Gang Rape
প্রতীকী ছবি

কলকাতা: মহানগরের পথে গণধর্ষণের শিকার এক ফুটপাথবাসী তরুণী। ক্ষুধার্ত তরুণীকে খাবারের লোভ দেখিয়ে মধ্য কলকাতার এক নির্জন স্থানে নিয়ে গিয়ে তাঁকে গণধর্ষণ করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। ঘটনায় দুই অভিযুক্তকে গ্রেফতার করা হলেও তৃতীয় জনের খোঁজ চালাচ্ছে পুলিশ।

ঘটনাটির সূত্রপাত গত শুক্রবার সন্ধ্যায়। ব্যস্ততম স্ট্র্যান্ড রোডের ফুটপাতে বসে কাঁদছিলেন ওই তরুণী। কর্তব্যরত এক ট্রাফিক সার্জেন্ট তাঁকে দেখে কান্নার কারণ জানতে চান। কিন্তু যন্ত্রণায় কুঁকড়ে যাওয়া ওই তরুণী তাঁকে লজ্জায় কিছু জানাতে পারেননি। ওই ট্রাফিক সার্জেন্টের সহযোগিতাতেই তরুণীটিকে নিয়ে যাওয়া হয় হাসপাতালে।

হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরই সম্পূর্ণ ঘটনা জানা যায়। চিকিৎসকরা তাঁর প্রাথমিক পরীক্ষা করার পর জানান, তরুণীটি গণধর্ষণের শিকার। তাঁর উপর একাধিক ব্যক্তি পাশবিক অত্যাচার চালিয়েছে।

এর পরই পুলিশের তদন্ত শুরু হলে জানা যায়, তরুণীর পরিচিত তিন যুবক, পেশায় ফেরিওয়ালা তাঁকে খাবারের লোভ দেখিয়ে নিয়ে যায় ফেয়ারলি প্লেসের কাছে কোনো এক ঝোপঝাড় ভর্তি এলাকায়। সেখানে তাঁকে তিন জন মিলে ধর্ষণ করা হয়। নারকীয় অত্যাচারে জ্ঞান হারান তিনি। এর পর ঘটনার আকস্মিকতার ঘোর কাটিয়ে যন্ত্রণা সহ্য করেই ওই তরুণী স্ট্র্যান্ড রোডে আসেন।

জানা গিয়েছে, উত্তর বন্দর থানায় অভিযোগ দায়েরের পর ঘটনার তদন্তে নেমে পুলিশ চন্দন সাহা ওরফে পিন্টু এবং সুনীল যাদব নামে দুই অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে। তৃতীয় অভিযুক্তের খোঁজ চলছে।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন