Bagri Market Fire
বাগরি মার্কেট অগ্নিকাণ্ডের কোলাজ ছবি

কলকাতা: বাগড়ি মার্কেটের ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড নিয়ে রাজনৈতিক চাপান-উতোর যথারীতি অব্যাহত। কিন্তু উৎসবের মরশুমে আগ্রাসী আগুনে কয়েক কোটি টাকার মজুত পণ্য হারানো ব্যবসায়ীদের নিয়ে তেমন একটা মাথাব্যথা নেই কোনো তরফেই। এখনও পর্যন্ত সঠিক হিসাব না মিললেও ব্যবসায়ীরা প্রাথমিক ভাবে জানিয়েছেন আনুমানিক ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ।

সরকারি ভাবে মার্কেটের অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থার খামতিকে দায়ী করা হয়েছে। ব্যবসায়ী ও স্থানীয়দের তরফে আগুন নিয়ন্ত্রণে সরকারি দীর্ঘসূত্রিতা ও পরিকল্পনার অভাবের কথা বলা হয়েছে। এরই মাঝে বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলির তরফে শাসকের উদাসীনতাকে বড়ো করে তুলে ধরা হয়েছে। আগুনের লেলিহান শিখায় যাঁদের মজুত পণ্য ভস্মীভূত হল তাঁদের যন্ত্রণার ভার যে ভুক্তভোগীদেরই বহন করতে হবে, সে বিষয়ে কোনো সন্দেহের অবকাশ নেই।

সোমবার পর্যন্ত যা খবর, তাতে প্রাথমিক ভাবে জানা গিয়েছে, বাগড়ি মার্কেটের অগ্নিকাণ্ডে প্রায় ৮০ কোটি টাকার পণ্য পুড়ে ছাই হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। সামনে দুর্গাপুজো, তার পরই দীপাবলি- ফলে কলকাতায় পাইকারি বাজারের অন্যতম স্থান এই বাগরি মার্কেটের ব্যবসায়ীরা মজুত করেছিলেন সারা বছরের তুলনায় অনেক বেশি পণ্য। বিল্ডিংয়ের প্রথম তলে একটি দোকানের মালিক শারিক খান। টানা ২৪ ঘণ্টাতেও আগুন নিয়ন্ত্রণে না আসার পর তিনি মন্তব্য করেন, এখনও পর্যন্ত সঠিক ভাবে হিসাব করা সম্ভব হয়নি। তবে প্রাথমিক ভাবে অন্যান্য দোকানদের সঙ্গে কথা বলে জানা যাচ্ছে প্রায় ৮০ কোটি টাকার পণ্য পুড়ে ছাই হয়ে গিয়েছে।

 

সারা রাজ্য থেকেই ইমিটেশন জুয়েলারি, কসমেটিক্স বা প্লাস্টিকের খেলনা-সহ অন্যান্য সামগ্রীর জন্য খুচরো ব্যবসায়ীরা ভিড় জমান বাগরি মার্কেটে। প্রতি দিন কয়েক হাজার খুচরো ব্যবসায়ী পাইকারি দলে পণ্য কিনতে আসেন এখানে। স্থানীয় দোকানদের কথায়, এখানে সাধারণ কোনো হকারের আয়ও দৈনিক ৬-৮ হাজার টাকা।

 

জানা গিয়েছে, পুরো বিল্ডিংয়ে ৯৫৭টি দোকান। উৎসবের সরশুমে সব মিলিয়ে প্রায় ১,০০০ থেকে ১,২০০ কোটি টাকার পণ্য মজুতের সম্ভাব্য একটা আনুমানিক পরিসংখ্যানও মিলেছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন