patients are being shifted.
সরানো হচ্ছে রোগীদের। ছবি রাজীব বসু।

কলকাতা: গত ২৫ সেপ্টেম্বর থেকে কলকাতা মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি চিলেন খানাকুলের বাসিন্দা সইদুল ইসলাম মল্লিক। তিনি শ্বাসকষ্ট ও সুগারের রোগ নিয়ে ভর্তি ছিলেন। বুধবার অগ্নিকাণ্ডের পর সৃষ্টি হওয়া আতঙ্কের জেরে হুড়োহুড়ি পড়ে যায়। এর পরই তাঁর মৃত্যু হয় বলে অভিযোগ মৃতের ছেলের।

মৃতের ছেলে সংবাদ মাধ্যমের কাছে জানান, “বাবা এ দিন সুস্থই ছিলেন। তাঁকে দু-চার দিনের মধ্যে ছুটি দেওয়ার কথাও জানিয়েছিলেন চিকিৎসকরা। কিন্তু সকালে আগুন লাগার পর চার দিক ধোঁয়ায় ঢেকে যায়। রোগীর বাড়ির লোকেরা যে যার মতো নিজেদের রোগীকে নিয়ে নীচে নেমে আসে। আমিও বাবাকে নিয়ে নীচে আসি। এর পর বাবার হার্টফেল হয়ে যায়। তাঁকে এমার্জেন্সিতে ভর্তি করা হয়”।

তাঁর অভিযোগ, এমার্জেন্সিতে থাকাকালীনই সইদুলের শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে থাকে। তাঁকে অন্য হাসপাতালে স্থানান্তরিত করার পরামর্শ দেন চিকিৎসকরা। কিন্তু এর পরই মৃত্যু হয় ৭৫ বছর বসয়ি সইদুলের।

নিয়ন্ত্রণে মেডিক্যালের আগুন, নষ্ট প্রচুর জীবনদায়ী ওষুধ

তবে এ ব্যাপারে মেডিক্যাল কলেজ কর্তৃপক্ষের কোনো প্রতিক্রিয়া এখনও পর্যন্ত জানা যায়নি।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন