ফের কলেজ স্কোয়ারে সাঁতার শিখতে গিয়ে মৃত্যু কিশোরের

0

ওয়েবডেস্ক: রবিবার সকালে কলেজ স্কোয়ারে সাঁতার কাটতে এসে মৃত্যু হল এক কিশোরের। সকাল সাড়ে আটটা নাগাদ ঘটে এই মর্মান্তিক ঘটনা। জানা গিয়েছে, ক’দিন আগে থেকেই কলেজ স্কোয়ারে সাঁতার শিখতে আসছিল মহম্মদ শাহবাজ নামের ওই কিশোর। দুর্ঘটনার পর পুলিশ এসে তার মৃতদেহ উদ্ধার করে।

পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, ভুলবশত দুর্ঘটনার শিকার হয়ে মৃত্যু হয়ে থাকতে পারে শাহবাজের। কলেজ স্কোয়ারের অগভীর পুলটিতে না নেমে সম্ভবত সে গভীর পুলটিতে নেমে পড়েছিল। সেই ভুলেরই মাশুল প্রাণের বিনিময়ে দিতে হল ওই কিশোরকে। জানা যায়, মাত্র তিন দিন আগে সে এখানে সাঁতার শিখতে আসছিল। যে কারণে এ ব্যাপারে প্রশ্নও রয়েছে একাধিক।

ঘটনার পরই খবর যায় আমর্হাস্ট স্ট্রিট থানায়। সঙ্গে সঙ্গে ডবুরি নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় পুলিশ। উদ্ধার হয় বছর ১৭-র ওই কিশোরের দেহ। তৎক্ষণাৎ তাকে নিয়ে যাওয়া হয় মেডিক্যাল কলেজে। সেখানে নিয়ে যাওয়ার পর চিকিৎসকেরা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। শাহবাজের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে যোগাযোগ করে পুলিশ। সুধীর বোস লেনে থাকত ওই কিশোর। কলকাতা ইউনিভার্সিটির সুইমিং সেকশনে দিন তিনেক আগে ভরতি হয়েছিল সে। স্বাভাবিক ভাবেই এ ব্যাপারে প্রশ্ন উঠছে প্রশিক্ষকদের ভূমিকা নিয়েও।

যে সময় সাঁতার কাটার জন্য শাহবাজ পুলে নামে, তখন প্রশিক্ষকরা কোথায় ছিলেন? কত জন প্রশিক্ষক ছিলেন সেখান? তাঁরা ওই সময় কী করছিলেন? খুব বেশি দিন হল সাঁতার শিখতে আসছে না শাহবাজ, সেই জায়গায় সে কী ভাবে গভীর জলে তলিয়ে গেল? চোখের সামনে তাকে কি কেউ ডুবতে দেখেছিল? কেন কেউ এগিয়ে এল না? ইত্যাদি প্রশ্নের উত্তর খুঁজছে পুলিশ।

উল্লেখ্য, বছর দুয়েক আগে কলেজ স্কোয়ারেই সাঁতার কাটতে গিয়ে তলিয়ে মৃত্যু হয় কাজল দত্ত নামে এক জাতীয় স্তরের মহিলা সাঁতারুর।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.