cyclone gaja
প্রতীকী ছবি

ওয়েবডেস্ক: গত ২৬ বছরে এত সংখ্যক গভীর নিম্নচাপ তৈরি হতে দেখেনি উত্তর ভারত মহাসাগরীয় অঞ্চল। ১৯৯২ সালে শেষ বার, ১৩টা গভীর নিম্নচাপ তৈরি হয়েছিল বঙ্গোপসাগর এবং ভারত মহাসাগরে। তার পর ২০১৮ সালে ফের ১৩টা গভীর নিম্নচাপ তৈরি হল।

এ বছর মার্চ থেকেই গভীর নিম্নচাপ তৈরি হওয়া শুরু হয়ছিল উত্তর ভারত মহাসাগরীয় অঞ্চলে। তার পর ১৩ নম্বর গভীর নিম্নচাপটি রূপ নিল ঘূর্ণিঝড় ‘গজ’র। এই ১৩টা গভীর নিম্নচাপের মধ্যে ৬টা গভীর নিম্নচাপই ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হল।

এ বছরের প্রথম ঘূর্ণিঝড়টি ছিল ‘সাগর’। মে’মাসে আরব সাগরে তৈরি হয়ে সেটি আছড়ে পড়েছিল সোমালিয়ায়। তার কিছু দিন পরেই আবার আরব সাগরেই তৈরি হয় ‘মেকুনু’। অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড়ের রূপ নিয়ে সেটি আছড়ে পড়ে ওমানে। তার পর আবার সেপ্টেম্বর থেকে ঘূর্ণিঝড় তৈরি হওয়া শুরু।

আরও পড়ুন উল্লেখযোগ্য ক্ষয়ক্ষতি সঙ্গে নিয়ে উপকূল তামিলনাড়ুতে আছড়ে পড়ল ঘূর্ণিঝড় গজ

এর মধ্যে দু’টি ঘূর্ণিঝড়ই আবার ওড়িশার গোপালপুরে আঘাত হানে। প্রথমটি ছিল ঘূর্ণিঝড় দায়ে এবং পরেরটি ছিল অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড় ‘তিতলি’। ‘তিতলি’র প্রভাব ভালোমতো পড়েছিল পশ্চিমবঙ্গেও। তিতলির কিছু দিন পরেই আবার ওমানে আছড়ে পড়ে আরব সাগরে তৈরি হওয়া ঝড় ‘লুবান’। তার পর এখনকার ‘গজ’। আবহাওয়া বিশেষজ্ঞদের একাংশের ধারণা, বঙ্গোপসাগরের বর্তমানে যা পরিস্থিতি, তাতে এই রেকর্ডটা কিছু দিনের মধ্যেই ভেঙে যেতে পারে। সাম্প্রতিক ইতিহাসে সব থেকে বেশি গভীর নিম্নচাপ তৈরি হওয়ার বছরের স্বীকৃতি উঠতে পারে ২০১৮-এর মাথাতেই।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here