‘ভয়াবহ অবস্থা, রোজ দুর্ঘটনা ঘটছে’, বেহাল রাস্তা নিয়ে ফিরহাদকে চিঠি তৃণমূল সাংসদের

0
কামালগাজি-বারুইপুর বাইপাসের বর্তমান পরিস্থিতি। ছবি: বিহানরতন সান্যাল

বারুইপুর: কামালগাজি থেকে বারুইপুর পর্যন্ত নবনির্মিত বাইপাসটির বেহাল দশা। রোজই দুর্ঘটনা লেগে রয়েছে এই রাস্তায়। এ বার এই নিয়ে সরব হলেন যাদবপুরের তৃণমূল সাংসদ মিমি চক্রবর্তী।

পুর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমকে চিঠি দিয়ে মিমি-র আবেদন, “অবিলম্বে বারুইপুর-কামালগাজি বাইপাস মেরামত করে দিন। ভয়ংকর অবস্থা রাস্তার। রোজ দুর্ঘটনা ঘটছে।”

গড়িয়া থেকে বারুইপুর পর্যন্ত নেতাজি সুভাষ রোড আর চওড়ার করার সুযোগ নেই। সেই কারণেই কামালগাজি থেকে বারুইপুর পর্যন্ত বাইপাস গড়ে তোলা হয়েছিল বাম জমানার শেষ দিকে।

ওই রাস্তা নির্মাণ হয়ে যাওয়ার পর বারুইপুর, সোনারপুর, সুভাষগ্রাম, মল্লিকপুর, রাজপুর এলাকার মানুষের প্রচুর সুবিধা হয়। কারণ কলকাতা থেকে বারুইপুর পৌঁছোনোর সময় অনেক কমে যায়।

আরও পড়ুন স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার রান্নাঘরে ভয়াবহ বিস্ফোরণ, হত বেশ কয়েকজন

কিন্তু এখন পরিস্থিতি একেবারেই বিপরীত। সাদার্ন বাইপাসের অবস্থা গত ৬ মাস ধরে ক্রমশ খারাপ হচ্ছে। রাস্তার বহু অংশে পিচ নেই। রাস্তায় খানাখন্দ এমনই যে গাড়ির চাকা খুলে যাওয়ার অবস্থা। নিত্য দিন উলটে পড়ছেন মোটর সাইকেল ও স্কুটার আরোহীরা। ঝুঁকি নিয়ে যাতায়াত করতে হচ্ছে স্কুলের ছেলেমেয়েদেরও।

অনেকে মশকরা করে ওই রাস্তাটিকে চাঁদের জমির সঙ্গেও তুলনা করছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। ঘূর্ণিঝড়ের বুলবুলের জেরে প্রবল বৃষ্টির পর রাস্তার অবস্থা আরও খারাপ।

এ বার লোকসভা ভোটে মিমি যখন যাদবপুর থেকে প্রার্থী হন, তখনও বেহাল ছিল বারুইপুরগামী এই রাস্তা। কিন্তু প্রতি দিন বাইপাসের এই রাস্তা নিয়ে তাঁর কাছে অভিযোগপত্র ও ই-মেল পাঠাচ্ছেন এলাকার মানুষ।

সাধারণ মানুষ যে তাঁর হস্তক্ষেপ চেয়ে আবেদন করছেন, সেই ব্যাপারেও ফিরহাদকে জানিয়েছেন মিমি। সেই সঙ্গে অনুরোধ করেছেন, অবিলম্বে সেখানে ব্ল্যাকটপ রাস্তা বানিয়ে দিতে। এখন দেখার পুরমন্ত্রী সাংসদের আবেদন গ্রহণ করেন কি না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.