রামপুর : গত পনেরো দিন ধরে একটা ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ঘোরাফেরা করছে। ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে দু’মহিলাকে ১৪ জন পুরুষ ঘিরে ধরে নানা ভাবে বিরক্ত করছে। কেউ টানছ, কেউ ধাক্কা দিচ্ছে, কেউ বা অন্যকোনো ভাবে নিগ্রহ করছে। আর ওই দুই নিগৃহীত মহিলা ছেড়ে দেওয়ার জন্য কাকুতি মিনতি করছে। ঘটনাটি লখনউ থেকে ৩১৮ কিলোমিটার দূরে রামপুরে জেলার টান্ডা থানার অন্তর্গত একটি গ্রামের বলে পুলিশ জানিয়েছে। পুলিশ শ্লীলতাহানীর অভিযোগ দায়ের করেছে।

আরও পড়ুন : যোগী শপথ নেওয়ার পরেই পথে অ্যান্টি রোমিও স্কোয়াড, চেহারা নিচ্ছে নীতি পুলিশের

রামপুরের সুপারিন্টেন্ডন্ট অব পুলিশ বিপিন তাডা জানিয়েছেন, ঘটনার মূল অভিযুক্তকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকিদের খোঁজ চলছে। ফুটেজ থেকে এটা স্পষ্ট নিগ্রহকারীরা মোটরবাইক আরোহী। তারা রাস্তা আটকে ওই মহিলাদের বিরক্ত করছিল। ফুটেজে মহিলাদের মুখ স্পষ্ট বোঝা না গেলেও বাকিদের বোঝা যাচ্ছিল। দুষ্কৃতীরা নিজেরাই ওই ভিডিও রেকর্ডিং করে তা  সোশ্যাল মিডিয়ায় ছেড়ে দিয়েছে। জায়গাটা ঠিক কোথায় বোঝা যাচ্ছে না। তবে চারদিকে গাছপালা রয়েছে। গ্রেফতার হওয়া ব্যক্তিকে জেরা করা হচ্ছে। তার বয়ানের ভিত্তিতে তদন্ত চালানো হবে। বাকিদেরও গ্রেফতার করা হবে।

তবে এই ঘটনার পর উত্তরপ্রদেশে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক তরজা। এর সমলোচনা করতে গিয়ে সমাজবাদী পাটি নেতা আজম খান মহিলাদের ‘উপদেশ’ দিয়েছেন ঘরে থাকতে। তিনি বলেন, নতুন সরকারের জমানায় ধর্ষণ, নিগ্রহ নতুন কোনো ঘটনা নয়। তাই তিনি পরামর্শ দিয়েছেন,পুরুষরা যেন খেয়াল রাখেন তাদের পরিবারের মেয়েরা যতটা কম বাড়ির বাইরে বেরোয়। তিনি আরও বলেন যে সব জায়গায় এই ধরনের ঘটনা ঘটছে, মেয়েরা যেন সেই সব এলাকা এড়িয়ে যান।

কিছুদিন আগেই উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ বলেছেন, রাজ্যের শান্তি শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে নতুন সরকারের কিছুটা সময় লাগবে। প্রসঙ্গত, জয় লাভের পরই সে রাজ্যে গড়ে ওঠে অ্যান্টি রোমিও স্কোয়াড। সেই নীতিপুলিশের ভূমিকায় সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছে যোগী সরকারকে। এই ভিডিও-র ঘটনা যোগীকে সরকারকে বেশ কিছুটা অস্বস্তিতে ফেলবে বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here