এবিভিপি-কে নিন্দা করার জের, গুরমেহরের জন্য এখন মহিলা রক্ষী

0

নয়াদিল্লি: ২০ বছরের গুরমেহর কৌরকে এখন দু’ জন মহিলা কনস্টেবল রাখতে হচ্ছে। কারণ তাঁকে ধর্ষণের হুমকি দেওয়া হচ্ছে, খুনের হুমকি দেওয়া হচ্ছে। এই হুমকির পরিপ্রেক্ষিতে সোমবার দিল্লি কমিশন ফর উইমেন-এর (ডিসিডব্লিউ) দ্বারস্থ হন গুরমেহর।

কমিশনের প্রধান স্বাতী মালিওয়াল জানিয়েছেন, সোশ্যাল মিডিয়ায় কী ভাবে গুরমেহরকে হুমকি দেওয়া হচ্ছে, তা ব্যাখ্যা করেছেন তিনি। “তাঁর অভিযোগের স্বপক্ষে তিনি কতগুলো স্ক্রিনশট আমাদের দেখিয়েছেন যাতে সেখানে দেখা যাচ্ছে কী ভাবে কয়েক জন পুরুষ সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁকে ধর্ষণ ও খুনের হুমকি দিচ্ছে। ওই ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে এফআইআর করার জন্য আমরা দিল্লির পুলিশ কমিশনারকে চিঠি দিচ্ছি। গুরমেহর ও তার পরিবারের নিরাপত্তার দায়িত্ব এখন দিল্লি পুলিশের।”  

গুরমেহরের অপরাধ, তিনি রামজস কলেজে অখিল ভারতীয় বিদ্যার্থী পরিষদের (এবিভিপি) নৃশংস হামলার বিরুদ্ধে সরব হয়েছিলেন। ‘আমি এবিভিপিকে ভয় পাই না’ লেখা পোস্টার হাতে নিয়ে সেলফি তুলে সেই ছবি ফেসবুকে পোস্ট করেছিলেন। সেই সঙ্গে তাঁর প্রতিবাদের পোস্ট। সমর্থনসূচক বার্তা পেয়েছেন প্রচুর, তেমনই পেয়েছেন সমালোচনা, নিন্দা সেই সঙ্গে ধর্ষণ ও খুনের হুমকি। সরকারি স্তরের মন্ত্রী-সান্ত্রী, শাসকদলীয় স্তরের কর্তাব্যক্তিরাও সমালোচনায় সরব হয়েছেন। ময়দানে নেমে পড়েছেন প্রাক্তন ক্রিকেটার, খেলোয়াড়, বলিউডের তারকা ইত্যাদি।

কিন্তু বেশি বিতর্ক বেঁধেছে এক বছর আগে পোস্ট করা একটিকে নিয়ে। এবং তা নিয়ে গুরমেহরকে ব্যাঙ্গও করতে ছাড়েননি ক্রিকেটার বীরেন্দ্র সহবাগ। পোস্টটিতে লেখা ছিল, ‘‘পাকিস্তান আমার বাবাকে মারেনি। ‘যুদ্ধ’ তাঁকে মেরেছে।’’ এর সূত্র ধরে প্ল্যাকার্ড হাতে একই স্টাইলে সহবাগ টুইট করেন, ‘‘দু’টো ডবল সেঞ্চুরি আমি করিনি। আমার ব্যাট করেছে।’’ যার নীচে লেখা, ‘‘ব্যাট মে দম হ্যায়।’’  বলিউড তারকা রণদীপ হুডা সহবাগের এই পোস্টের প্রত্যুত্তরে হাততালির ইমেজারি পোস্ট করেছেন।

প্রতাপ সিমহা নামে এক বিজেপি বিধায়ক গুরমেহরকে একেবারে দাউদ ইব্রাহিমের সঙ্গে তুলনা করেছেন। গুরমেহর এবং দাউদের দু’টি ছবি টুইটারে পাশাপাশি পোস্ট করেছেন। দাউদের হাতেও একটি প্ল্যাকার্ড। তাতে লেখা, ‘‘১৯৯৩ হামলায় অসংখ্য মৃত্যুর জন্য আমি দায়ী নয়, বোমা তাঁদের মেরেছে।’’

কেন্দ্রের মন্ত্রী কিরেন রিজিজু মন্তব্য করেছেন, “এই তরুণীর মাথা কে বিগড়াল?”

গুরমেহরের পাশে দাঁড়িয়েছেন কংগ্রেস সহ-সভাপতি রাহুল গান্ধী এবং দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.