নাগাল্যান্ডের ঘটনায় মৃত বেড়ে ১৬, সেনার বিরুদ্ধে ‘খুনের উদ্দেশ্য’-এর ধারায় এফআইআর করল পুলিশ

0

কোহিমা: প্রথমে শনিবার রাতে ভুল বোঝাবুঝির জেরে নিরীহ, নিরস্ত্র ৬ জন গ্রামবাসীকে গুলি করে হত্যা। তার পরে দেহ নিতে আসা গ্রামবাসীদের উপরে আরও এক প্রস্ত গুলিচালনা। মৃত্যু ১০ জনের। গ্রামবাসীদের আক্রমণে হত সেনার এক প্যারা কমান্ডো। তার পরে আবার রবিবার বিকেলে উত্তেজিত জনতা অসম রাইফেলসের শিবিরে হানা দিলে তৃতীয় দফায় সংঘর্ষ। হত অন্তত ২। অগ্নিগর্ভ নাগাল্যান্ডের মন জেলায় এখনও পর্যন্ত নিহতের সংখ্যা বেড়ে হল ১৬। এরই মধ্যে সেনার বিরুদ্ধে ‘খুনের উদ্দেশ্য’-এর অভিযোগ আনল নাগাল্যান্ড পুলিশ।

গোটা ঘটনায় অভিযোগের তীর সেনার প্যারা স্পেশাল ফোর্সের দিকে। সঠিক না থাকা সত্ত্বেও কী ভাবে অনুমানের ভিত্তিতে তারা নিরীহ গ্রামবাসীদের হত্যা করল, সেই নিয়ে প্রশ্ন তুলছে নাগাল্যান্ডের বাসিন্দারা। এর পরেই ঘটনায় পদক্ষেপ করেছে পুলিশ।

প্যারা স্পেশাল ফোর্সের ২১ জন জওয়ানের বিরুদ্ধে ‘খুনের উদ্দেশ্য’-এর ধারা এনেছে পুলিশ। এই মর্মে এফআইআরও করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, শনিবার সন্ধ্যায় কয়লা খনির কাজ সেরে দিনমজুরেরা একটি পিক আপ ভ্যানে চেপে নিজেদের গ্রামে ফিরছিলেন। প্রতি সপ্তাহেই রবিবার পরিবারের সঙ্গে কাটিয়ে সোমবার ফের খনির কাজে যোগ দেন তাঁরা। প্যারা কমান্ডোদের কাছে খবর ছিল, অরুণাচলের দিক থেকে জঙ্গিরা নাগাল্যান্ডে ঢুকবে।

ওটিং গ্রামের কাছে খনিমজুরদের গাড়ি আসতে দেখেই কমান্ডোরা গুলি চালাতে থাকেন। পিক আপ ভ্যানে ছিলেন আট জন। ঘটনাস্থলে ৬ জনের মৃত্যু হয়। ২ জন জখম হন। খবর পেয়ে গ্রামের মানুষ সেখানে হাজির হলে কমান্ডোদের সঙ্গে তাঁদের আরও এক প্রস্ত সংঘর্ষ হয়।

সব মিলিয়ে নাগাল্যান্ডের পরিস্থিতি এখন যথেষ্ট অগ্নিগর্ভ। বাতিল হয়ে গিয়েছে হর্নবিল উৎসবও। ঘটনার প্রতিবাদে সোমবার রাজ্য জুড়ে বন্‌ধও ডাকা হয়েছে।

আরও পড়তে পারেন:

প্রতিকূল পরিস্থিতির সঙ্গে লড়ে গেল নিম্নচাপ, পরিনামে ভারী বৃষ্টি দক্ষিণবঙ্গে, দুপুর থেকে উন্নতি আবহাওয়ার

রেল লাইনে আটকে গাড়ি, ধেয়ে এল লোকাল ট্রেন, তার পর…

দুর্যোগে ভাঙল নদীবাঁধ, নৌকা উলটে গেল সুন্দরবনে, এলাকা পরিদর্শনে জনপ্রতিনিধিরা

নাগাল্যান্ডে গুলি চালানোর ঘটনায় পুঙ্খানুপুঙ্খ তদন্ত চাইলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

ওড়িশা ছুঁয়ে পশ্চিমবঙ্গ উপকূলের দিকে এগোচ্ছে অতি গভীর নিম্নচাপ, আরও ২৪ ঘণ্টা ভারী বৃষ্টি দক্ষিণবঙ্গে

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন