kolkata house
নিজস্ব ছবি

কলকাতা: লালবাজার থেকে ঢিলছোড়া দূরত্বে বেন্টিঙ্ক স্ট্রিটের সেই বাড়ির একাংশ ভাঙতে সফল হল কলকাতা পুরসভা। বহু দিন ধরেই বাসিন্দাদের বাড়ি খালি করে দেওয়ার আবেদন জানানোর পরও তাঁরা কর্ণপাত করছিলেন না। এমনকি মঙ্গলবার পুরসভার আধিকারিক-কর্মীরা বাড়ির বিপজ্জনক অংশ ভাঙতে গিয়েও বাধার সম্মুখীন হন।

এ দিন সকাল থেকেই ওই বাড়িটিকে নিয়ে চলছিল তীব্র টানাপোড়েন। প্রথমে পুরসভা্র তরফে সেখানে গিয়ে দেখা যায়, উপরের তলের বাসিন্দাদের অধিকাংশ ঘর খালি করে দিলেও প্রথম তলে রমরমিয়ে চলেছে দোকান এবং অফিস। পুরসভা সুত্রে খবর, ওই বাড়িতে প্রায় ৭০টি অফিস-দোকান ছিল।

প্রথম তলের ব্যবসায়ীদের ঘর খালি করে দেওয়ার অনুরোধ করার পরেও তাঁরা অনড় মনোভাব দেখান। এমনকি বচসার সৃষ্টি হয় পুরসভার প্রতিনিধিদের সঙ্গে। ঘটনা এমন জায়গায় পৌঁছোয় যে, পুরকর্তারা লালবাজারে খবর দেন। খবর পেয়ে লালবাজার থেকে একটি পুলিশবাহিনী পাঠানো হয়। কিন্তু তার পরেও মেটেনি সমস্যা। এর পর বাড়ির বাসিন্দাদের সঙ্গে আলোচনায় বসেন পুরসভা ও পুলিশকর্তারা। সেখানে ছিলেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধিও।

আরও পড়ুন: যে কোনো মুহূর্তে ভেঙে পড়তে পারে বিপজ্জনক বাড়ি, খালি করতে গিয়ে বাধার মুখে পুরসভা, ঘটনাস্থলে পুলিশ

দীর্ঘ আলোচনার পর পুরকর্মীরা বাড়ির বিপজ্জনক অংশ ভাঙতে সফল হন। স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি, বাড়িটিকে অনেক দিন আগেই বিপজ্জনক হিসাবে ঘোষণা করেছিল পুরসভা। এমনকি বাড়ির একাংশ জাল দিয়ে মুড়ে ফেলা হয়েছিল। কিন্তু বাড়ির দেওয়ালে বড়োসড়ো ফাটল দেখা দেওয়ায় কালবিলম্ব করতে চাননি পুরকর্তারা। বৃষ্টিতে আরও বড়োসড়ো দুর্ঘটনা এড়াতেই বিপজ্জনক অংশ ভেঙে ফেলার সিদ্ধান্ত কার্যকর করেন তাঁরা।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন