চিত।

Published

on

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের একাংশের ধারণা এ বার পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফল ত্রিশঙ্কু হতে পারে। সে ক্ষেত্রে ভীষণ ভাবে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠতে পারে বাম-কংগ্রেস-আইএসএফের সংযুক্ত মোর্চার ভূমিকা। ভোটের পর তৃণমূলকে সমর্থন করা নিয়ে ইঙ্গিতপূর্ণ মন্তব্য করলেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীররঞ্জন চৌধুরী।

বুধবার একটি সাংবাদিক বৈঠকে বহরমপুরের সাংসদকে প্রশ্ন করা হয়, ভোট পরবর্তী পরিস্থিতিতে কি কংগ্রেস মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সমর্থন করবে? এমন প্রশ্নের সরাসরি যেমন কোনো উত্তর দেননি অধীর, তেমনই আবার রাজনৈতিক সমঝোতার প্রশ্ন পুরোপুরি উড়িয়ে দেননি তিনি।

Loading videos...

অধীর এই প্রসঙ্গেই বলেন, ‘‘কাল্পনিক প্রশ্নের এটা সময় নয়। আমরা সংযুক্ত মোর্চা নবান্ন দখলের লক্ষ্যে এগোচ্ছি। সংযুক্ত মোর্চাকে কারা সমর্থন করবেন সেটা তাঁদের ব্যাপার। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় হেরে গেলে কোথায় যাবেন আমরা জানি না। এমনও হতে পারে সংযুক্ত মোর্চা যখন নবান্ন দখল করতে যাচ্ছে তখন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজেই বাঁচার জন্য সংযুক্ত মোর্চার সঙ্গী হলেন। বা সংযুক্ত মোর্চার কাছে আবেদন জানালেন।’’

এর পরেই কংগ্রেস সভাপতির তাৎপর্যপূর্ণ মন্তব্য, ‘‘পলিটিক্স ইজ দি আর্ট অফ পসিবিলিটিজ (Politics is the art of possibility)।’’

সম্প্রতি রাজ্যের ভোট পরিস্থিতি নিয়ে কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গাঁধী-সহ দেশের সমস্ত বিজেপি বিরোধী রাজনৈতিক দলকে চিঠি লিখে একজোট হয়ে লড়াইয়ে আবেদন জানিয়েছেন তৃণমূল নেত্রী। বাংলার মুখ্যমন্ত্রী এমন আবেদনকে কংগ্রেসের নৈতিক জয় হিসেবেই দেখেছেন অধীর। তাঁর কথায়, ‘‘যে তৃণমূল নেত্রী কথায় কথায় বলতেন ‘কংগ্রেসকে তো আমি মিউজিয়ামে পাঠিয়ে দিয়েছি। কখনও আমি কংগ্রেস করেছি ভাবতে লজ্জা হয়’, সেই দিদি এখন সনিয়া গান্ধীর কাছে চিঠি লিখছেন।’’

অধীরের মতে, ভারতবর্ষের ধর্মনিরপেক্ষ গণতান্ত্রিক রাজনীতি সনিয়া ও কংগ্রেস-কে ঘিরেই আবর্তিত হয়। সেটা মুখ্যমন্ত্রী স্বীকার করছেন বলেই তাঁকে চিঠি লিখতে হচ্ছে। কংগ্রেস তো তাঁকে চিঠি লেখেনি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে চিঠি দিতে হয়েছে।

খবরঅনলাইনে আরও পড়তে পারেন

শিশির অধিকারীকে রাজ্যপাল করার কথা ভাবছে কেন্দ্রীয় সরকার, কোন রাজ্যে

Continue Reading

কলকাতা

Bengal Polls 2021: বাড়ছে করোনা, ভোট বন্ধের দাবিতে কমিশন অফিসের কাছে রাস্তায় শুয়ে প্রতিবাদ

পিপিই কিট পরে রাস্তায় শুয়ে অবিলম্বে ভোট বন্ধের দাবিতে অভিনব প্রতিবাদ!

Published

on

রাস্তায় শুয়ে প্রতিবাদ। ছবি: এবিপি আনন্দ-এর সৌজন্যে

খবর অনলাইন ডেস্ক: সারা দেশে ফের হু হু করে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। শেষ কয়েক দিন ধরে বাড়তে বাড়তে পশ্চিমবঙ্গেও দৈনিক কোভিড-১৯ আক্রান্তের সংখ্যা দু’হাজারের গণ্ডি পার করেছে। মহামারি আবহেই রাজ্যে চলছে বিধানসভা ভোট। এমন পরিস্থিতিতে ভোট বন্ধের আর্জি জানিয়ে বুধবার নির্বাচন কমিশনের অফিসের কাছে রাস্তায় শুয়ে অভিনব প্রতিবাদ জানাল একটি অরাজনৈতিক দল।

কলকাতায় নির্বাচন কমিশনের অফিস থেকে ঢিল ছোড়া দূরত্বে পিপিই কিট পরে রাস্তায় শুয়ে পড়ে প্রতিবাদ জানান প্রতিবাদী দলটি। আট-দশ জন এই প্রতিবাদ কর্মসূচিতে সক্রিয় ভাবে অংশ নেন। তাঁদের দেখে পথচলতি মানুষের ভিড় জমে যায়।

Loading videos...

প্রতিবাদকারীরা বলেন, বিশেষজ্ঞরা বলছেন, আগামী চার সপ্তাহ খুবই সংকটজনক। সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ আগামী ৪ সপ্তাহে ভয়াবহ আকার ধারণ করতে পারে বলে পূর্বাভাসও দিয়েছে কেন্দ্র। ফলে অবিলম্বে এ ভাবে ভোটগ্রহণ বন্ধ হোক। নির্বাচনী সভা, মিটিং-মিছিল বন্ধ হোক। বিকল্প পথের সন্ধান করা হোক। এই দাবিতেই পিপিই কিট পরে রাস্তায় শুয়ে প্রতিবাদ জানানোর পাশাপাশি কমিশনকে চিঠিও দিয়েছেন তাঁরা।

প্রতিবাদীদের হাতে ছিল বিভিন্ন ধরনের স্লোগান লেখা পোস্টার। যেমন একটিতে লেখা-চারিদিকে কোভিডের দ্বিতীয় ঢেউ। নেই সোশ্যাল ডিস্ট্যান্সিং, ভোটের জন্য বিশাল সমাবেশ, যেন ভোটটাই ভ্যাকসিন, ইত্যাদি।

পোস্টার থেকে বোঝা যায়, এই কর্মসূচির উদ্যোক্তা ‘আমরা সাধারণ নন-পলিটিক্যাল, আমরা খেটে খাওয়া নাগরিক’ নামের একটি দল।

প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার তৃতীয় দফার ভোটগ্রহণের দিন রাজ্যে দৈনিক সংক্রমণ পার হয়েছে দু’হাজারের গণ্ডি। ২৪ ঘণ্টায় পশ্চিমবঙ্গে নতুন করে কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন ২,০৫৮ জন। এর ফলে রাজ্যে মোট কোভিডরোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৫ লক্ষ ৯৭ হাজার ৬৩৪ জন।

আরও পড়তে পারেন: Coronavirus Second Wave: “আগামী চার সপ্তাহ অত্যন্ত উদ্বেগের”, সাফ কথা কেন্দ্রের

Continue Reading

কলকাতা

Weather Update: জোর বৃষ্টি সঙ্গে নিয়ে কলকাতায় মরশুমের প্রথম কালবৈশাখী

সোমবার থেকে বাড়বে গরম।

Published

on

রবিবার সন্ধ্যায় কলকাতায় স্বস্তির বৃষ্টি। নিজস্ব চিত্র।

খবরঅনলাইন ডেস্ক: খবরঅনলাইন জানিয়েছিল রবিবার কলকাতায় বৃষ্টি হতে পারে। কলকাতাবাসীকে স্বস্তি দিয়ে অবশেষে মরশুমের প্রথম কালবৈশাখী হানা দিল কলকাতায়। সঙ্গে নামল জোর বৃষ্টি। তীব্র গরমের পর অবশেষে শান্তি পেলেন কলকাতার সাধারণ মানুষ।

গত ৭ ফেব্রুয়ারি শেষ বার কিছু বৃষ্টি পেয়েছিল কলকাতা। কিন্তু শেষ জোর বৃষ্টি পেয়েছিল নভেম্বরের শেষে। অর্থাৎ, চার মাস পর জোর বৃষ্টি নামল শহরে।

Loading videos...

সাধারণত এপ্রিলের এই সময়ের মধ্যে কলকাতা তথা দক্ষিণবঙ্গের ৩-৪টি কালবৈশাখী হওয়ার কথা। কিন্তু এ বার বায়ুমণ্ডলের পরিস্থিতি এতটাই অদ্ভুত ছিল যে বৃষ্টির অনুকূল পরিস্থিতি তৈরিই হয়নি। উলটে মধ্যে ভারত থেকে শুষ্ক বাতাস ঢুকে গিয়ে গরমের দাপট ক্রমশ বেড়ে গিয়েছিল শহরে। অন্য দিকে বৃষ্টির অভাবে শহরে মাটির তলার জলস্তরও কিছুটা হলেও কমে যাচ্ছিল।

এই পরিস্থিতি থেকে বাঁচার জন্য দরকার ছিল জোর বৃষ্টির। সেটা আজ রবিবারই সন্ধ্যায় এল। এ দিন দুপুরের থেকে মুর্শিদাবাদে বজ্রগর্ভ মেঘের সৃষ্টি হয়। ধীরে ধীরে সেটি বীরভূম, নদিয়া, পূর্ব বর্ধমান, হুগলি, হাওড়া, উত্তর ২৪ পরগণা হয়ে কলকাতার দিকে নেমে আসে। সন্ধ্যা ৭টার কিছু পরে কলকাতায় ঝড় শুরু হয়। তার পরেই নামে জোর বৃষ্টি। বিক্ষিপ্ত শিলাবৃষ্টিও হয় শহরে।

উত্তর কলকাতার থেকে দক্ষিণেই বৃষ্টির দাপট এ দিন বেশি ছিল। গড়ে ৭ মিলিমিটার বৃষ্টি রেকর্ড করা হয়েছে দক্ষিণ কলকাতার বিভিন্ন জায়গায়। এর জেরে এক ধাক্কায় তাপমাত্রাও অনেকটাই কমে গিয়েছে। রাত ৮টা নাগাদ পারদ রেকর্ড করা হয়েছে ২০.৬ ডিগ্রি।

তবে স্বস্তি বেশিক্ষণের জন্য নয়। সোমবার ভোরে শীত শীত ভাব থাকবে। তবে তার পরেই বাড়তে থাকবে পারদ। ফের ফিরবে গরম।

Continue Reading
Advertisement
Advertisement
গান-বাজনা16 mins ago

চলে গেলেন রবীন্দ্রসংগীতশিল্পী মিতা হক

Rahul Gandhi at Maldah rally
রাজ্য43 mins ago

Bengal Polls 2021: পঞ্চম দফার ভোটের আগে রাজ্যে আসছেন রাহুল গান্ধী

রাজ্য1 hour ago

নজরে বিধানসভা/কৃষ্ণনগর উত্তর: দেখে নিন ইতিহাস এবং সাম্প্রতিক তথ্য

পূর্ব বর্ধমান2 hours ago

Bengal Polls 2021: শীতলকুচির ঘটনা নিয়ে বিতর্কে ঢিল ছুড়লেন মিঠুন চক্রবর্তী

দেশ3 hours ago

Covid-19 Vaccine: অক্টোবরের মধ্যে আরও ৫টি কোভিড ভ্যাকসিন পাচ্ছে ভারত!

রাজ্য3 hours ago

Bengal Polls 2021: ‘শীতলকুচি’ নিয়ে দিলীপ ঘোষের সঙ্গে এক মত নন অমিত শাহ!

রাজ্য4 hours ago

বাড়াবাড়ি করলে হবে আরও শীতলকুচি, হুমকি দিয়ে বিতর্কে জড়ালেন দিলীপ ঘোষ

রাজ্য4 hours ago

Bengal Polls 2021: শীতলকুচিতে ‘গণহত্যা’ হয়েছে, দাবি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের

রাজ্য1 day ago

Bengal Polls Live: সাড়ে ৫টা পর্যন্ত ভোট পড়ল ৭৫ শতাংশের বেশি

ক্রিকেট2 days ago

IPL 2021: বলে ভেলকি হর্শল পটেলের, ব্যাটে জ্বলে উঠলেন ডেভিলিয়ার্স, বেঙ্গালুরুর কষ্টার্জিত জয়

বাংলাদেশ3 days ago

Bangladesh Corona Update: কোভিড ১৯-এ মৃত্যুতে রেকর্ড, তবে দৈনিক আক্রান্ত কিছু কম

রাজ্য3 days ago

Bengal Corona Update: সংক্রমণের হারে সামান্য বৃদ্ধি, কিছু জেলার পরিস্থিতিও উদ্বেগজনক

দেশ3 days ago

অবশেষে মুক্তি পেলেন ছত্তীসগঢ়ে মাওবাদীদের হাতে বন্দি কোবরা কমান্ডো রাকেশ্বর সিংহ মানহাস

দেশ2 days ago

Coronavirus Second Wave: সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ ভাঙতে তিন দাওয়াই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর

রাজ্য1 day ago

Bengal Polls 2021: বাহিনীর গুলিতে হত ৪, শীতলকুচি যাচ্ছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

দেশ1 day ago

Corona Update: রেকর্ড তৈরি করে দেড় লক্ষের দিকে এগিয়ে গেল দৈনিক সংক্রমণ, তবুও কম মৃত্যুহারে কিছুটা স্বস্তি

ভোটকাহন

কেনাকাটা

কেনাকাটা3 weeks ago

বাজেট কম? তা হলে ৮ হাজার টাকার নীচে এই ৫টি স্মার্টফোন দেখতে পারেন

আট হাজার টাকার মধ্যেই দেখে নিতে পারেন দুর্দান্ত কিছু ফিচারের স্মার্টফোনগুলি।

কেনাকাটা2 months ago

সরস্বতী পুজোর পোশাক, ছোটোদের জন্য কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সরস্বতী পুজোয় প্রায় সব ছোটো ছেলেমেয়েই হলুদ লাল ও অন্যান্য রঙের শাড়ি, পাঞ্জাবিতে সেজে ওঠে। তাই ছোটোদের জন্য...

কেনাকাটা2 months ago

সরস্বতী পুজো স্পেশাল হলুদ শাড়ির নতুন কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সামনেই সরস্বতী পুজো। এই দিন বয়স নির্বিশেষে সবাই হলুদ রঙের পোশাকের প্রতি বেশি আকর্ষিত হয়। তাই হলুদ রঙের...

কেনাকাটা3 months ago

বাসন্তী রঙের পোশাক খুঁজছেন?

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সামনেই আসছে সরস্বতী পুজো। সেই দিন হলুদ বা বাসন্তী রঙের পোশাক পরার একটা চল রয়েছে অনেকের মধ্যেই। ওই...

কেনাকাটা3 months ago

ঘরদোরের মেকওভার করতে চান? এগুলি খুবই উপযুক্ত

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ঘরদোর সব একঘেয়ে লাগছে? মেকওভার করুন সাধ্যের মধ্যে। নাগালের মধ্যে থাকা কয়েকটি আইটেম রইল অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদন লেখার...

কেনাকাটা3 months ago

সিলিকন প্রোডাক্ট রোজের ব্যবহারের জন্য খুবই সুবিধেজনক

খবরঅনলাইন ডেস্ক: নিত্যপ্রয়োজনীয় বিভিন্ন সামগ্রী এখন সিলিকনের। এগুলির ব্যবহার যেমন সুবিধের তেমনই পরিষ্কার করাও সহজ। তেমনই কয়েকটি কাজের সামগ্রীর খোঁজ...

কেনাকাটা3 months ago

আরও কয়েকটি ব্র্যান্ডেড মেকআপ সামগ্রী ৯৯ টাকার মধ্যে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: আজ রইল আরও কয়েকটি ব্র্যান্ডেড মেকআপ সামগ্রী ৯৯ টাকার মধ্যে অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদন লেখার সময় যে দাম ছিল...

কেনাকাটা3 months ago

রান্নাঘরের এই সামগ্রীগুলি কি আপনার সংগ্রহে আছে?

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রান্নাঘরে বাসনপত্রের এমন অনেক সুবিধেজনক কালেকশন আছে যেগুলি থাকলে কাজ অনেক সহজ হয়ে যেতে পারে। এমনকি দেখতেও সুন্দর।...

কেনাকাটা3 months ago

৫০% পর্যন্ত ছাড় রয়েছে এই প্যান্ট্রি আইটেমগুলিতে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: দৈনন্দিন জীবনের নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসগুলির মধ্যে বেশ কিছু এখন পাওয়া যাচ্ছে প্রায় ৫০% বা তার বেশি ছাড়ে। তার মধ্যে...

কেনাকাটা3 months ago

ঘরের জন্য কয়েকটি খুবই প্রয়োজনীয় সামগ্রী

খবরঅনলাইন ডেস্ক: নিত্যদিনের প্রয়োজনীয় ও সুবিধাজনক বেশ কয়েকটি সামগ্রীর খোঁজ রইল অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদনটি লেখার সময় যে দাম ছিল তা-ই...

নজরে