খবর অনলাইন: মন্ত্রীদের বিরুদ্ধে অভিযোগের তদন্ত করবেন পুলিশ কমিশনার। এ রকমই নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শুক্রবার তিনি জানান, রাজ্য সরকার নারদ স্টিং অপারেশনের তদন্ত করবে। তদন্তকারী দলের নেতৃত্বে থাকবেন কলকাতার পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমার। মুখ্যমন্ত্রীর অভিযোগ, ভোটের আগে চক্রান্ত করে বাংলাকে অপমান করা হয়েছে। তাই এই তদন্তের নির্দেশ। সরকার চায় সত্য উদ্ঘাটিত হোক, দোষীরা শাস্তি পাক।

নারদ কাণ্ডের প্রথম স্টিং সামনে আসার তিন মাসেরও পর তদন্তের নির্দেশ দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। তাঁর দাবি, এর পিছনে কোনও চক্রান্ত আছে।

উল্লেখ্য, পৃথক তিনটি অভিযোগের ভিত্তিতে নারদ স্টিং অপারেশন নিয়ে কলকাতা হাইকোর্টে তিনটি জনস্বার্থ মামলা চলছে। ওই অপারেশনের ফুটেজ সত্যি কি না, তা জানতে ফরেনসিক পরীক্ষার নির্দেশ দিয়েছে প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ। আদালতে মামলা বিচারাধীন থাকাকালী রাজ্য সরকারের তদন্তের যৌক্তিকতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে বিরোধী দলনেতা আব্দুল মান্নান বলেন, “মুখ্যমন্ত্রী কি আদালতের উপর ভরসা রাখতে পারছেন না ?”

সিপিএমের আইনজীবী নেতা কলকাতার প্রাক্তন মেয়র বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য বলেন, “এ রকম আজব তদন্তের কথা কেউ কখনও শুনেছেন ? পুলিশ কমিশনার মন্ত্রীদের বিরুদ্ধে তদন্ত করবেন, যে মন্ত্রীরা পদাধিকারে তাঁর ঊর্ধ্বতন এবং সেই মন্ত্রিসভার প্রধান স্বয়ং পুলিশমন্ত্রী।”

নারদ নিউজের কর্ণধার ম্যাথু স্যামুয়েলও মনে করেন, রাজ্য সরকারের এই তদন্ত-নির্দেশ বেআইনি। তাঁর কথা, “বিষয়টি কলকাতা হাইকোর্টে বিচারাধীন। আদালতই তদন্তকারী দল নিয়োগ করবে। এই অবস্থায় পশ্চিমবঙ্গ সরকারের তদন্তের ঘোষণা শুধু অর্থহীনই নয়, বেআইনিও।” সরকারের এই নির্দেশের বিরুদ্ধে কলকাতা হাইকোর্টে চ্যালেঞ্জ জানাবেন ম্যাথু।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here