fire in bagri market
আগুন নেভানোর চেষ্টা। ছবি রাজীব বসু।

ওয়েবডেস্ক: ৪০-৪১ ঘণ্টা কেটে গেল। বাগরি মার্কেটের আগুন এখনও নিয়ন্ত্রণে এল না। ইতিমধ্যে বাগরি মার্কেটের আগুন নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, সেখানে ব্যবসার নামে গুণ্ডামি চলছে।

বাগরি মার্কেটের আগুন নিয়ন্ত্রণে আসা তো দূরের কথা, এখন ছ’ তলা এই বাজারের নতুন নতুন জায়গায় আগুন দেখা যাচ্ছে। সোমবার সন্ধেতেও তিন-চার তলার কোনো কোনো জায়গায় দাউ দাউ করে আগুন জ্বলতে দেখা যায়। যেখানে আগুন জ্বলছে সেখানে দমকলের কর্মীরা ঢুকতে পারছেন না। বেশ কিছু জায়গায় ধোঁয়া দেখা যাচ্ছে। উলটো দিকের মেহতা বিল্ডিং-এর ছাদ থেকে জল দিয়ে চলেছেন দমকল কর্মীরা।

trying to recover goods
মাল উদ্ধারের চেষ্টা। ছবি রাজীব বসু।

চার-পাঁচ-ছ’ তলার বিভিন্ন জায়গায় এমন ভাবে গ্রিল দেওয়া আছে যে সেগুলো না ভেঙে সেখানে যাওয়া যাবে না। রবিবার দমকল কর্মীরা ওই গ্রিল ভাঙতে পারেননি। সোমবার ভেঙে ঢোকার চেষ্টা করেছে দমকল।

বাজারের কোনো কোনো অংশ এমন ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে যে কোনো সময়ে সেই অংশগুলো ভেঙে পড়তে পাড়ে। তাই দমকলের সামনে এখন দু’টি লড়াই – এক, আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা এবং দুই, ওই অংশগুলো ভেঙে পড়া আটকানো।

আরও খবর নিয়ন্ত্রণে আসার কোনো লক্ষণই নেই, নতুন করে ছড়াচ্ছে বাগরি বাজারের আগুন

ইতিমধ্যে আগুন নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ব্যবসার নামে গুণ্ডামি চলেছে বাগরি মার্কেটে। মুখ্যমন্ত্রী এখন এই মুহূর্তে জার্মানির ফ্রাঙ্কফুর্টে রয়েছেন। আগুন নিয়ে প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে তিনি বলেন, বাগরি মার্কেটে ব্যবসার নামে গুন্ডামি চলছে। বাগরি মার্কেটের শৌচাগার পর্যন্ত বিক্রি করে দেওয়া হয়েছে। ১০০ বছর ধরে এই অবস্থা চলছে কেউ দেখেনি। মার্কেটে দাহ্য বস্তু রাখা ছিল। এত ঘিঞ্জি যে দমকল পর্যন্ত ঢুকতে পারেনি।

বাগরির মালিককে গ্রেফতারের নির্দেশ।

বাগরি মার্কেটের মালিককে গ্রেফতারের নির্দেশ দিলেন রাজ্যের পুর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। অগ্নিদগ্ধ বাজারের অবস্থা খতিয়ে দেখতে সোমবার দুপুরে মন্ত্রী সেখানে যান। মন্ত্রীকে সামনে পেয়ে ব্যবসায়ীরা তাঁদের ক্ষোভ উগরে দেন। অনেকেই কান্নায় ভেঙে পড়েন। তাঁরা বাগরি মার্কেটের মালিকের বিরুদ্ধে তাঁদের নানা অভাব অভিযোগ জানান এবং দাবি করেন অবিলম্বে বাজারের মালিককে গ্রেফতার করতে হবে।

মন্ত্রী জানিয়েছেন, এফআইআর দায়ের হলেই ব্যবস্থা নেওয়া হবে। বাগরি মার্কেটের মালিককে গ্রেফতার করার জন্য ওসিকে নির্দেশ দেন তিনি।
মিষ্টির দোকানের কারখানায় আগুন। 
fire in sweet shop's factory
মিষ্টির দোকানের কারখানায় আগুন। নিজস্ব চিত্র।

বাগরি মার্কেটের আগুন-আতঙ্কের মধ্যেই সোমবার আগুন লাগে ভবানীপুরের বিখ্যাত মিষ্টির দোকান বলরাম মল্লিকের কারখানায়। দমকলের ৩টি ইঞ্জিন ঘটনাস্থলে ছুটে আসে। বেশ কিছুক্ষণের চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন