খবর অনলাইন: পশ্চিমবঙ্গের দুই প্রান্তে দুই চিত্র। এক প্রান্ত যখন নাগাড়ে বৃষ্টিতে নাজেহাল, অন্য প্রান্ত তখন চাতক পাখির মতো তাকিয়ে আকাশের দিকে। মাঝে মধ্যে বিক্ষিপ্ত দু’এক পশলা বৃষ্টি ছাড়া দক্ষিণবঙ্গ কিছুই পাচ্ছে না। এই পরিপ্রেক্ষিতে গতকাল ২৭-এ জুন পর্যন্ত দক্ষিণবঙ্গে বৃষ্টির ঘাটতি দাঁড়িয়েছে ২৫ শতাংশে। জুনের গোড়ায় ভালো বৃষ্টি না হলে আরও বেশি বৃষ্টি-ঘাটতি জুটত বাংলার কপালে। তবে পরিস্থিতি পাল্টানোর ইঙ্গিত পাওয়া গিয়েছে।

দিল্লির মৌসম ভবন দক্ষিণবঙ্গের জন্য আগামী কয়েক দিন কোনও আশাব্যঞ্জক পূর্বাভাস না দিলেও বিদেশি বিভিন্ন সংস্থা আর দেশের বেসরকারি আবহাওয়া সংস্থা স্কাইমেট জানাচ্ছে, জুলাই থেকে বৃষ্টি-ভাগ্য খুলতে পারে দক্ষিণবঙ্গের জন্য। ইউরোপের সংস্থা ‘সেন্টার ফর মিডিয়াম রেঞ্জ ওয়েদার ফোরকাস্ট’ জানাচ্ছে, পয়লা জুলাই নাগাদ বঙ্গোপসাগরে একটি নতুন নিম্নচাপ দানা বাঁধতে চলেছে। তার ঠিক এক সপ্তাহ পর, অর্থাৎ ৮ জুলাই নাগাদ আরও একটি নিম্নচাপের দেখা মিলতে পারে বঙ্গোপসাগরে। এই দুই নিম্নচাপের প্রভাবেই বৃষ্টি বাড়তে পারে দক্ষিণবঙ্গে। আবহাওয়ার ইতিহাস ঘেঁটে দেখা যায় বঙ্গোপসাগরে দানা বাঁধা কোনও নিম্নচাপ যদি উত্তর ওড়িশা দিয়ে স্থলভাগে প্রবেশ করে তা হলে এখানে বৃষ্টি বাড়ে। দক্ষিণ ওড়িশা দিয়ে প্রবেশ করলে বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির বেশি কিছু হয় না। উল্লেখ্য এই মুহূর্তে বঙ্গোপসাগরে একটি নিম্নচাপ রয়েছে, কিন্তু তার স্থান দক্ষিণ ওড়িশা ঘেঁষা বলে গত কাল, সোমবার দু’পশলা হালকা বৃষ্টির বেশি কিছু হয়নি কলকাতায়। তবে ইউরোপীয় এই সংস্থাটির মতে নিম্নচাপগুলি উত্তর ওড়িশা আর পশ্চিমবঙ্গ উপকূল দিয়েই স্থলভাগে প্রবেশ করতে পারে।

অন্য দিকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সংস্থা ‘ইউএস ক্লাইমেট প্রেডিকশন সেন্টার’ও ইউরোপীয় এই সংস্থার সাথে একমত হয়েছে। তাদের পূর্বাভাস আরও আশাব্যঞ্জক। তাদের মতে শুধু পয়লা আর ৮ জুলাইয়ের নিম্নচাপ নয়, গোটা জুলাই মাসে আরও বেশি নিম্নচাপ তৈরি করতে পারে বঙ্গোপসাগর। স্কাইমেটও জানাচ্ছে, জুলাইয়ের ৩ তারিখ থেকে বৃষ্টি বাড়বে কলকাতায়।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here