নয়াদিল্লি: ২০০৮ সালের ১১ সেপ্টেম্বর রাতে দিল্লির পথে বেপরোয়া বিএমডব্লিউ চালিয়ে যাচ্ছিল হরিয়ানার ব্যবসায়ীর ছেলে উৎসব ভাসিন। সে সময় সে ছিল ম্যানেজমেন্টের ছাত্র। বেপরোয়া বিএমডব্লিউ-টি ধাক্কা মারে একটি মোটরসাইকেলে। সেই ধাক্কায় মৃত্যু হয় মোটরসাইকেলের দুই আরোহীর অন্যতম অনুজ চৌহানের। শনিবার সেই মামলার সাজা ঘোষণা করলেন দিল্লির একটি আদালতের অতিরিক্ত দায়রা বিচারক সঞ্জীব কুমার।

বেপরোয়া গাড়ি চালানো, ইচ্ছাকৃত ভাবে আঘাত করা এবং অবহেলাজনিত কারণে কাউকে মেরে ফেলা- তিনটি অপরাধে উৎসবকে ২ বছরের কারাদণ্ড দেন ওই বিচারক। সঙ্গে মৃতের পরিবারের ক্ষতিপূরণের জন্য ১০ লক্ষ টাকা জরিমানা। যদিও উৎসব যে দোষী, সেই রায়দান হয়ে গেছিল গত মে মাসে। সাজা ঘোষণা হল এতদিন পর। তাও, উৎসবকে রায়ের বিরুদ্ধে হাই কোর্টে আবেদনের জন্য জামিনও দিয়ে দেওয়া হয়েছে।

শনিবার সাজা ঘোষণা করার সময় বিচারক বলেন, “বিভিন্ন রাজ্যে গরু মারলে ৫, ৭ বা ১৪ বছর কারাদণ্ড হয় কিন্তু বেপরোয়া ভাবে বা কোনো কিছুকে গুরুত্ব না দিয়ে গাড়ি চালিয়ে কোনো মানুষকে হত্যা করলে কারাদণ্ড হয় মাত্র ২ বছর”।

রায় ঘোষণা করে বিচারক সঞ্জীব কুমার রায়ের প্রতিলিপি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কাছে পাঠানোর নির্দেশ দেন। যাতে প্রধানমন্ত্রী ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩০৪এ ধারায় সাজার পরিমাণ বাড়াতে পদক্ষেপ করেন।

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন