কলকাতা: ‘বিনামূল্যে দার্জিলিং ভ্রমণ, সঙ্গে থাকছেন মদন মিত্র।’ এ ধরনের ব্যানার-পোস্টারে ছেয়ে গিয়েছে ভবানীপুর চত্বর।

এটা জানাজানি হতেই মানুষের মধ্যে শোরগোল পড়ে গিয়েছে। বাঙালির কাছে দার্জিলিং এমনিতেই খুব প্রিয়, তার ওপর সেখানে যদি বিনামূল্যে ভ্রমণের সুযোগ থাকে তা হলে তো কথাই নেই।

কীভাবে যাওয়া যাবে, কার কাছে নাম নথিভুক্ত করতে হবে, সে সব খোঁজখবর নিতেও শুরু করে দিয়েছেন আগ্রহীরা। তবে আসল ব্যাপারটা এক্কেবারে উলটো।

আদতে মদন মিত্র দার্জিলিং নিয়ে যাচ্ছেন না, বরং দার্জিলিংকে নিয়ে আসছেন ভবানীপুরে।

বিজ্ঞাপনটি ভবানীপুর ইউনাইটেড ইয়ুথ ফোরামের কার্তিক পুজোর মণ্ডপের। যার সভাপতি মদন মিত্র। এ বছর তাদের থিম ‘বিনামূল্যে দার্জিলিং ভ্রমণ, সঙ্গে থাকছেন মদন মিত্র’।

সংগঠনের সম্পাদক তথা মদনবাবুর অন্যতম ঘনিষ্ঠ ঝন্টু দে জানিয়েছেন, “বাঁশবেড়িয়ার কার্তিক পুজোর কথা সবাই জানেন। তবে কলকাতায় আমরাই বড়ো কার্তিক পুজো করি। প্রত্যেকবারই মানুষকে নতুন কিছু উপহার দেওয়া হয়। এবারও তার ব্যতিক্রম হবে না। ভবানীপুরের পুজো মণ্ডপে এসে সবুজ-পাহাড়ের আনন্দ উপভোগ করতে পারবেন দর্শনার্থীরা।”

উদ্যোক্তাদের দাবি, মণ্ডপটি দার্জিলিংয়ের পাহাড়ের আদলে তৈরি করা হচ্ছে। তাতে টয় ট্রেন থাকবে। চা-বাগান থাকবে। এমনকী পাহাড়ের কোল দিয়ে পর্যটকদের বাস গাড়ি চলতেও দেখা যাবে।

আরও পড়ুন জগদ্ধাত্রী পুজোর জন্য ব্যাপক ভিড়, ট্রেন থেকে পড়ে মৃত্যু ২ যাত্রীর

পাহাড়ের নীচ দিয়ে ঢুকতে হবে মণ্ডপের গর্ভগৃহে। সেখানেই দেব সেনাপতি কার্তিকের মূর্তি থাকবে। উদ্যোক্তারা জানিয়েছেন, শুধু পাহাড় দেখাই নয়, মণ্ডপে ঢুকে দার্জিলিংয়ের আমেজও পাবেন দর্শনার্থীরা।

মণ্ডপের ভিতরে ঢুকে শীত অনুভব করবেন দর্শনার্থীরা। আর তার জন্য একগুচ্ছ এসি বসানোও হয়েছে। এ ছাড়া কার্তিকের মূর্তিটি হচ্ছে পাহাড়ি আদলে। তাঁর সাজ হবে গোর্খা লেপচাদের মতো।

সব মিলিয়ে কার্তিক পুজোর সময়ে ভবানীপুরে দার্জিলিং উপভোগ করা যাবে বলে আশ্বাস দিচ্ছেন পুজো উদ্যোক্তারা।

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন