গোয়ার সৈকতে ধর্ষিতা দুই কিশোরী, কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী বললেন, ‘মেয়েরা অত রাতে সৈকতে কী করছিল?’

0

খবরঅনলাইন ডেস্ক: গোয়ার বিখ্যাত কোলভা সমুদ্র সৈকতে ১৪ বছরের দু’টি মেয়েকে ধর্ষণের ঘটনায় উত্তাল গোয়া বিধানসভা। ঠিক তখনই প্রকারান্তরে ওই কিশোরী এবং তাদের পরিবারের ঘাড়ে দোষ চাপিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী প্রমোদ সওয়ন্ত। তার অবাক করা প্রশ্ন,”রাতে সৈকতে মেয়েরা কেন ঘোরে?”

স্বাভাবিক ভাবেই মুখ্যমন্ত্রী এমন মন্তব্যের পর উত্তাল হয়েছে বিধানসভা। বিরোধীরা তো বটেই সওয়ন্তের মন্তব্যের প্রতিবাদ করেছেন রাজ্যের সাধারণ বাসিন্দারাও। বিরোধীদের অভিযোগ, আইন-শৃঙ্খলার দিকে নজর না দিয়ে মেয়েদের চরিত্র নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন মুখ্যমন্ত্রী।

বৃহস্পতিবার বিধানসভায় বাদল অধিবেশনে প্রমোদ বলেন, ‘‘সমুদ্র সৈকতে পার্টি করতে গিয়েছিল ১০ জন। তাদের মধ্যে ছ’জন বাড়ি ফেরে। কিন্তু বাকি দু’টি ছেলে ও দু’টি মেয়ে সারারাত সৈকতে ছিল। যখন ১৪ বছরের মেয়েরা সারারাত সৈকতে কাটায় তখন তাদের অভিভাবকদের উচিত খোঁজ নেওয়া। রাতে মেয়েরা সৈকতে কেন ঘোরে? এটা দেখা আমাদেরও দায়িত্ব। সব দায়িত্ব পুলিশের উপর ছেড়ে দেওয়া উচিত নয়।’’

মুখ্যমন্ত্রীর এই মন্তব্যের তীব্র বিরোধিতা করেছেন প্রাক্তন উপমুখ্যমন্ত্রী বিজয় সরদেশাই বলেন, ‘‘এটাই তো গোয়া। এখানে সৈকতে আনন্দ করতেই সবাই আসেন। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হওয়ার সুবাদে ওঁর বলা উচিত ছিল আমাদের রাজ্য এত সুরক্ষিত যে আপনারা রাতেও বেড়াতে পারেন। তা না করে উনি মেয়েদের চরিত্র নিয়েই প্রশ্ন তুলছেন।”

গোয়ায় এমন ঘটনা এবং মুখ্যমন্ত্রীর এমন মন্তব্যের ফলে ফলে রাজ্যের পর্যটন ব্যবস্থা ভেঙে পড়তে পারে বলেও আশঙ্কা করেছেন সরদেশাই।

তবে ধর্ষকদের চিহ্নিত করে পাকড়াও করার কাজ করছে গোয়া পুলিশ। গত ২৪ জুলাই এই ঘটনার পরে আসিফ হাতেলি (২১), রাজেশ মানে (৩৩), গজানন্দ চিনচানকর (৩১) ও নীতিন ইয়াব্বল (১৯) নামে চার জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ঘটনায় আর কেউ যুক্ত কি না, সেটাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

আরও পড়তে পারেন ৮.২ মাত্রার ভয়াবহ ভূমিকম্প আলাস্কায়, জারি সুনামি সতর্কতা

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন