কংগ্রেস নেতা সন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায় গ্রেফতারি মামলায় হাইকোর্টের নির্দেশ

0
kolkata High Court
প্রতীকী ছবি

কলকাতা: কংগ্রেস নেতা সন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায়ের গ্রেফতারি মামলায় নয়া মোড়। সোশ্যাল মিডিয়ায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়-সহ তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্বের বিরুদ্ধে অপপ্রচারের অভিযোগে প্রদেশ কংগ্রেস নেতা সন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায়কে গ্রেফতার করে পুলিশ। সেই মামলার শুনানিতে মঙ্গলবার কলকাতা হাইকোর্ট জানিয়ে দেয়, পরবর্তী নির্দেশ জারি না হওয়া পর্যন্ত পুলিশ তাঁর বিরুদ্ধে কোনো পদক্ষেপ করতে পারবে না।

গত অক্টোবর মাসে সোশাল মিডিয়ায় সরকারের ভাবমূর্তি নষ্টের চেষ্টা ও অশালীন মন্তব্যের অভিযোগে আগরপাড়ার বাড়ি থেকে গ্রেফতার করা হয় পানিহাটি পুরসভার প্রাক্তন কাউন্সিলর ও কংগ্রেস নেতা সন্ময়কে। তাঁর গ্রেফতারি নিয়ে উত্তাল হয়ে ওঠে রাজ্য-রাজনীতি। বিরোধী দল সিপিএম-কংগ্রেস, এমনকী বিজেপি নেতৃত্বও তাঁর পাশে দাঁড়ানোর কথা ঘোষণা করেন।

মামলা গড়ায় হাইকোর্টে। এ দিন বিচারপতি সব্যসাচী ভট্টাচার্য নির্দেশ দেন এই মামলায় পরবর্তী নির্দেশ জারি না হওয়া পর্যন্ত পুলিশ কোনো পদক্ষেপ নিতে পারবে না সন্ময়ের বিরুদ্ধে। পাশাপাশি সন্ময়কে গ্রেফতারের সময় খড়দহ থানার সিসিটিভি ফুটেজ সংরক্ষণের নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি।

Sanmoy Bandyopadhyay
ছবি: সোশ্যাল মিডিয়া থেকে

উল্লেখ্য, মুখ্যমন্ত্রী ও শিক্ষামন্ত্রী সম্পর্কে সোশ্যাল মিডিয়ায় মানহানিকর মন্তব্য করার অভিযোগে গ্রেফতার করা হয় সন্ময়কে। গ্রেফতারের পর তাঁর উপর মানসিক শারীরিক হেনস্থার অভিযোগও উঠেছিল। জামিন পাওয়ার পর তিনি নিজেও অভিযোগ জানিয়েছিলেন, থানায় নিয়ে গিয়ে তাঁকে মারধর করা হয়। এই ঘটনার জেরে খড়দহ থানার আইসি অনিমেষ সিংহ রায়কে অপসারণও করা হয় বলে জানা যায়। তাঁর জায়গায় খড়দহ থানায় নিয়ে আসা হয় ব্যারাকপুরের আইসি সুজিত ভট্টাচার্যকে।

[ আরও পড়ুন: অযোধ্যা মামলা থেকে সরানো হল মুসলিম দলগুলির আইনজীবী রাজীব ধাওয়ানকে ]

হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়ে সন্ময় সেই দাবিতে অনড় রয়েছেন। সম্ভবত সেই কারণেই থানার সিসিটিভি ফুটেজ সংরক্ষণের নির্দেশ দিল উচ্চ আদালত।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.