‌টালা ব্রিজ নিয়ে বিশেষজ্ঞ কমিটির রিপোর্ট জমা পড়ল নবান্নে

0
ফাইল ছবি

ওয়েবডেস্ক: উত্তর কলকাতার অন্যতম যোগাযোগের মাধ্যম টালা ব্রিজ নিয়ে ব্রিজ বিশেষজ্ঞ কমিটির রিপোর্ট জমা পড়ল নবান্নে। এ দিন ব্রিজ বিশেষজ্ঞ ভি কে রায়না টালা ব্রিজ নিয়ে চূড়ান্ত রিপোর্টি জমা করলেন নবান্নে।

দুর্গাপুজোর আগেই ব্রিজ বিশেষজ্ঞ কমিটি টালা ব্রিজ নিয়ে রিপোর্ট তৈরির কাজ হাতে নেয়। পুজো মিটতেই ব্রিজ বিশেষজ্ঞ ভি কে রায়নার নেতৃত্বে ওই রিপোর্টই এ দিন জমা পড়ে নবান্নে। রিপোর্টে বলা হয়েছে, একাধিক কারণে টালা ব্রিজের বর্তমান অবস্থা মোটের উপর সংকটজনক।

পুজোর মুখেই টালা ব্রিজের স্বাস্থ্য নিয়ে দু‌শ্চিন্তায় পড়ে রাজ্য প্রশাসন। দফায় দফায় বৈঠকের পর টালা ব্রিজে ভারী যান চলাচল নিষিদ্ধ করা হয়। যার জেরে চরম ভোগান্তিতে পড়েন সাধারণ মানুষ। উত্তর শহরতলির সঙ্গে কলকাতার যোগাযোগ রক্ষাকারী অন্যতম সেতু দিয়ে চলাচলকারী বাসগুলির রু‌ট পরিবর্তিত হলেও সাধারণ মানুষের হয়রানি কোনো মতেই কমেনি। সব মিলিয়ে সেতুটিকে মেরামতের উদ্দেশ্য নিয়েই কাজ শুরু হলেও বিশেষজ্ঞ কমিটির রিপোর্ট বলছে অন্য কথা।

সূত্রের খবর, এ দিন নবান্নে মুম্বইয়ের বিশেষজ্ঞ কমিটির রিপোর্ট জমা পড়ে মুখ্যসচিবের কাছে। সেখানে স্পষ্টতই বলা হয়েছে, টালা ব্রিজের বর্তমান অবস্থা বিপজ্জনক। আগামী দু’মাসের মধ্যে টালা ব্রিজ ভেঙে ফেলতে হবে। ব্রিজের বর্তমান স্বাস্থ্যের অবস্থা যা, তাতে যে কোনো মুহূর্তে দুর্ঘটনা ঘটে যেতে পারে। ৬২ বছরেরর এই পুরনো সেতুর নীচ দিয়ে ট্রেন চলাচল করে। ফলে ট্রেন যাওয়ার ফলে যে কম্পনের সৃষ্টি হয়, তাতে বর্তমান অবস্থায় থাকা টালা ব্রিজে যে কোনো সময় বিপদ ঘটতে পারে।

[ আরও পড়ুন: কেন্দ্রীয় শিক্ষক যোগ্যতা পরীক্ষার প্রস্তুতির জন্য সেরা ৫টি মোবাইল অ্যাপ ]

জানা গিয়েছে, রিপোর্ট হাতে পাওয়ার পর মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সংশ্লিষ্ট দফতরের আধিকারিকদের নিয়ে বৈঠকে বসবেন আগামী শনিবার। সেখানেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে, টালা ব্রিজ ভেঙে ফেলা হবে কি না? অথবা ভেঙে ফেলার সিদ্ধান্ত নেওয়া হলেও বিকল্প হিসাবে কী ধরনের পদ্ধতি অবলম্বন করা হবে?

------------------------------------------------
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.