নিজস্ব সংবাদদাতা, জলপাইগুড়ি : কিছু দিন আগেই অজানা জন্তুর আতঙ্ক ছড়িয়েছিল জলপাইগুড়ি শহরে। এ বার চিতাবাঘের আতঙ্ক ঘুম কেড়েছে জলপাইগুড়ির দোমহনীতে। বৃহস্পতিবার সকালে ভুট্টাখেতে কাজে যাচ্ছিলেন দোমহনীর বাসিন্দা বুবা রায়। সেই সময় হঠাৎই খেতের ভেতর থেকে তার ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে তাকে ক্ষতবিক্ষত করে দেয় হিংস্র প্রাণীটি। কোনো রকমে প্রাণ বাঁচিয়ে উঠে দাঁড়ান বুবা রায়। দেখতে পান সামনে তখনও দাঁড়িয়ে গজরাচ্ছে মূর্তিমান বিভীষিকা একটি চিতাবাঘ। আতঙ্কে চিৎকার শুরু করেন তিনি। তাঁর চিৎকারে ছুটে আসেন গ্রামবাসীরা। এত লোককে এক সঙ্গে ছুটে আসতে দেখেই বোধহয় ভুট্টাখেতে আত্মগোপন করে চিতাবাঘটি। গুরুতর জখম বুবা রায়কে গ্রামবাসীরাই উদ্ধার করে নিয়ে এসে জলপাইগুড়ি হাসপাতালে ভর্তি করে। হাসপাতালের বেডে শুয়ে ঘটনার কথা বলতে গিয়ে শিউরে উঠছিলেন তিনি।

এর পরে খবর দেওয়া হয় জলপাইগুড়ি বনবিভাগকে। রামসাই এবং জলপাইগুড়ি থেকে বনকর্মীরা যান ঘটনাস্থলে। আসেন ময়নাগুড়ি থানার পুলিশ ও প্রশাসনের আধিকারিকেরা। চিতাবাঘটি ভুট্টাখেতে লুকিয়ে থাকায় স্বাভাবিকভাবেই আতঙ্কে রয়েছেন গ্রামের বাসিন্দারা। ভুট্টাখেতের পাশেই রয়েছে আরপিএফ-এর ট্রেনিং সেণ্টার। প্রশাসনের পক্ষ থেকেও মাইক বাজিয়ে স্থানীয় বাসিন্দাদের সতর্ক করা হয়। তাকে ধরতে আনা হয় খাঁচাও। কিন্তু চিতাবাঘটি ভুট্টাখেতে লুকিয়ে থাকায় বেগ পেতে হচ্ছে বনকর্মীদের। শেষ পর্যন্ত তাকে ঘুমপাড়ানি গুলি ছুড়ে কাবু করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। যদিও এখনও তা করা সম্ভব হয়নি। বনকর্মীরা ঘটনাস্থলেই রয়েছেন বলে জানিয়েছেন গরুমারা বন্যপ্রাণ বিভাগের বনাধিকারিক নিশা গোস্বামী। মূর্তিমান বিভীষিকা এখনও ধরাছোঁয়ার বাইরে থাকায় আতঙ্কিত স্থানীয় বাসিন্দারা, খেতের আড়াল থেকে কখন সে ঝাঁপিয়ে পড়ে!

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here