প্রতীকী ছবি

কলকাতা: দীর্ঘ আড়াই বছর পর প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্র সংসদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। বৃহস্পতিবার সকাল ১১টা থেকে শুরু হয় ভোটগ্রহণ। তার পরেই শুরু হয় ভোটগণনা।

এ বারের ছাত্র ভোটে লড়ছে এসএফআই, আইসি, ডিএসও, আইসা এবং এআইএসএফও-র মতো ছাত্র সংগঠনগুলি। ক্লাস রিপ্রেজেন্টেটিভ (সিআর)-এর আসন ১১৬টি। তবে সিআর পদের ২৯টি আসনে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় ফয়সালা হয়ে গিয়েছে। অবশিষ্ট সিআর আসন এবং পাঁচটি বিশেষ পদের জন্যই এ দিন ভোটগ্রহণ হয়। এ বারের ভোটে নতুন সংযোজন ‘নোটা’।

ছাত্র সংসদের ভোট ঘিরে কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা রাখা হয়েছে প্রেসিডেন্সিতে। বিশেষ করে বহিরাগতদের আটকাতে নেওয়া হয়েছে একাধিক ব্যবস্থা। পরিচয়পত্র ছাড়া ভিতরে ঢোকা নিষেধ করা হয়েছে। গোটা কলেজ স্ট্রিট জুড়ে রয়েছে সাদা পোশাকের পুলিশও।

এমনিতে প্রেসিডেন্সিতে মূল লড়াই দুই বামপন্থী সংগঠন এসএফআই এবং আইসির (ইন্ডিপেন্ডেন্ট কনসলিডেশন) মধ্যে। পাশাপাশি তৃণমূল ছাত্র সংগঠনও রয়েছে। এবিভিপির তেমন কোনো প্রভাব চোখে পড়েনি।

রাজ্য সরকার পুনরায় ছাত্র নির্বাচনে সম্মতি দেওয়ার পরে প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়েই প্রথমে ছাত্রভোট অনুষ্ঠিত হল। এ দিন ফল ঘোষণার পর আগামী শুক্রবার ছাত্র সংসদ গঠন করার কথা।

এখনও পর্যন্ত খবরে জানা গিয়েছে, সিআর আসনের ৫৮টিতে এগিয়ে রয়েছে এসএফআই। আইসি এগিয়ে রয়েছে ৫২টি আসনে। অন্য দিকে বিশেষ পাঁচটি আসনের মধ্যে সেন্ট্রাল প্যানেলের সভাপতি, সহ-সভাপতি, জিএস- সব পদেই এগিয়ে রয়েছেন এসএফআই প্রার্থীরা।

আপাতত এই ফলাফলেই স্পষ্ট, দীর্ঘ ন’বছর পর ফের প্রেসিডেন্সির ছাত্র সংসদের ক্ষমতায় ফিরতে চলেছে এসএফআই। জানা গিয়েছে, এসজিএ ২টি, বিজেপি সমর্থিত ২ প্রার্থী, ডিএসও ১টি, এবং এআইএসএ ১টি এগিয়ে থাকলেও খাতা খুলতে পারেনি রাজ্যের শাসক দল তৃণমূলের ছাত্র সংগঠন।

আপডেট আসছে…

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন