ওয়েবডেস্ক: দেশের বর্তমান বিধায়কদের গড় বার্ষিক আয় ২৪.৫৯ লক্ষ টাকা। এর মধ্যে শীর্ষে রয়েছেন কর্নাটকের বিধায়করা। সে রাজ্যের প্রত্যেক বিধায়কের মাথাপিছু গড় বার্ষিক আয় ১ কোটি টাকার উপর। আবার এই তালিকায় সবার নীচে রয়েছে ছত্তীসগঢ়। সে রাজ্যে বিধায়কদের বার্ষিক গড় আয়ের পরিমাণ মাত্র ৫.৪ লক্ষ টাকা। সোমবার ন্যাশনাল ইলেকশন ওয়াচ নামের একটি সংস্থার সমীক্ষা রিপোর্টে উঠে এসেছে এমনই চমকপ্রদ তথ্য।

ওই সমীক্ষায় ধরা পড়েছে লিঙ্গ ভেদে বিধায়কদের আয়ের চরম ফারাক। দেখা গিয়েছে, পুরুষ বিধায়কদের গড় বার্ষিক আয় মহিলা বিধায়দের থেকে দ্বিগুণেরও বেশি।

সব থেকে মজার কথা, যে বিধায়করা নির্বাচনী মনোনয়নের এফিডেভিটে নিজেদের  নিরক্ষর হিসাবে বর্ণনা করেছেন, তাঁদের গড় বার্ষিক আয় ৯.৩১ লক্ষ টাকা। অর্ধেক বিধায়ক জানিয়েছেন তাঁদের পেশা ব্যবসা অথবা চাষবাস।

দেশের ৪০৮৬ জন বিধায়কের মধ্যে ৯৪১ জন নিজেদের আয়ের ব্যাপারে তথ্য দেননি। ফলে বর্তমানে বিধায়কপদে থাকা ৩১৪৫ জনের বার্ষিক আয়ের তথ্য সংগ্রহ করেছেন সমীক্ষকরা। দেখা গিয়েছে, দক্ষিণ ভারতের ৭১১ জন বিধায়কের বার্ষিক গড় আয় ৫১.৯৯ লক্ষ টাকা, অন্য দিকে পূর্ব ভারতের ৬১৪ জন বিধায়কের গড় বার্ষিক আয় ৮.৫৩ লক্ষ টাকা। তবে সমগ্র ভারতে বিধায়কদের গড় বার্ষিক আয় ২৪.৫৯ লক্ষ টাকা।


পড়তে পারেন: উৎসব মরশুমের আগে কত টাকার মজুত পণ্য পুড়ে ছাই হল বাগরি মার্কেটে?

যে সমস্ত বিধায়কেরা নিজেদের আয়ের পরিমাণ ঘোষণা করেছেন, তাঁদের মধ্যে ১৩৯ জন জানিয়েছেন তাঁদের শিক্ষাগত যোগ্যতা অষ্টমশ্রেণি পাশ। এঁদের বার্ষিক গড় আয় প্রায় কোটি ছুঁইছুঁই। সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, তাঁদের গড় বার্ষিক আয় ৮৯.৮৮ লক্ষ টাকা।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন