ফলপ্রকাশের একমাস আগেই কংগ্রেসকে হারিয়ে দিল বিজেপি!

0
প্রতীকী ছবি

ওয়েবডেস্ক: না, ভোটের ফলের কোনো আগাম পূর্বাভাস নেই। ফলাফলের নিরিখে আদৌ কংগ্রেসকে বিজেপি হারাতে পারবে কি না, সেই নিয়েও কোনো নিশ্চয়তা নেই। কিন্তু একটা ব্যাপারে সত্যিই কংগ্রেসকে বিজেপি হারিয়ে দিল। তা হল প্রার্থী দেওয়ার সংখ্যায়। ভারতের নির্বাচনী ইতিহাসে প্রথম এমন ঘটনা ঘটল যেখানে কংগ্রেসের থেকে বেশি প্রার্থী দিল বিজেপি।

এখনও পর্যন্ত মোট ৪৩৭ জন প্রার্থীর নাম ঘোষণা করেছে বিজেপি। আগামী কয়েক দিনে আরও কয়েকটি প্রার্থী ঘোষণা করতে পারে তারা। অন্য দিকে কংগ্রেস ঘোষণা করেছে ৪২৫ জন প্রার্থীর নাম। তারাও আগামী দিনে আরও কয়েক জন প্রার্থীর নাম ঘোষণা করতে পারে। তবে রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের ধারণা, কংগ্রেস আর যটাই প্রার্থী দিক বিজেপিকে টপকাতে পারবে না।

১৯৮০ সালে জনসংঘ থেকে বিজেপি হওয়ার পর এই প্রথম এত সংখ্যক প্রার্থী দিল বিজেপি। উল্লেখ্য ২০০৯ সালে বিজেপি এবং কংগ্রেস যথাক্রমে ৪৩৩ এবং ৪৪০ প্রার্থী দিয়েছিল। পাঁচ বছর পর তাদের দেওয়া প্রার্থীর সংখ্যা ছিল যথাক্রমে ৪২৮ এবং ৪৬৮। তা হলে কি কংগ্রেস এখন ক্ষয়িষ্ণু শক্তি?

আরও পড়ুন খোঁজ মিলল নদিয়ার নোডাল অফিসার অর্ণব রায়ের

এই ব্যাপারটা মানতে চাননি কংগ্রেস নেতৃত্ব। তাদের সাফ কথা এই প্রার্থী সংখ্যা দিয়ে প্রমাণিত হয় বিজেপি ক্রমশ জোটসঙ্গীদের হারাচ্ছে, আর কংগ্রেস আরও জোটসঙ্গী পাচ্ছে। কংগ্রেসের এক নেতা উদাহরণস্বরূপ বলেছেন, গত লোকসভা নির্বাচনে অন্ধ্রপ্রদেশ এবং তেলঙ্গানায় টিডিপির সঙ্গে জোট ছিল বিজেপির তাই তাদের অধিকাংশ আসনেই প্রার্থী দিতে হয়নি। এ বার রাজনৈতিক সমীকরণ পালটে যাওয়াতে সব আসনেই প্রার্থী দিতে হচ্ছে বিজেপিকে। কিন্তু কংগ্রেস অন্য দিকে জোটসঙ্গীদের সঙ্গে নিয়ে চলছে ভালো ভাবেই।

তবে সব থেকে চমকপ্রদ ব্যাপার হল কংগ্রেস বা বিজেপি নয়, গত দু’টি লোকসভা নির্বাচনে প্রার্থী দেওয়ার ব্যাপারে সবার ওপরে ছিল মায়াবতীর বসপা। ২০০৯ এবং ২০১৪ সালে তারা প্রার্থী দিয়েছিল যথাক্রমে ৫০০ এবং ৫০৩। তবে এ বার এখনও পর্যন্ত ১৩৯ আসনে প্রার্থী দিয়েছে তারা।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here