Connect with us

কলকাতা

বিপন্ন কলেজ স্ট্রিটের পুরোনো বইয়ের ব্যবসা, মেলেনি সরকারি সহায়তা

করোনা ও ঘূর্ণিঝড় উম্পুনের জোড়া হামলায় বইপাড়ার সামগ্রিক ব্যবসার হাল খুবই খারাপ।

Published

on

অর্ণব দত্ত

লকডাউন শিথিল হওয়ার পর কলেজ স্ট্রিটের (College Street) পুরোনো ও নতুন বইয়ের দোকানগুলো আবার খুলেছে। লকডাউনে তিন মাসের বেশি সময় বইপাড়ার নতুন ও পুরোনো, দু’ ধরনের বইয়ের দোকানই বন্ধ ছিল। ব্যবসা পুরোপুরি বন্ধ থাকায় দোকানিরা পুঁজি ভাঙিয়ে কোনো মতে বেঁচেবর্তে ছিলেন। কিছু দিন হল নতুন করে দোকান খুললেও ক্রেতার দেখা প্রায় নেই বললেই চলে। 

কলেজ স্ট্রিটের পুরোনো বইয়ের ব্যবসা অভিনব। ভারতের আর কোথাও কেবলমাত্র পুরোনো বইয়ের এত বড়ো বাজার নেই। কলকাতার (Kolkata) অন্যতম এক দ্রষ্টব্য পুরোনো বইয়ের বাজার। দু’শো বছরেরও বেশি প্রাচীন প্রেসিডেন্সি কলেজ, ১৬০ বছরেরও বেশি প্রাচীন কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গেই দীর্ঘ কাল কলেজ স্ট্রিটের দু’ ধারে অবস্থান করছে এই পুরোনো বইয়ের (old books) দোকানগুলো। নতুন বইয়ের দোকানের পাশাপাশি বর্তমানে এখানে কয়েকশো পুরোনো বইয়ের দোকান রয়েছে। 

করোনা (Covid 19) ও ঘূর্ণিঝড় উম্পুনের (cyclone Amphan) জোড়া হামলায় বইপাড়ার সামগ্রিক ব্যবসার হাল খুবই খারাপ। পুরোনো বইয়ের ব্যবসায়ীদের মাথায় হাত। এই অসময়ে কে আর পুরোনো বই কিনতে বইপাড়ায় আসবেন?

পুরোনো বইয়ের ব্যবসায়ী পার্থ আচার্য বললেন, “উম্পুনে দোকানের ভিতর জল ঢুকে প্রচুর বই নষ্ট হয়ে গিয়েছে। সেই ধাক্কা আমরা সামলে উঠতে পারতাম, যদি না করোনা থাকত। দোকান খুলতে হয় তাই খুলছি।”

পার্থ বারাসাতে থাকেন। সেখান থেকে এখন প্রতি দিন কলেজ স্ট্রিট যাতায়াত করতে গাড়িভাড়া বাবদ অন্তত ৭০-৮০ টাকা খরচ হচ্ছে। অথচ সেই টাকাটা রোজগার হচ্ছে না। একই অবস্থা অন্য পুরোনো বইয়ের দোকানিদেরও।

কলেজ স্ট্রিটের পুরোনো বইয়ের দোকানিদের মধ্যে অনেকেই বাঙালি মুসলমান। এই দোকানিরা বেশির ভাগই কলকাতার সংলগ্ন এলাকাগুলোর বাসিন্দা। আজ থেকে ৫০-৬০ বছর আগে পুরোনো বইয়ের ব্যবসা করতেন বিহারি মুসলমানরা। সে সময় দোকানগুলোতে কর্মী হিসেবে কাজ করতেন বাঙালি মুসলমানরা। তখন বাংলা বইয়ের পাশাপাশি বিক্রি হত ইংরেজি ও হিন্দি বইও।

বিহারি দোকানিরা এক সময় পুরোনো বইয়ের দোকানগুলো বেচে দেন। সেগুলো কিনে নেন দোকানের কর্মীরাই। এ ভাবে পুরোনো বইয়ের ব্যবসায়ের মালিকানা পরিবর্তিত হয়। আর পূর্বতন বিহারি মালিকরা দেশে ফিরে যান।

পুরোনো বইয়ের ব্যবসা করে এত দিন মোটামুটি ভাবে দিন চলছিল এখানকার দোকানিদের। দোকানি দেবাশিস হালদার বললেন, “এই ব্যবসাটা করেই এত দিন সংসার চালিয়েছি। পরের চাকরি করব না বলে ব্যবসাটা চালিয়ে যাচ্ছিলাম। করোনা সব শেষ করে দিল। এ দিকে সরকার সামান্য সাহায্যটুকুও করেনি। চোখে এখন সরষে ফুল দেখছি।” 

ওঁর মতো আরও কয়েক হাজার পুরোনো বইয়ের ব্যবসায়ীর চোখে এখন সরষে ফুল। দোকানিদের এখন কেবলমাত্র পুরোনো বই বিক্রি করে সংসার চলে না। যদিও পুরোনো বইয়ের নিয়মিত ক্রেতা আছেন, তবে তাঁরা সংখ্যায় কম। এঁদের মধ্যে আবার অনেকেই উচ্চশিক্ষিত। কেউ অধ্যাপক, কেউ বাঁ গবেষক। সংখ্যাটা সামান্য হলেও এঁদের পুরোনো বই বিক্রি করেই এক সময় সংসার চলে যেত। ওঁরা চড়া দাম দিয়ে দুষ্প্রাপ্য বইও কিনতেন। সে এখনও কেনেন। কিন্তু দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির বাজারে টিকে থাকতে পুরোনো বই বিক্রেতাদের একাংশ নতুন বইও বিক্রি করছেন। অনেকে স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ের বইও রাখছেন। 

পুরোনো লাইব্রেরিগুলো থেকে সাধারণত পুরোনো বই আমদানি করা হয় বইপাড়ায়। অনেকে পারিবারিক লাইব্রেরির বই সামলানোর ঝক্কি নিতে চান না। তাঁরাও পুরনো বইয়ের জোগান দেন পুরোনো বইয়ের দোকানিদের। দালাল মারফত বই বিক্রির খবর পৌঁছে যায় এখানে।

জীবনের গতি ব্যাহত করোনা উদিত হওয়ায়। বিপন্ন জীবিকা। উম্পুনে গুমটিতে জল ঢোকায় হাজার হাজার বইয়ের দফারফা হয়ে গিয়েছে। 

পুরোনো বই বিক্রেতাদের সংগঠন ভবানী দত্ত বুক সেলার্স অ্যাসোসিয়েশনের সম্পাদক অরুণ কুমার পাঠক বললেন, “এখনও আমরা কোনো সরকারি সাহায্য পাইনি। পুরোনো বইয়ের দোকানিদের কেউ কেউ এখন সোদপুর থেকে কলেজ স্ট্রিটে সাইকেলে করেই যাতায়াত করছেন। অন্নচিন্তা চমৎকারা।”

প্রায় হাজারের কাছাকাছি মানুষ রয়েছেন যাঁরা এখন বিপন্ন। এরা সকলেই পুরোনো বইয়ের দোকানি।

কলকাতা

ঐতিহ্যবাহী প্রতিভা গ্রন্থাগারের দ্রুত সংস্কারের প্রতিশ্রুতি দিলেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়

এ দিন তিনি ১২৭ নম্বর ওয়ার্ডের প্রায় বন্ধ হয়ে যাওয়া ঐতিহ্যবাহী প্রতিভা গ্রন্থাগার পরিদর্শন করেন।

Published

on

partha chatterjee
পার্থ চট্টোপাধ্যায়। ফাইল ছবি

কলকাতা: ঐতিহ্যবাহী প্রতিভা গ্রন্থাগারের দ্রুত সংস্কারের প্রতিশ্রুতি দিলেন রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। এ দিন তিনি গ্রন্থাগারটি পরিদর্শন করেন।

নিজের বেহালা পশ্চিম কেন্দ্রের অন্তর্গত গুরুত্বপূর্ণ ১১৯ নম্বর ওয়ার্ড পরিদর্শনে যান শিক্ষামন্ত্রী। অন্যান্য দিনের মতোই নিজের কেন্দ্র পরিদর্শন কর্মসূচির অঙ্গ হিসেবে মনি টাওয়ারে এক ঝটিকা সফর করেন। উদ্দেশ্য, ওই টাওয়ারের আবাসিকের বিভিন্ন বিষয়ে বিশদে খবর নেওয়া। পাশাপাশি তাঁদের যদি কোনো সমস্যা বা অসুবিধা থেকে থাকে, তা দ্রুত নিষ্পত্তি করা।

আবাসিকরাও বিধায়কের এই কর্মসূচিতে এ দিন সাড়া দেন। বিধায়ক হিসেবে পার্থবাবুর বিভিন্ন কাজের সম্মান ও স্বীকৃতি জানান। এ দিনই তিনি কলকাতা পুরসভার ১২৭ নম্বর ওয়ার্ডের প্রায় বন্ধ হয়ে যাওয়া ঐতিহ্যবাহী প্রতিভা গ্রন্থাগার পরিদর্শন করেন।

আরও পড়তে পারেন: শ্রমিক স্পেশাল ট্রেনে ৯৭ অভিবাসীর মৃত্যু, রেলমন্ত্রীর তথ্য উসকে দিল গরমিলের ইঙ্গিত!

এর আগে পার্থবাবুকে একাধিক বার বলতে শোনা গিয়েছে, “গুগুল সার্চ, সোশ্যাল মিডিয়াতেই বই পড়ার অভ্যাস শেষ হয়ে যাচ্ছে। বই যত পড়বেন তত জ্ঞানের অন্বেষণ হবে। বইয়ের বিকল্প কিছু নেই”। এ দিন তিনি গ্রন্থাগারটি পরিদর্শন করেই অতিসত্ত্বর সংস্কারের মাধ্যমে আবার আগের অবস্থায় ফিরিয়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন।

Continue Reading

কলকাতা

ট্যাক্সি চালকের হাতে হেনস্থা মামলায় আলিপুর আদালতে গোপন জবানবন্দি সাংসদ- অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তীর

শুক্রবার আলিপুর আদালতে গোপন জবানবন্দি দিলেন মিমি চক্রবর্তী।

Published

on

কলকাতা: প্রকাশ্য দিনের আলোয় গত সোমবার হেনস্থার শিকার হয়েছিলেন সাংসদ এবং অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী (Mimi Chakraborty)। শুক্রবার আলিপুর আদালতে গোপন জবানবন্দি দিলেন তিনি।

সোমবার ভরদুপুরে জনবহুল এলাকায় মিমিকে লক্ষ্য করে কটূক্তি ও শ্লীলতাহানির অভিযোগ ওঠে এক ট্যাক্সি চালকের বিরুদ্ধে। গড়িয়াহাট থানায় অভিযোগ দায়ের হলে তড়িঘড়ি ব্যবস্থা নিয়ে ঘটনায় অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

এ দিন জবানবন্দি দেওয়ার পর সাংবাদিকদের সামনে মিমি চক্রবর্তী বলেন, “আজকে আমার আসাটা খুব দরকার ছিল। তা হলে ও হয়তো ছাড়া পেয়ে যেত। এর পর অন্য কারুর সঙ্গে তো আরও খারাপ কিছু করতে পারে”।

একই সঙ্গে মিমি বলেন, “আমার কলকাতা প্রশাসন কিংবা রাজ্যের বদনাম হোক চাই না। আজ দোষী ছাড়া পেয়ে গেলে আমার শহর আর নিরাপদ থাকবে না। ভবিষ্যতে এ রকম আরও অপ্রীতিকর পরিস্থিকির সম্মুখীন হতে পারেন মহিলারা। তাই এই মামলায় পুলিশি তদন্তে সহযোগিতা করতে আজ নিজে এসে জবানবন্দি করে গেলাম”।

কী ঘটেছিল সে দিন?

গত সোমবার বিকেলে জিম থেকে ফেরার পথে মিমি হেনস্থার শিকার হন। বিকেলে বালিগঞ্জ এবং গড়িয়াহাটের মাঝামাঝি এলাকায় ট্র্যাফিক সিগনালে দাঁড়িয়েছিল মিমির গাড়ি। ঘটনায় প্রকাশ, তখন একটি ট্যাক্সি তাঁর গাড়িকে ওভারটেক করে। মিমি যখন কাচ নামিয়ে দেখতে যান, তখনই তিনি লক্ষ্য করেন, পাশে দাঁড়ানো ট্যাক্সির চালক তাঁর উদ্দেশে অশ্লীল অঙ্গভঙ্গি করছে।

বিস্তারিত পড়ুন এখানে: মিমি চক্রবর্তীকে অশ্লীল ইঙ্গিতের অভিযোগে গ্রেফতার ট্যাক্সিচালক

Continue Reading

কলকাতা

কয়েকটি স্টেশনে ই-পাসের সংখ্যা বাড়াচ্ছে কলকাতা মেট্রো

কালীঘাট, টালিগঞ্জ এবং মহাত্মা গান্ধী রোডের মতো কয়েকটি স্টেশনে আরও বেশি সংখ্যায় ই-পাস পাওয়া যাবে।

Published

on

ই-পাস দেখালে তবেই স্টেশনে ঢোকার অনুমতি। সংগৃহীত ছবি

কলকাতা: ‘নিউ নরম্যালে’ ই-পাস বুক করে মেট্রোয় যাতায়াতের সংখ্যা ক্রমশ বাড়ছে। পরিস্থিতি বিবেচনা করে ব্যস্ত সময়ে কয়েকটি স্টেশনে ই-পাসের সংখ্যা বাড়াচ্ছে কলকাতা মেট্রো।

মেট্রো সূত্রে খবর, অ্যাপ নির্মাতা সংস্থা ইতিমধ্যেই নিজেদের সার্ভার থেকে স্লটের সংখ্যা বাড়াচ্ছে। সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, মেট্রোয় অফিসে টাইমের স্লটে ই-পাসের সংখ্যা বাড়ানো হবে।

জানা গিয়েছে,কয়েকটি স্টেশন থেকে অথবা স্টেশনের জন্য ই-পাসের সংখ্যা বাড়ানো হচ্ছে। দক্ষিণ কলকাতার কালীঘাট, টালিগঞ্জ এবং উত্তর কলকাতা মহাত্মা গান্ধী রোডের মতো কয়েকটি স্টেশনে আরও বেশি সংখ্যায় ই-পাস পাওয়া যাবে।

তবে এক ধাক্কায় যে এই সংখ্যা অনেকটাই বাড়ানো হবে, তেমনটাও নয়। কারণ, ই-পাস বুক হল অনেক, কিন্তু যাত্রী কম, তেমন পরিস্থিতি এড়াতে চাইছেন কর্তৃপক্ষ।

এ ব্যাপারে মেট্রো রেলের মুখ্য জনসংযোগ আধিকারিক ইন্দ্রাণী বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, “আমরা যাত্রীদের কাছে অনুরোধ করব, প্রয়োজন না থাকলে অযথা ই-পাস বুকিং করবেন না। যাঁদের প্রয়োজন তাঁরা ই-পাস পাবে না। এতে প্রকৃত যাত্রীদের যাতায়াতের অসুবিধা তৈরি হবে”।

আরও পড়তে পারেন: প্রবীণ নাগরিকদের জন্য ই-পাস নিয়ম শিথিল করল কলকাতা মেট্রো

গত দু’দিন ধরে অযথা ই-পাস বুকিংয়ের সংখ্যা কমেছে বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্ট সংস্থা।

কী ভাবে ই-পাস সংগ্রহ করবেন?

*প্রথমে যেতে হবে pathadisha.com ওয়েবসাইট অথবা অ্যাপে।

*বলা হবে-আপনার নাম লিখুন।

*এর পর জানতে চাওয়া হবে-আপনার যাত্রা শুরুর স্টেশন।

*বেছে নিতে হবে-আপনার গন্তব্য স্টেশন।

*স্থির করতে হবে-আপনার যাত্রার সময়।

*বলা হবে-অনুগ্রহ করে বুকিং পাওয়া যায় কিনা জানতে অপেক্ষা করুন…

*বুক করতে চান কি না, নিশ্চিত করতে হবে।

*ই-পাস চলে এলে তা ডাউনলোড করে নেওয়া যাবে।

মেট্রোয় সফর না করলে অযথা ই-পাস বুক করা উচিত নয়।

জানা গিয়েছে, রেক প্রতি চারশো জন যাত্রী ধরে এবং বিভিন্ন স্টেশনে তাঁদের ওঠানামা করার প্রবণতা বুঝে মেট্রো কর্তৃপক্ষ চাইছেন, করোনা আবহে এক লক্ষের কাছাকাছি যাত্রী পরিবহণের লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করতে। সেই কারণে যাত্রীদের ই-পাস বুক করার সংখ্যা এবং বাস্তবে কত জন যাত্রী সফর করছেন, সেই সংখ্যার ফারাক খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

Continue Reading
Advertisement
আইপিএল6 hours ago

সুপার ওভারে পঞ্জাবকে হারিয়ে জয় ছিনিয়ে নিল দিল্লি

Md. Shami
আইপিএল8 hours ago

পঞ্জাবকে ১৫৮ রানের টার্গেট দিল দিল্লি

শিল্প-বাণিজ্য8 hours ago

জিএসটি ক্ষতিপূরণ: ২১টি রাজ্য বেছে নিল প্রথম বিকল্প, দ্বিতীয়টি পছন্দ নয় কারও

রাজ্য9 hours ago

রাজ্যে সুস্থতার হার ৮৭ শতাংশের উপর, তেমন কোনো হেরফের নেই দৈনিক সংক্রমণে

দেশ11 hours ago

সোমবার থেকে স্কুল খোলা বাধ্যতামূলক নয়, দেখে নিন কোন রাজ্য কী সিদ্ধান্ত নিল

corona
দেশ11 hours ago

৫টি রাজ্যেই মোট সক্রিয় কোভিডরোগীর ৬০ শতাংশ!

রাজ্য12 hours ago

বঙ্গোপসাগরে তৈরি নিম্নচাপের জেরে বৃষ্টি, হলুদ সর্তকতা জারি করল আবহাওয়া দফতর

দেশ13 hours ago

৬ বিধায়ক, ৩ সাংসদ এবং প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি-সহ আর যে সব ‘ভিভিআইপি’ করোনার শিকার

দেশ20 hours ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ৯২৬০৫, সুস্থ ৯৪৬১২

শিল্প-বাণিজ্য3 days ago

এসবিআই এটিএমে টাকা তোলার নিয়ম বদলে গেল! দেখে নিন ওটিপি-ভিত্তিক পদ্ধতির খুঁটিনাটি বিষয়

কলকাতা3 days ago

কয়েকটি স্টেশনে ই-পাসের সংখ্যা বাড়াচ্ছে কলকাতা মেট্রো

Shreyas Iyer
ক্রিকেট2 days ago

আইপিএলের অন্যতম সেরা বোলিং লাইনআপ কি দিল্লি ক্যাপিটাল্‌সের?

দেশ11 hours ago

সোমবার থেকে স্কুল খোলা বাধ্যতামূলক নয়, দেখে নিন কোন রাজ্য কী সিদ্ধান্ত নিল

MS Dhoni
ক্রিকেট3 days ago

চেন্নাই সুপারকিংসের আদর্শ লাইনআপে কত নম্বরে ব্যাট করতে পারেন মহেন্দ্র সিংহ ধোনি?

ishan porel mohammad shami
ক্রিকেট3 days ago

কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের হয়ে নতুন বলে বাংলার দুই পেসার?

শরীরস্বাস্থ্য3 days ago

কোভিড-১৯: স্কুল খোলার আগে নিজের সন্তানকে এই ৫টি তথ্য অবশ্যই জানাবেন

কেনাকাটা

কেনাকাটা2 days ago

সংসারের খুঁটিনাটি সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে এই জিনিসগুলির তুলনা নেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক : নিজের ও ঘরের প্রয়োজনে এমন অনেক কিছুই থাকে যেগুলি না থাকলে প্রতি দিনের জীবনে বেশ কিছু সমস্যার...

কেনাকাটা4 days ago

ঘরের জায়গা বাঁচাতে চান? এই জিনিসগুলি খুবই কাজে লাগবে

খবরঅনলাইন ডেস্ক : ঘরের মধ্যে অল্প জায়গায় সব জিনিস অগোছালো হয়ে থাকে। এই নিয়ে বারে বারেই নিজেদের মধ্যে ঝগড়া লেগে...

কেনাকাটা1 week ago

রান্নাঘরের জনপ্রিয় কয়েকটি জরুরি সামগ্রী, আপনার কাছেও আছে তো?

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রান্নাঘরের এমন কিছু সামগ্রী আছে যেগুলি থাকলে কাজ করাও যেমন সহজ হয়ে যায়, তেমন সময়ও অনেক কম খরচ...

কেনাকাটা2 weeks ago

ওজন কমাতে ও রোগ প্রতিরোধশক্তি বাড়াতে গ্রিন টি

খবরঅনলাইন ডেস্ক : ওজন কমাতে, ত্বকের জেল্লা বাড়াতে ও করোনা আবহে যেটি সব থেকে বেশি দরকার সেই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা...

কেনাকাটা2 weeks ago

ইউটিউব চ্যানেল করবেন? এই ৮টি সামগ্রী খুবই কাজের

বহু মানুষকে স্বাবলম্বী করতে ইউটিউব খুব বড়ো একটি প্ল্যাটফর্ম।

কেনাকাটা3 weeks ago

ঘর সাজানোর ও ব্যবহারের জন্য সেরামিকের ১৯টি দারুণ আইটেম, দাম সাধ্যের মধ্যে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ঘর সাজাতে কার না ভালো লাগে। কিন্তু তার জন্য বাড়ির বাইরে বেরিয়ে এ দোকান সে দোকান ঘুরে উপযুক্ত...

কেনাকাটা4 weeks ago

শোওয়ার ঘরকে আরও আরামদায়ক করবে এই ৮টি সামগ্রী

খবর অনলাইন ডেস্ক : সারা দিনের কাজের পরে ঘুমের জায়গাটা পরিপাটি হলে সকল ক্লান্তি দূর হয়ে যায়। সুন্দর মনোরম পরিবেশে...

kitchen kitchen
কেনাকাটা1 month ago

রান্নাঘরের এই ৮টি জিনিস কাজ অনেক সহজ করে দেবে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: আজকাল রান্নাঘরের প্রত্যেকটি কাজ সহজ করার জন্য অনেক উন্নত ব্যবস্থা এসে গিয়েছে। তা হলে ঘণ্টার পর ঘণ্টা কষ্ট...

care care
কেনাকাটা1 month ago

চুল ও ত্বকের বিশেষ যত্নের জন্য ১০০০ টাকার মধ্যে এই জিনিসগুলি ঘরে রাখা খুবই ভালো

খবরঅনলাইন ডেস্ক : পার্লার গিয়ে ত্বকের যত্ন নেওয়ার সময় অনেকেরই নেই। সেই ক্ষেত্রে বাড়িতে ঘরোয়া পদ্ধতি অনেকেই অবলম্বন করেন। বাড়িতে...

কেনাকাটা2 months ago

ঘর ও রান্নাঘরের সরঞ্জাম কিনতে চান? অ্যামাজন প্রাইম ডিলে রয়েছে ৫০% পর্যন্ত ছাড়

খবরঅনলাইন ডেস্ক : অ্যামাজন প্রাইম ডিলে রয়েছে ঘর আর রান্না ঘরের একাধিক সামগ্রিতে প্রচুর ছাড়। এই সেলে পাওয়া যাচ্ছে ওয়াটার...

নজরে