জঞ্জাল পরিষ্কারের নোটিশ ধরিয়েছিল পুরসভা, রেশ ধরে মাইকিংয়ে চলছে বস্তি খালি করার প্রচার!

0

ওয়েবডেস্ক: ক’দিন ধরেই কলকাতার বিভিন্ন এলাকায় ফুটপাতবাসীদের উচ্ছেদ নিয়ে জোর চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। তা রেশ ধরেই নতুন করে বিতর্কের সৃষ্টি হল ইএম বাইপাস সংলগ্ন ডিসান হাসপাতাল লাগোয় বস্তিটিকে ঘিরে।

জানা গিয়েছে, ক’দিন আগে কলকাতা পুরসভা বস্তির কয়েকজনের বিরুদ্ধে নোটিশ জারি করে। সেখানে স্পষ্টতই জানানো হয়, নিয়ম না মেনে তাঁরা রাস্তা, ফুটপাত এবং সাধারণের ব্যবহৃত জায়গায় বাড়ির আবর্জনা ছুড়েছেন। তাঁদের উদ্দেশে পুরসভা জানায়, পুরসভার কর্মীর নিয়ে যাওয়া আবর্জনা সংগ্রহকারী হাতে ঠেলা গাড়িতে যেন নিয়ম মেনে ওই আবর্জনা ফেলা হয়। নচেত, বিভিন্ন সংবাদপত্রে পুরসভার দেওয়া বিজ্ঞপ্তি অনুয়ায়ী আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এই সেই নোটিশ

এর পরপরই গত ১০ ফেব্রুয়ারি পুলিশ এবং পুরসভার পক্ষ থেকে মাইকিং করে বস্তিবাসীদের এবং ওই অঞ্চলের রাস্তার ধারের হকারদের উঠে যেতে বলা হয় বলে জানা যায়।

ঘটনায় প্রকাশ, বস্তিবাসীদের কেউ সবজি বিক্রি, কেউ গৃহশ্রমিকের কাজ করেন। কেউ আবার নির্মাণ শ্রমিক অথবা হকার- ইত্যাদি বিভিন্ন কাজের সঙ্গে যুক্ত। প্রায় ৫০টি পরিবারের বাস এখানে। প্রত্যেকেরই এই ঠিকানায় বিদ্যুতের সংযোগ, ভোটার কার্ড, আধার কার্ড এবং রেশন কার্ড-সহ যাবতীয় পরিচয়পত্র রয়েছে।

পুরসভা এবং পুলিশের এহেন পদক্ষেপের বিরুদ্ধে বৃহস্পতিবার মানবাধিকার সংগঠন এপিডিআর কলকাতা পুরসভার ১২ নম্বর বরোয় স্মারকলিপি দেয়। সংগঠন দাবি করে, “কোনো রকমের লিখিত নোটিশ না দেখিয়ে শুধুমাত্র মাইকিং করে আচমকা বস্তিবাসীদের উঠে যেতে বলায় তারা হতবাক। এমন ঘোষণা কেন করা হল, পুরসভার পক্ষ থেকে তা স্পষ্ট করা হোক”।

মানবাধিকারকর্মী রঞ্জিত সুর বলেন, “আমরা পুরসভার কাছে জানতে চাই, কী কারণে বস্তি খালি করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। প্রত্যুত্তরে সংশ্লিষ্ট আধিকারিক জানান, ‘এখনই জানানো সম্ভব নয়। আগামী কয়েক দিনের মধ্যেই তা জানানো হবে”।

রঞ্জিতবাবু তাঁর সামনেই অভিযোগ করেন, “ডিসান হাসপাতালের ‘সুপারি’ নিয়ে কী পুরসভা বস্তি খালি করার পদক্ষেপ নিয়েছে? অনেক দিন ধরেই ওই জায়গাটার উপর তাদের নজর রয়েছে”।

আরও পড়ুন আইসিডিএস কর্মীদের বিধানসভা অভিযান

প্রবীণ এক বস্তিবাসী বলেন, “পুরসভা একটা নোটিশ দিয়েছিল। কিন্তু আমরা ততটা পড়াশোনা না জানায় তা বুঝতে না পেরে ভয় পেয়ে যাই। পরে জানতে পারি, সেটা না কি জঞ্জাল ফেলা নিয়ে একটা নোটিশ ছিল”!

প্রসঙ্গত, ক’দিন ধরেই কলকাতার কালীঘাট, গড়িয়াহাট, লেক কালীবাড়ি এলাকায় ফুটপাতবাসীদের উৎখাতের ঘটনা নিয়ে জোর চাঞ্চল্য ছড়ায়।

------------------------------------------------
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.