Connect with us

কলকাতা

মদন মিত্রের সঙ্গে বিনা খরচে দার্জিলিং ভ্রমণ! ব্যানার-পোস্টারে শোরগোল ভবানীপুরে

কলকাতা: ‘বিনামূল্যে দার্জিলিং ভ্রমণ, সঙ্গে থাকছেন মদন মিত্র।’ এ ধরনের ব্যানার-পোস্টারে ছেয়ে গিয়েছে ভবানীপুর চত্বর।

এটা জানাজানি হতেই মানুষের মধ্যে শোরগোল পড়ে গিয়েছে। বাঙালির কাছে দার্জিলিং এমনিতেই খুব প্রিয়, তার ওপর সেখানে যদি বিনামূল্যে ভ্রমণের সুযোগ থাকে তা হলে তো কথাই নেই।

কীভাবে যাওয়া যাবে, কার কাছে নাম নথিভুক্ত করতে হবে, সে সব খোঁজখবর নিতেও শুরু করে দিয়েছেন আগ্রহীরা। তবে আসল ব্যাপারটা এক্কেবারে উলটো।

আদতে মদন মিত্র দার্জিলিং নিয়ে যাচ্ছেন না, বরং দার্জিলিংকে নিয়ে আসছেন ভবানীপুরে।

বিজ্ঞাপনটি ভবানীপুর ইউনাইটেড ইয়ুথ ফোরামের কার্তিক পুজোর মণ্ডপের। যার সভাপতি মদন মিত্র। এ বছর তাদের থিম ‘বিনামূল্যে দার্জিলিং ভ্রমণ, সঙ্গে থাকছেন মদন মিত্র’।

সংগঠনের সম্পাদক তথা মদনবাবুর অন্যতম ঘনিষ্ঠ ঝন্টু দে জানিয়েছেন, “বাঁশবেড়িয়ার কার্তিক পুজোর কথা সবাই জানেন। তবে কলকাতায় আমরাই বড়ো কার্তিক পুজো করি। প্রত্যেকবারই মানুষকে নতুন কিছু উপহার দেওয়া হয়। এবারও তার ব্যতিক্রম হবে না। ভবানীপুরের পুজো মণ্ডপে এসে সবুজ-পাহাড়ের আনন্দ উপভোগ করতে পারবেন দর্শনার্থীরা।”

উদ্যোক্তাদের দাবি, মণ্ডপটি দার্জিলিংয়ের পাহাড়ের আদলে তৈরি করা হচ্ছে। তাতে টয় ট্রেন থাকবে। চা-বাগান থাকবে। এমনকী পাহাড়ের কোল দিয়ে পর্যটকদের বাস গাড়ি চলতেও দেখা যাবে।

আরও পড়ুন জগদ্ধাত্রী পুজোর জন্য ব্যাপক ভিড়, ট্রেন থেকে পড়ে মৃত্যু ২ যাত্রীর

পাহাড়ের নীচ দিয়ে ঢুকতে হবে মণ্ডপের গর্ভগৃহে। সেখানেই দেব সেনাপতি কার্তিকের মূর্তি থাকবে। উদ্যোক্তারা জানিয়েছেন, শুধু পাহাড় দেখাই নয়, মণ্ডপে ঢুকে দার্জিলিংয়ের আমেজও পাবেন দর্শনার্থীরা।

মণ্ডপের ভিতরে ঢুকে শীত অনুভব করবেন দর্শনার্থীরা। আর তার জন্য একগুচ্ছ এসি বসানোও হয়েছে। এ ছাড়া কার্তিকের মূর্তিটি হচ্ছে পাহাড়ি আদলে। তাঁর সাজ হবে গোর্খা লেপচাদের মতো।

সব মিলিয়ে কার্তিক পুজোর সময়ে ভবানীপুরে দার্জিলিং উপভোগ করা যাবে বলে আশ্বাস দিচ্ছেন পুজো উদ্যোক্তারা।

কলকাতা

কলকাতায় এখন ১৮টি কনটেনমেন্ট জোন, ১৮৭২টি আইসোলেশন ইউনিট, ফারাকটা কোথায়?

কলকাতা: কিছু দিন আগেও কলকাতায় ১৫০০-এর বেশি কনটেনমেন্ট জোন ছিল। আচমকা সেটা কমে গিয়ে ১৮ হয়ে গিয়েছে। আসলে কনটেনমেন্ট জোনের সংজ্ঞা বদলে যাওয়ায় এমনটা হয়েছে বলে জানাচ্ছে কলকাতা পুরসভা (KMC)।

পুরসভার মতে, এখন থেকে শহরের কোনো লেন বা গলিতে অনেকে সংক্রমিত হলে সেই রাস্তাটি বন্ধ করে কনটেনমেন্ট জোন করা হবে। অন্য দিকে দু’-একটি করোনা সংক্রমণ হলে সংশ্লিষ্ট বাড়িটিকে আইসোলেশন ইউনিট বলা হবে।

শহরের কনটেনমেন্ট জোন

একটি নির্দিষ্ট এলাকায় অনেকে সংক্রমিত হয়েছেন এমন ১৮টি এলাকা চিহ্নিত হয়েছে শহর কলকাতায়। এই সব জায়গা এখন থেকে কলকাতা পুলিশের কড়া নজরদারিতে থাকবে বলে জানানো হয়েছে। পুরসভা থেকেই বাড়িতে বাড়িতে নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী দিয়ে আসা হবে।

***** শহরের ১৮টি কনটেনমেন্ট জোনের চারটে রয়েছে ভবানীপুরে – জাস্টিস মাধবচন্দ্র রোড, এলগিন রোড, শরৎ বোস রোড আর চক্রবেড়িয়া রোডে।

***** আলিপুরে রয়েছে দু’টি জায়গা – সত্যম টাওয়ার আর জাজেস কোর্ট রোডে।

***** পন্ডিতিয়া রোড।

***** টালিগঞ্জের গল্‌ফ ক্লাব রোড।

***** ইন্দ্রপুরী স্টুডিওর কাছে টলি পার্ক অ্যাপার্টমেন্ট।

***** মুকুন্দপুরের পূর্বালোক।

***** গড়িয়াহাটের ডোভার টেরেস আর ডোভার লেন।

***** শরৎ ব্যানার্জি রোড।

***** বাগবাজারের মরাঠা ডিচ লেন ও মরাঠা ডিচ সরণি।

***** কাঁকুড়গাছির সিআইটি স্কিম ৭ আর মতিলাল বসাক লেন।

***** উলটোডাঙার আরিফ রোড আর অধরচন্দ্র দাস লেন।

মুখ্য প্রশাসকের বক্তব্য

এই প্রসঙ্গেই কলকাতা পুরসভার মুখ্য প্রশাসক ফিরহাদ হাকিম জানিয়েছেন, “কনটেনমেন্ট জোনে আরও কড়াকড়ির জন্যই নতুন এই মাপকাঠি আনা হয়েছে। এই এলাকার বাইরে সাধারণ মানুষ নিজের কাজকর্ম স্বাভাবিক ছন্দেই করুন, সেটা আমরা চাই।”

গত কয়েক দিনে শহরে নমুনা পরীক্ষা অনেক বাড়ানো হয়েছে বলে জানান ফিরহাদ। সংক্রমিত এলাকাগুলি থেকে পুরসভার স্বাস্থ্যকর্মীরা বাসিন্দাদের লালারসের নমুনা সংগ্রহ করছেন। আর সে কারণেই গত কয়েক দিনে কলকাতায় করোনা-সংক্রমিতের সংখ্যা অনেকটাই বেড়ে গিয়েছে।

তবে কলকাতার কাছে স্বস্তির খবর এই জেলা, আনলক পর্বে, দেশের অন্য বড়ো শহরে যে হারে করোনা-আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে, সে রকম পরিস্থিতি কলকাতায় এখনও নেই।

Continue Reading

কলকাতা

শর্ট সার্কিট থেকে আগুন, বেহালায় পুড়ে মৃত্যু মা-মেয়ের

খবরঅনলাইন ডেস্ক: শর্ট সার্কিট থেকে আগুন। আর সেই আগুনে পুড়ে মৃত্যু হল মা-মেয়ের। ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার দুপুরে, কলকাতার (Kolkata) বেহালা (Behala) অঞ্চলে। মায়ের নাম সোমা মিত্র (৬৮) এবং মেয়ের নাম কাকলি মিত্র (৪২)। বাড়ির আর দু’ জন বাসিন্দা রক্ষা পেয়েছেন।

দমকলের এক প্রবীণ আধিকারিক বলেন, “ওই দুই মহিলা দোতলা বাড়ির দ্বিতীয় তলে আটকা পড়ে গিয়েছিলেন। সেখানেই তাঁদের পুড়ে মৃত্যু হয়। আগুন নিভে যাওয়ার পরে তাঁদের দগ্ধ দেহ উদ্ধার করা হয়।”

স্থানীয় অধিবাসীরা জানান, সাড়ে ১২টা নাগাদ তাঁরা একটা প্রচণ্ড জোর আওয়াজ শুনতে পান। তার পরেই আগুন লেগে যায়।

অগ্নি নির্বাপণ বিভাগের প্রাথমিক অনুসন্ধান থেকে জানা যায়, শর্ট সার্কিট (short circuit) থেকে আগুন লেগে থাকতে পারে। গোটা ঘটনাটি নিয়ে পুলিশ তদন্ত করছে।

বাড়িতে পাঁচ জন থাকতেন। বাড়ির অন্য দুই আগুনের পরে বেরিয়ে আসতে সক্ষম হন। আর ঘটনাটার সময় বাড়ির পঞ্চম বাসিন্দা বাড়ির বাইরে ছিলেন বলে জানা যায়।

Continue Reading

কলকাতা

কলকাতায় অতিসংক্রমিত ১৬টি অঞ্চলকে পুরোপুরি সিল করে দেওয়ার প্রস্তুতি

কলকাতা: দেশের অন্য বড়ো শহরের থেকে কলকাতায় (Kolkata) করোনা-সংক্রমণ কিছুটা কম। কিন্তু গত কয়েক দিনে সেই সংখ্যাটাও দ্রুত গতিতে বাড়ছে। এই সপ্তাহেই দৈনিক দু’শো জন করে গড়ে মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন কলকাতায়।

এ বার আর ঝুঁকি না নিয়ে অতিসংক্রমিত এলাকাগুলিতে ফের কড়া নজরদারি শুরু করতে চলেছে কলকাতা পৌরনিগম (Kolkata Municipal Corporation)। ইতিমধ্যেই কলকাতা পৌরনিগমের স্বাস্থ্য বিভাগ একটি রিপোর্ট জমা দিয়েছে স্বাস্থ্য দফতরের কাছে ।

সেই রিপোর্টের ভিত্তিতে কলকাতার ১৬টি জায়গা অতিসংক্রমিত হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে। সেখানে নতুন করে কড়া বিধিনিষেধ চালু করতে বলা হয়েছে।

লকডাউনের (Lockdown) প্রথম ধাপে যে ধরনের কড়াকড়ি করা হয়েছিল, অতি সংক্রমিত এলাকাগুলিতে সেই ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণের পরিকল্পনা করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন অতীন ঘোষ৷ উল্লেখযোগ্য ভাবে, শহরের বস্তিগুলোর থেকে বহুতলে করোনা এখন অনেক বেশি ছড়াচ্ছে। কেন এমনটা হচ্ছে?

অতীনবাবুর কথায়, একটি বাড়িতে একজন সদস্য আক্রান্ত হলে বাড়ির ভিতরে শারীরিক দূরত্বের নিয়মকানুন পালন করা হচ্ছে না। ফলে যে বাড়িতে আক্রান্ত এক জন ছিল সেখানে কিছু দিনের মধ্যে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে তিন-চার জন হয়ে যাচ্ছে। এর ফলে করোনা সংক্রমণের সংখ্যা দ্রুত বৃদ্ধি পাচ্ছে আবাসন, বহুতল ও বাড়িগুলিতে ।

কনটেনমেন্ট জোন নিয়ে নতুন পরিকল্পনা করেছে পৌরনিগম। এত দিন পর্যন্ত শুধু রোগীর বাড়ি অথবা বহুতলের নির্দিষ্ট ফ্ল্যাটগুলিকে সিল করে দেওয়া হচ্ছিল। কিন্তু নতুন পরিকল্পনা অনুযায়ী, এখন থেকে শুধু বাড়ি নয়, বাড়ির সামনে রাস্তাও সিল করে দেওয়া হবে। চলবে কড়া নজরদারি।

পৌরনিগমের তরফে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী বর্তমানে শহরে অতি মাত্রায় সংক্রমিত এলাকাগুলি রয়েছে কাশীপুর, উল্টোডাঙা, শ্যামপুকুর, বাগবাজার, মানিকতলা, বেলগাছিয়া, বেলেঘাটা, বিডন স্ট্রিট, গিরিশ পার্ক, বিবেকানন্দ রোড, রামমোহন সরণি, কলেজ স্ট্রিট, তপসিয়া, মনোহরপুকুর রোড, গড়িয়াহাট রোড, এজেসি বোস রোডে।

এই সব এলাকা পুরোদমে সিল করে দিয়ে আবার প্রথম দফায় লকডাউনের কড়াকড়ি আরোপ করা হবে।

Continue Reading
Advertisement
বাংলাদেশ6 hours ago

‘দম ফুরাইলে ঠুস’-এর গায়ক প্লেব্যাক সম্রাট এন্ড্রু কিশোর প্রয়াত

রাজ্য12 hours ago

নতুন সংক্রমণ কিছুটা কম, রাজ্যে করোনামুক্ত হলেন ১৫ হাজার

প্রযুক্তি12 hours ago

নতুন অ্যাপ ‘সেল্‌ফ স্ক্যান’ নিয়ে এল রাজ্য সরকার! এর কাজ কী?

বিনোদন13 hours ago

সুশান্ত সিং রাজপুত মৃত্যু-রহস্যে থানায় বয়ান রেকর্ডের পর নি‌ঃশব্দেই বেরিয়ে এলেন সঞ্জয়লীলা বনশালী

ক্রিকেট14 hours ago

ওপেনার সচিন তেন্ডুলকরের গোপন রহস্য ফাঁস করলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়

কেনাকাটা14 hours ago

রান্নাঘরের টুকিটাকি প্রয়োজনে এই ১০টি সামগ্রী খুবই কাজের

দার্জিলিং14 hours ago

‘বিশ্বাস ছিল এই লড়াই জিতব’, করোনাকে জয় করে বাড়ি ফিরলেন অশোক ভট্টাচার্য

বিদেশ15 hours ago

মার্কিন পথে কুয়েতও, কর্মহীন হয়ে দেশছাড়া হতে পারেন ৮ লক্ষ ভারতীয়

কেনাকাটা

কেনাকাটা14 hours ago

রান্নাঘরের টুকিটাকি প্রয়োজনে এই ১০টি সামগ্রী খুবই কাজের

খবরঅনলাইন ডেস্ক : লকডাউনের মধ্যে আনলক হলেও খুব দরকার ছাড়া বাইরে না বেরোনোই ভালো। আর বাইরে বেরোলেও নিউ নর্মালের সব...

কেনাকাটা2 days ago

হ্যান্ড স্যানিটাইজারে ৩১ শতাংশ পর্যন্ত ছাড় দিচ্ছে অ্যামাজন

অনলাইনে খুচরো বিক্রেতা অ্যামাজন ক্রেতার চাহিদার কথা মাথায় রেখে ঢেলে সাজিয়েছে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের সম্ভার।

DIY DIY
কেনাকাটা6 days ago

সময় কাটছে না? ঘরে বসে এই সমস্ত সামগ্রী দিয়ে করুন ডিআইওয়াই আইটেম

খবর অনলাইন ডেস্ক :  এক ঘেয়ে সময় কাটছে না? ঘরে বসে করতে পারেন ডিআইওয়াই অর্থাৎ ডু ইট ইওরসেলফ। বাড়িতে পড়ে...

smartphone smartphone
কেনাকাটা1 week ago

লকডাউনের মধ্যে ফোন খারাপ? রইল ৫ হাজারের মধ্যে স্মার্টফোনের হদিশ

খবরঅনলাইন ডেস্ক : করোনা সংক্রমণের হাত থেকে বাঁচতে ঘরে বসে যতটা কাজ সারা যায় ততটাই ভালো। তাই মোবাইল ফোন খারাপ...

নজরে