student suicide with laptop cord

কলকাতা: বড়ো ছেলে জার্মানিতে কর্মরত। বাবা প্রতিনিয়ত তার সঙ্গে তুলনা করে ভালো ফল করার জন্য চাপ দিতেন ছোটো ছেলেকে। সেই চাপ সহ্য করতে না পেরে পরীক্ষা শুরুর আগেই আত্মহত্যা করল সেন্ট জেভিয়ার্স কলেজের চূড়ান্ত বর্ষের ছাত্র ঋক বোস।

অভিষিক্তার ফ্ল্যাট নং ২০৩-এর বাসিন্দা ঋকের বি-কম অনার্সের পরীক্ষা ছিল আগামী ১৮ এপ্রিল। প্রাথমিক তদন্তে পুলিশ জানতে পেরেছে, বাবা দেবল বোস জার্মানিতে কর্মরত বড়ো ছেলের সঙ্গে নিয়মিত তুলনা করতেন তার। ঋককে চাপ দিতেন ভালো ফল করার জন্য। এই চাপের ফলে ক্রমশ হতাশাগ্রস্ত হয়ে পড়ছিল ঋক। পরীক্ষার প্রস্তুতিও ভালো করে নিতে পারেনি। মঙ্গলবার রাতে সে গলায় ল্যাপটপ চার্জারের তার জড়িয়ে আত্মহত্যা করে।

বুধবার সকালে অনেক ডাকাডাকির পর দরজা না খোলায় বাড়ির লোকেরা দরজা ভেঙে দেখে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে গলায় ল্যাপটপের তার জড়িয়ে ঝুলছে ঋক। প্রতিবেশীর সহযোগিতায় তার দেহ নীচে নামানো হয়। তাকে এমআর বাঙুর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকরা মৃত বলে ঘোষণা করেন।

দেহটি ময়না তদন্তে পাঠানো হয়েছে। পুলিশের কাছে কোনো অভিযোগ দায়ের করা হয়নি। তবে পুলিশ স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে একটি মামলা শুরু করেছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন