Connect with us

কলকাতা

বইয়ের পাতা উল্টালেই ছবিরা জীবন্ত, নিজেকে খুঁজে নিন ভার্চুয়াল দুনিয়ায় বইমেলায় ফ্রান্সের প্যাভিলিয়নে

anirban chaudhury

অনির্বাণ চৌধুরী

১৯৯৭-তে তো নয়ই। এমনকি ২০০৫-এও নয়। ৭০ বছরের মৈত্রী নিয়ে কতটা বদলে গিয়েছে দুই দেশ, তার আসল চেহারাটা দেখা গেল এবারেই। এবং স্বীকার না করলেই নয়- সেই বদলে যাওয়া চেহারা নিয়ে পুরোদস্তুর চমকে দেবে ৪২তম আন্তর্জাতিক কলকাতা বইমেলার থিম কান্ট্রি ফ্রান্সের প্যাভিলিয়ন।

চমকের সূত্রটা আসলে লুকিয়ে আছে প্রযুক্তির দুনিয়ায়। ১৯৯৭ আর ২০০৫, যে দু’বারেই শহরের এই বইয়ের হাটে থিম কান্ট্রি হিসাবে আত্মপ্রকাশ করেছিল ফ্রান্স, তখন প্রযুক্তি এমন করে বিকশিত হয়ে ওঠেনি। ফলে মনোরম অন্দরসাজ আর মননশীল তত্ত্বে-তথ্যেই কলকাতার বুকে বাজিমাত করেছিল ফরাসি দেশ।

কিন্তু প্রযুক্তির কল্যাণে বর্তমানে অনেকটাই বদলে গিয়েছে দুনিয়াদারি। শুধুই সংস্কৃতিগত ঐতিহ্য নয়, ভারত আর ফ্রান্স দুই দেশ এখন প্রযুক্তিসূত্রেও পরস্পরের বড়ো কাছের। তবে সেই প্রযুক্তির উৎকর্ষ এবং রূপকল্পের সোনার কাঠির ছোঁয়া লাগল বইমেলায় ফ্রান্সের প্যাভিলিয়নেই।

পরিণামে প্রথম দেখা থেকেই মনে ঝড় তুলতে শুরু করবে ফ্রান্সের প্যাভিলিয়ন। দেখা যাবে, ভাঙাচোরা অক্ষরেরা একে অপরের গা বেয়ে উঠছে নামছে, ক্রমশ এক বিন্দুতে এসে মিলে গিয়ে তৈরি করছে শব্দের আক্ষরিক কায়া। সাহিত্যের মূল কথাও তো তা-ই, মনে অবিন্যস্ত অক্ষরের পাতায় বিন্যাসের রূপ নেওয়া।

এ ভাবে শুরু থেকেই ফ্রান্সের প্যাভিলিয়ন বদলে যাওয়া সময় আর প্রযুক্তিকে দুই হাতে ধরে রেখে বইমেলার মেজাজ আর সাহিত্যের মূল্যবোধটিকে মনে গেঁথে দেয়। আর ভিতরে পা রাখলে?

তখন বিশুদ্ধ বিস্ময় ছাড়া আর কিছুই অনুভবে আসে না। কেন না, প্রথম কক্ষটি থেকেই প্রযুক্তি তার মায়াজালে বেঁধে ফেলতে থাকে অস্তিত্বকে।

এই জায়গায় এসে না বললেই নয়- এবারে ফ্রান্সের প্যাভিলিয়নটি বিন্যস্ত হয়েছে তিনটি কক্ষে। প্রথম কক্ষে রয়েছে সাহিত্য এবং সংস্কৃতির নির্যাস, দ্বিতীয়টিতে কারিগরির দুনিয়া আর তৃতীয়টিতে রস ও রসনার যুগলবন্দি। তিনটিই অননুভূত অভিজ্ঞতা নিয়ে আমন্ত্রণ জানাচ্ছে পাঠককে, দর্শককে।

প্যাভিলিয়নের প্রথম কক্ষে পা রেখেই তাই চমকে উঠতে হয়। চোখে পড়ে, শূন্য থেকে পায়ের কাছে এসে লুটোপুটি খাচ্ছে, আলপনার মতো চক্রাকারে ঘুরছে লেখারা। ফরাসি এবং ভারতীয়- অনেকগুলি লিপিতে সবাইকে স্বাগত জানাচ্ছে তারা। বুঝে নিতে অসুবিধা হয় না- ভারতীয় অভ্যর্থনার মেজাজকে অক্ষুণ্ণ রেখেই ফরাসি সংস্কৃতি নিজেকে মিশিয়ে দিয়েছে তার খাতে।

সেই খাতে অতীতের উদয় শঙ্করের ফরাসি নৃত্যসঙ্গিনী সিমকি যেমন রয়েছেন, তেমনই বাদ যায়নি হালফিলের বলিউডের ‘বেফিকরে’-ও। প্রথম এই কক্ষটিতে বিশেষ করে চোখ টানবে টেবিলে রাখা একটি বই, যার পাতা উল্টালেই সেন্সর প্রযুক্তিতে ছবিরা জীবন্ত হয়ে উঠবে দেওয়ালে। প্রথম কক্ষ লাগোয়া আরও একটি কক্ষে পা রাখলেই পর্দায় দেখা যাবে নিজেকে, দুই পাশ থেকে তখন সঙ্গ দেবে ভার্চুয়াল দুনিয়া।

দ্বিতীয় কক্ষে রয়েছে ফরাসি দেশের নানা কারিগরি দিক এবং পণ্ডিচেরি-চন্দননগর-চণ্ডীগড়ের সূত্রে দুই দেশের নানা পরিকাঠামোর বিন্যাস। এই কক্ষেও রয়েছে এমন একটি স্থান, যেখানে পা রাখলে ফের পর্দায় নিজেকে দেখার পালা, মাথার উপরে, দুই পাশে বিমানের উড়ে যাওয়ার অতুলনীয় অভিজ্ঞতা সঞ্চয় করে নেওয়া। যা আরও জীবন্ত করে তুলবে শব্দ প্রক্ষেপণের কুশলতা।

তিন নম্বর কক্ষটির দেওয়ালে মজার নানা খেলার মধ্যে দিয়ে চিনে নেওয়া যাবে, শিখে নেওয়া যাবে ফরাসি হেঁশেলের খুঁটিনাটি। যার নির্মাণে ভারতীয় টিফিন কৌটোর ব্যবহার চোখকে আরাম দেবে। কিন্তু পর মুহূর্তেই বিস্ময়ের অভিঘাতে সচকিত হওয়ার পালা। কেন না চূড়ান্ত উপহার হিসাবে তিন দিক ঘেরা পর্দায় চলতে থাকবে ভারত আর ফ্রান্সের মৈত্রীর স্বরূপটি বুঝে নেওয়ার ছায়াছবি। রাজস্থানি লোকসঙ্গীতের সুরে, ফরাসি নির্মাণের ছবিতে যা আপ্লুত করার পক্ষে যথেষ্ট।

আন্তর্জাতিক তকমা পেলেও এই শহরের বইমেলা এমন বিস্ময় আগে কখনই অনুভব করেনি!

কলকাতা

করোনার পাশাপাশি কলকাতা মেডিক্যাল কলেজে শুরু হচ্ছে অন্যান্য রোগের চিকিৎসা

তবে দীর্ঘ টানাপোড়েনের পর ফের অন্যান্য রোগীর চিকিৎসাও এ বার শুরু হচ্ছে।

কলকাতা: করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগীর চিকিৎসায় ‘কোভিড হাসপাতাল’ (Covid Hospital) হিসাবে ঘোষণা করা হয়েছিল কলকাতা মেডিক্যাল কলেজকে (Kolkata Medical Collage)। তবে দীর্ঘ টানাপোড়েনের পর ফের অন্যান্য রোগীর চিকিৎসাও এ বার শুরু হচ্ছে।

শুধুমাত্র করোনার (Coronavirus) চিকিৎসা হওয়ায় তাঁদের প্রশিক্ষণ অসম্পূর্ণ থেকে যেতে পারে বলে অভিযোগ তুলে আন্দোলনে নেমেছিলেন হাসপাতালের ইন্টার্ন এবং পিজিটিরা। নন-কোভিড রোগীদের পরিষেবা শুরুর দাবিতে আন্দোলনকে সমর্থন জানিয়ে শিক্ষক-চিকিৎসকদের একাংশ প্রশ্ন তুলেছিলেন, পঠনপাঠনকে ক্ষতিগ্রস্ত করে কেন পুরো হাসপাতালে শুধুমাত্র কোভিডের চিকিৎসা হবে?

গত বুধবার হাসপাতালের অধ্যাপক এবং সিনিয়র ডাক্তারদের সঙ্গে বৈঠক করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, “বিশেষজ্ঞ কমিটি যে রিপোর্ট দিয়েছে, তা মেনে চলবেন কি না দেখুন। সিনিয়রেরা জুনিয়রদের দিয়ে কাজ করালেই সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে”। একই সঙ্গে তিনি জুনিয়র চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা বলে সমস্যা মিটিয়ে নেওয়ার নির্দেশ দেন।

অন্য দিকে মেডিক্যাল কলেজে রয়েছে একাধিক সুপার স্পেশালিটি বিভাগ। ‘কোভিড হাসপাতালে’র তকমা মিলে যাওয়ার পর অন্য রোগীরা দূর থেকে এসে ভোগান্তির শিকার হচ্ছিলেন। সব মিলিয়ে পরিস্থিতি বিবেচনা করে দ্রুত সমস্যা সমাধানের সিদ্ধান্ত নিলেন কর্তৃপক্ষ।

জানা গিয়েছে, শীঘ্রই আউটডোর বিভাগ চালু হয়ে যাবে। পাশাপাশি অন্যান্য সমস্ত বিভাগেও রোগী ভরতি করা হবে।

এ দিন অধ্যক্ষের জারি নোটিফিকেশনে আন্দোলনকারী জুনিয়র চিকিৎসকদের দাবিকে মান্যতা দিয়েই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় বলে জানা গিয়েছে। স্বাভাবিক ভাবেই এই ঘোষণাকে নিজেদের জয় বলে দাবি করেছেন আন্দোলনকারীরা।

Continue Reading

কলকাতা

শুক্রবার থেকে বন্ধ কলকাতা হাইকোর্ট

হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি বিজ্ঞপ্তি জারি করে আগামী সোমবার পর্যন্ত আদালত বন্ধ থাকার কথা ঘোষণা করেন।

Kolkata High Court

কলকাতা: আগামী শুক্রবার থেকে বন্ধ থাকবে কলকাতা হাইকোর্ট (Kolkata High court)। বৃহস্পতিবার কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি বিজ্ঞপ্তি জারি করে আগামী সোমবার পর্যন্ত উচ্চআদালত বন্ধ থাকার কথা ঘোষণা করেন।

এ দিন বিকেল ৫টা থেকে কলকাতা-সহ রাজ্যের অন্যান্য করোনাভাইরাস (Coronavirus) কনটেনমেন্ট জোনগুলিকে লকডাউনের কড়াকড়ি নিয়ম চালু হচ্ছে। এর প্রেক্ষিতে আগামী শুক্রবার থেকে কলকাতা হাইকোর্টে জীবাণুমুক্ত করার কাজ শুরু হবে। হাইকোর্টের তিনটি বিল্ডিংকেই জীবাণুমুক্ত করা হবে। ফলে আগামী চার দিন সমস্ত রকমের কাজ বন্ধ থাকবে।

দেশব্যাপী লকডাউন শুরু হওয়ার পর বন্ধ হয়ে কলকাতা হাইকোর্ট। অনলাইনে নির্দিষ্ট কয়েকটি মামলার ভার্চুয়াল শুনানি চালু ছিল। তবে সশরীরে শুনানি ফের শুরু হয় গত ১১ জুন থেকে। কিন্তু আইনজীবীদের ভিড়ের ঠেলায় শারীরিক দূরত্ব (Social distancing) শিকেয় ওঠে বলে অভিযোগ শোনা যায়।

এ দিন হাইকোর্টের রেজিস্টার জেনারেল একটি বিজ্ঞপ্তিতে জানান, “মহানগরের উল্লেখযোগ্য অংশটিকে কনটেনমেন্ট জোন হিসাবে ঘোষণা করে নতুন লকডাউন ঘোষণার কারণে হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি ১০-১৩ জুলাই কলকাতা হাইকোর্টের বিচার বিভাগীয় ও প্রশাসনিক কাজ স্থগিত করেছেন”।

Continue Reading

কলকাতা

অনলাইনে নয়, পড়ুয়াদের জন্য এই বিকল্প পথই বেছে নিয়েছে গড়িয়া স্টেশনের একটি স্কুল

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ২৭ মার্চ থেকে স্কুল বন্ধ। কবে খুলবে কেউ জানে না। অনেকেই মনে করছেন সেপ্টেম্বরের আগে স্কুল খোলার সম্ভাবনা নেই। আবার তখনও যে করোনার দাপট কমবে, তারও কোনো নিশ্চয়তা নেই। এই পরিস্থিতিতে অনলাইন পড়াশোনা বিকল্প হয়ে উঠেছে।

কিন্তু অনলাইন পড়াশোনার সুবিধা সব জায়গায় তো হয় না। এই যেমন গড়িয়া স্টেশনের কাছে গড়াগাছায় নিউ গ্রিন বাড স্কুল। এই স্কুলের পড়ুয়াদের বেশির ভাগই নিম্নবিত্ত বা নিম্নমধ্যবিত্ত শ্রেণির অন্তর্গত। বেশির ভাগ অভিভাবকদের কাছে স্মার্টফোনের সুবিধা নেই। আবার থাকলেও নেটওয়ার্কের সমস্যা রয়েছে, ঘূর্ণিঝড় উম্পুনের পর যেটা আরও বেশি করে মাথাচাড়া দিচ্ছে।

এই পরিস্থিতিতে অভিনব একটা সিদ্ধান্ত নিয়েছে স্কুল কর্তৃপক্ষ। অনলাইনে পড়ানোর বদলে তাঁরা অভিভাবকদের হাতে তুলে দিচ্ছেন পাঠক্রমে অন্তর্ভুক্ত বিভিন্ন বিষয়ে বাছাই করা প্রশ্ন ও তার উত্তর। প্রয়োজনে স্কুলে বসে বিভিন্ন বিষয় বুঝিয়ে দিচ্ছেন অভিভাবকদের। শুধু তা-ই নয়, অভিভাবকদের কাছ থেকে তাঁদের ফোন নম্বর নিয়ে স্কুলের সময়ের আগে বা পরে তাঁদের সঙ্গে যোগাযোগ করছেন।

শিক্ষিকারা ব্যক্তিগত ভাবে যোগাযোগ করছেন পড়ুয়াদের সঙ্গে। যাদের হোয়াটস অ্যাপ আছে, তাদের কাছে অঙ্কের সমাধান বা অন্য বিষয়ে প্রশ্নের উত্তর ছবি তুলে হোয়াটস অ্যাপে পাঠিয়ে দিচ্ছেন। এ ভাবেই অনলাইন পদ্ধতির বিকল্প হিসাবে ছাত্রছাত্রীদের পড়াশোনায় সাহায্য করে যাচ্ছে নিউ গ্রিন বাড স্কুল।

Continue Reading
Advertisement
ক্রিকেট2 hours ago

করোনাভাইরাস অতিমারির জের, ২০২১-এর জুন পর্যন্ত এশিয়া কাপ স্থগিত

কেনাকাটা5 hours ago

ঘরের একঘেয়েমি আর ভালো লাগছে না? ঘরে বসেই ঘরের দেওয়ালকে বানান অন্য রকম

দঃ ২৪ পরগনা5 hours ago

‘গরিবের প্রাপ্য টাকা হজম করে দিচ্ছেন তৃণমূল নেতৃত্ব’, অভিযোগ শমীক লাহিড়ির

বিনোদন6 hours ago

শারীরিক দূরত্বের সঙ্গেই কেক কেটে নিজের জন্মদিন পালন করলেন সঙ্গীতা বিজলানি

ক্রিকেট6 hours ago

ক্যারিবিয়ান পেস-দাপটে উড়ে গেল ইংল্যান্ড ব্যাটিং

রাজ্য6 hours ago

কলকাতায় কমলেও এই প্রথম রাজ্যে নতুন করে আক্রান্ত হাজারের ওপর

শিক্ষা ও কেরিয়ার7 hours ago

শুক্রবার আইসিএসই, আইএসসি-র ফল

দেশ7 hours ago

করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়লেও ভারতে এখনও গোষ্ঠী সংক্রমণ নেই: স্বাস্থ্যমন্ত্রক

দেশ17 hours ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ২৪৮৭৯, সুস্থ ১৯৫৪৭

কলকাতা1 day ago

কলকাতায় লকডাউনের আওতায় পড়া এলাকাগুলির পূর্ণাঙ্গ তালিকা প্রকাশিত

দেশ2 days ago

দ্রুত গতিতে বাড়ছে সুস্থতা, ভারতে এক সপ্তাহেই করোনামুক্ত লক্ষাধিক

রাজ্য3 days ago

পশ্চিমবঙ্গের বেশ কিছু জায়গায় ফের কড়া লকডাউনের জল্পনা

বিদেশ2 days ago

অনলাইনে ক্লাস করা ভিনদেশি পড়ুয়াদের আমেরিকা ছাড়তে হবে, নির্দেশ ডোনাল্ড ট্রাম্প সরকারের

রাজ্য2 days ago

বৃহস্পতিবার বিকেল পাঁচটা থেকে রাজ্যের কনটেনমেন্ট জোনগুলিতে কড়া লকডাউন

ক্রিকেট1 day ago

১১৬ দিন পর শুরু আন্তর্জাতিক ক্রিকেট, হাঁটু গেড়ে বসে জর্জ ফ্লয়েডকে স্মরণ ক্রিকেটারদের

কেনাকাটা2 days ago

বাচ্চার জন্য মাস্ক খুঁজছেন? এগুলোর মধ্যে একটা আপনার পছন্দ হবেই

কেনাকাটা

কেনাকাটা5 hours ago

ঘরের একঘেয়েমি আর ভালো লাগছে না? ঘরে বসেই ঘরের দেওয়ালকে বানান অন্য রকম

খবরঅনলাইন ডেস্ক : একে লকডাউন তার ওপর ঘরে থাকার একঘেয়েমি। মনটাকে বিষাদে ভরিয়ে দিচ্ছে। ঘরের রদবদল করুন। জিনিসপত্র এ-দিক থেকে...

কেনাকাটা2 days ago

বাচ্চার জন্য মাস্ক খুঁজছেন? এগুলোর মধ্যে একটা আপনার পছন্দ হবেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক : নিউ নর্মালে মাস্ক পরাটাই দস্তুর। তা সে ছোটো হোক বা বড়ো। বিরক্ত লাগলেও বড়োরা নিজেরাই নিজেদেরকে বোঝায়।...

কেনাকাটা3 days ago

রান্নাঘরের টুকিটাকি প্রয়োজনে এই ১০টি সামগ্রী খুবই কাজের

খবরঅনলাইন ডেস্ক : লকডাউনের মধ্যে আনলক হলেও খুব দরকার ছাড়া বাইরে না বেরোনোই ভালো। আর বাইরে বেরোলেও নিউ নর্মালের সব...

কেনাকাটা4 days ago

হ্যান্ড স্যানিটাইজারে ৩১ শতাংশ পর্যন্ত ছাড় দিচ্ছে অ্যামাজন

অনলাইনে খুচরো বিক্রেতা অ্যামাজন ক্রেতার চাহিদার কথা মাথায় রেখে ঢেলে সাজিয়েছে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের সম্ভার।

নজরে