প্রতীকী ছবি

ওয়েবডেস্ক: দাবি না মানলে আগামী ১৯শে আগস্ট থেকে  আমরণ অনশনে বসছেন পশ্চিমবঙ্গের কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের আংশিক সময়ের শিক্ষকেরা।

কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের আংশিক সময়ের শিক্ষকদের সংগঠন কুটাব সমকাজে সমবেতন-সহ বেশ কয়েকটি দাবি জানিয়ে আসছে দীর্ঘদিন ধরেই।

এর আগে কুটাবের প্রতিনিধি দল মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী তাদের বলেন, প্রাথমিক ভাবে এই সমস্যাগুলির কথা শিক্ষামন্ত্রীকে জানাতে। কুটাবের সাধারণ সম্পাদক গৌরাঙ্গ দেবনাথের কথায়, সমস্যার কথা বারবার বলা সত্ত্বেও শিক্ষামন্ত্রী সমাধানের কোনও পথ দেখাতে পারেননি

তাঁর দাবি, “নামে ‘আংশিক সময়ের’ হলেও বাস্তবে আমরা পূর্ণসময়ের কাজ করে থাকি। তাঁর পূর্ণ-জীবিকাকাল একজন অধ্যাপক কী ভাবেই বা ‘আংশিক’ কাজ করতে পারেন? বস্তুত, পূর্ণসময়ের অধ‍্যাপকের সমান কাজ করেও এই অধ‍্যাপকরা আংশিক বেতন পান। এহেন অমানবিক শোষণের থেকে মুক্তির আকুতি নিয়ে আমরা বারবার পৌঁছে গিয়েছি মাননীয় উচ্চশিক্ষামন্ত্রী এবং মুখ‍্যমন্ত্রীর কাছে। অথচ আজও গালভরা প্রতিশ্রুতি ছাড়া কিছুই মেলেনি। উচ্চশিক্ষামন্ত্রী দাবির যৌক্তিকতা অস্বীকার করতে না পারলেই বারবার রাজকোষের দূরাবস্থার দোহাই দেন। কাউকে ছোট না করেই বলছি, আমাদের বেতন ‘গ্রুপ ডি’ কর্মচারী বন্ধুদের থেকেও বহুলাংশে কম”। 

গৌরাঙ্গবাবুর হুঁশিয়ারি, “উচ্চশিক্ষামন্ত্রীর একের পর এক মিথ্যা প্রতিশ্রুতিতে সারা রাজ‍্যের আংশিক সময়ের অধ্যাপকরা ক্ষোভের আগুনে ফুঁসছেন। তাই ১৯ আগস্ট থেকে সহস্রাধিক অধ‍্যাপক রাজপথে অভুক্ত পড়ে থাকবেন। যদি সরকারের এতটুকু সত‍্যনিষ্ঠ দায়িত্ববোধ বেঁচে থাকে, তা হলে সরকার আমাদের দাবি মেটানোর আন্তরিক প্রচেষ্টা করবে। নইলে আমরণ অনশন চলবে, কলেজে কলেজে ক্লাস বয়কট চলবে”।

উচ্চশিক্ষামন্ত্রীর উদ্দেশে সংগঠনের পক্ষে যে সমস্ত দাবিগুলি রাখা হয়েছে, তার মধ্যে অন্যতম সমকাজে সমবেতন, অবসরকালীন বয়স ৬৫ বছর, প্রতি বছর ৩% বেতন বৃদ্ধি, অবসরকালীন ভাতা ৬ লক্ষ টাকা করার দাবি।

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন