কলকাতা – জোড়া ধর্ষণের অভিযোগে বাবার জেল হয়েছে মাস দুয়েক আগে। তারপরই জানা গেছে প্রতি রাতে নিত্য নতুন শয্যা সঙ্গিনী ছাড়া চলত না বাবা রামরহিমের। বাবার সাজা হওয়ার পর গ্রেফতার হয়েছেন তার প্রধান সঙ্গী হনিপ্রিত সিং ইনসান। পালিয়েছে কেউ কেউ। বন্ধ আশ্রম।

কিন্তু বাবার শিষ্যরাকি আর শুধু উত্তর ভারতে! দিকে দিকে ছড়িয়ে রয়েছেন তারা। রয়েছে খাস কলকাতাতেও। আর কাজকর্ম চালাচ্ছেন বাবার কায়দাতেই।

এই যেমন বড়োবাজারের প্রমোদ সিংহানিয়া। বড়োবাজার থানার উল্টোদিকে একটি চারতলা বাড়িক মালিক প্রমোদ জ্যোতিষীর কাজ করত। নিজেকে পরিচয় দিত রামরহিমের শিষ্য হিসেবে। সেই বাড়িতেই শুক্রবার খোঁজ মিলল মধুচক্রর। বাড়িতে রয়েছে ২৬টি কুঠুরি এবং সুড়ঙ্গ। নিয়মিত সেখানে নানা বয়সের নারীপুরুষ আসত বলে জানিয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। মধুচক্র চালানো ছাড়াও যৌন কার্যকলাপের জন্য ঘর ভাড়াও দিত প্রমোদ। সেক্ষেত্রে ছেলেমেয়েদের থেকে ৪০০-৫০০ টাকা নেওয়া হত।

এর আগে বাড়িটিতে কয়েকজনকে অন্তরঙ্গ অবস্থায় দেখতে পাওয়া যায়। স্থানীয় বাসিন্দারা হানা দিলে প্রমোদ ও অন্যরা সুড়ঙ্গ দিয়ে পালিয়ে যেত বলে জানা গেছে।

ঘটনার তদন্ত করছে বড়োবাজার থানার পুলিশ।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন