টালার পর বেলগাছিয়া সেতুর সংস্কারে হাত দিচ্ছে রাজ্য!

ছবি: ইউটিউব থেকে

ওয়েবডেস্ক: দুর্গাপুজোর আগে থেকেই ভগ্নস্বাস্থ্যের কারণে টালা ব্রিজ দিয়ে ভারী যানচলাচল নিষিদ্ধ করেছে রাজ্য প্রশাসন। এ বার একই কারণে পার্শ্ববর্তী বেলগাছিয়া সেতুর সংস্কারে হাত দিতে চলেছে রাজ্য। জানা গিয়েছে, আগামী এক মাসের মধ্যে বেলগাছিয়া সেতুর পিচের আস্তরণ তুলে ফেলা হবে।

টালা ব্রিজে ভারী যানচলাচল নিষিদ্ধ হওয়ার পর থেকেই চাপ বেড়েছে বেলগাছিয়া সেতুর উপর। বেশির ভাগ গাড়িই এখন চলাচলের জন্য ব্যবহার করছে এই সেতুটিকে। বয়সের কারণে এই সেতুটিরও স্বাস্থ্য সংকটজনক বলে মত দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। আরজিকর হাসপাতাল সংলগ্ন এই সেতুটির স্বাস্থ্যপরীক্ষা করে পূর্ত দফতরের ইঞ্জিনিয়াররা এমনই অভিমত জানিয়েছেন।

স্বাভাবিক ভাবে বিপদের আশঙ্কা কাটাতে ওই ব্রিজটি থেকে পিচের আস্তরণ তুলে ফেলার সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য। ট্রামলাইনের জন্য ব্যবহৃত ওই পিচের আস্তরণ আগামী এক মাসের মধ্যেই তুলে ফেলা হবে বলে জানা গিয়েছে। তবে সেই কাজ করতে হবে অতি সতর্কতার সঙ্গে।

বয়সের নিরিখে বেলগাছিয়া সেতুও বেশ প্রবীণ। ফলে পিচের আস্তরণ তোলার সময় যাতে কম্পনের উৎপত্তি না হয়, সে দিকে নজর রাখার কথা জানিয়েছেন ইজ্ঞিনিয়াররা। তাঁরা জানিয়েছেন, পিচের আস্তরণ তোলার জন্য রোবোটিক ভাইব্রেটর যন্ত্র ব্যবহার করা যাবে না। অতিরিক্ত ঝাঁকুনি এড়িয়েই পিচ তুলতে হবে। ঝাঁকুনির ফলে বিপদ বাড়তে পারে সেতুটির।

প্রসঙ্গত, আগামী শনিবারই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় টালা ব্রিজ নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ বৈঠকে বসতে চলেছেন। উত্তর কলকাতা শহরতলির সঙ্গে যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম এই সেতুর সংস্কারের উদ্দেশ্য নিয়ে কাজ শুরু হলেও সম্প্রতি মুম্বইয়ের বিশেষজ্ঞ দল রিপোর্টে জানিয়েছে, সেতুটিকে ভেঙে ফেলাই যথার্থ হবে। কারণ, সংস্কার করা হলেও সেতুটির বর্তমান পরিস্থিতি যা, তাতে বিপদ এড়ানো সম্ভব নয়। শনিবারের বৈঠকেই এ ব্যাপারে চূড়ান্ত নিতে চলেছে প্রশাসন।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.