কলকাতা: রবিবারের দুপুরে দক্ষিণ কলকাতার আলিপুরের গেস্টহাউজে রহস্যজনক ভাবে মৃত্যু হল এক ছাত্রীর। তাঁর সঙ্গীকে আটক করেছে পুলিশ।

এদিন দুপুর একটা নাগাদ তাঁর পুরুষ বন্ধুর সঙ্গে ওই গেস্টহাউজে ওঠেন ওই যুবতী। ঘণ্টাখানেক পরেই যুবতীকে নিয়ে বেরিয়ে আসেন তাঁর বন্ধু। তখন তাঁর যৌনাঙ্গ থেকে ব্যাপক রক্তপাত হচ্ছিল। তাঁরা কাছে বিপি পোদ্দার হাসপাতালে যান। কিন্তু সেখানে যুবতীকে ভর্তি না নেওয়ায় টালিগঞ্জের বাঙ্গুর হাসাপাতালে যুবতীকে নিয়ে যান তাঁর বন্ধু। সেখানে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা যুবতীকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

জানা গেছে, ওই যুবক এবং যুবতী হাওড়া জেলার শিবপুর অঞ্চলের বাসিন্দা। দুজনের মধ্য কলকাতার পোদ্দার কোর্টের কাছে একটি বেসরকারি ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজে পড়াশোনা করেন। তাঁদের মধ্যে ঘনিষ্ট বন্ধুত্বের সম্পর্ক ছিল। দুই পরিবারের কাছ থেকে জানা গেছে, দুই বাড়িতেই দুজনের যাতায়াত ছিল। দুজনেরই বয়স ২১-২২ মতো।

প্রাথমিক ভাবে পুলিশের অনুমান প্রথমবার যৌন সম্পর্ক করতে গিয়ে অত্যাধিক রক্তপাতেই মৃত্যু হয়েছে ওই যুবতীর। তবু ময়নাতদন্তের রিপোর্ট না আসা পর্যন্ত সঙ্গী যুবককে আটক করে রেখেছে চেতলা থানার পুলিশ। দুজনে বৈঠ পরিচয়পত্র জমা দিয়ে ওই গেস্টহাউজে উঠেছিল কি না, তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তবে যুবকটি যে তদন্তে যথেষ্ট সহযোগিতা করেছে, তাও জানানো হয়েছে পুলিশের পক্ষ থেকে।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন