আদালতে চিদাম্বরমের ৪ আইনজীবী, হাজির স্ত্রী-পুত্র

0

নয়াদিল্লি: নাটকীয় কায়দায় বাড়ির পাঁচিল টপকে গত বুধবার রাতে সিবিআই গ্রেফতার করে প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী পি চিদাম্বরমকে। দিল্লির জোড়বাগের বাড়ি থেকে তাঁকে সরাসরি নিয়ে যাওয়া হয় সিবিআই দফতরে। ওই রাতেই আইএনএক্স মিডিয়াকাণ্ডে অভিযুক্ত কংগ্রেসের প্রবীণ নেতাকে জেরা করে সিবিআইয়ের ইকনোমিক্স অফেন্স উইং। বৃহস্পতিবার তাঁকে তোলা হচ্ছে সিবিআইয়ের বিশেষ আদালতে।

এ দিন সিবিআই আদালতে বিচারক অজয় কুমারের এজলাসে শুনানি হবে। চিদাম্বরমের হয়ে আদালতে পৌঁছেছেন চার আইনজীবী। তাঁর হয়ে সওয়াল করবেন অভিষেক মনু সিঙ্ঘভি। উপস্থিত রয়েছেন কপিল সিব্বল এবং বিবেক তনখা। এ ছাড়া হাজির হয়েছেন চিদাম্বরমের স্ত্রী নলিনী এবং ছেলে কার্তি।

সিবিআই সূত্রের খবর, তদন্তে অসহযোগিতা করেছেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। বুধবার রাতে জেরার মুখে পড়তে হয় তাঁকে। জেরার পর তাঁকে লকআপে যেতে বলা হয়। কিন্তু তিনি আইও-কে বলেন, “একা গারদে জেতে পারব না, ভয় লাগে”। এর পর সারারাত তিনি আইও-র সঙ্গেই কাটান। এ দিন সকাল থেকে ফের জেরা করা হয় তাঁকে। আইএনএক্স মামলা সম্পর্কে তাঁকে একাধিক প্রশ্ন করা হয়।

সিবিআইয়ের একটি সূত্র জানায়, বিশেষ আদালতে চিদাম্বরমের ১৪ দিনের জন্য জেল হেফাজতের আর্জি জানাতে চলেছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। তবে এর পরই তাঁকে পাঁচ দিনের হেফাজতে চেয়ে আবেদন জানায় সিবিআই।

গত বুধবার রাতে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার হেড কোয়ার্টারের লকআপেই তাঁকে রাখার ব্যবস্থা করা হয়। তাঁকে জেরার করার পর পর্যাপ্ত বিশ্রামের সময় দেওয়া হয়েছে বলেও তদন্তকারীরা দাবি করেন। এমনকী, সিবিআই দফতরে তাঁর ডাক্তারি পরীক্ষাও করা হয়। তাঁর ডাক্তারি পরীক্ষা করানো নিয়ে ধন্ধে পড়ে সিবিআই।

দফতরের ভিতরে না কি কোনো হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে তাঁর ডাক্তারি পরীক্ষা করানো হবে, তা নিয়েই চিন্তায় পড়েন তদন্তকারীরা। প্রাক্তন মন্ত্রীকে গ্রেফতার করতে গিয়ে বিপাকে পড়েছিলেন তদন্তকারীরা। সিবিআই তাঁর বাসভবনে যাচ্ছে শুনেই বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন কংগ্রেস কর্মীরা। সেই বিক্ষোভ এড়িয়ে নাটকীয় কায়দায় পাঁচিল টপকে বাড়ির ভিতরে ঢোকেন তদন্তকারীরা। ফলে ডাক্তারি পরীক্ষা করাতে চিদাম্বরমকে বাইরে নিয়ে গেলে একই ধরনের সমস্যার মুখোমুখি হওয়ার সম্ভাবনার বিষয়টিও ভাবিয়ে তোলে তদন্তকারীদের। পরে অবশ্য, দফতরের ভিতরে চিকিৎসকদের সামনে হাজির করানো হয় তাঁকে।

বৃহস্পতিবার ভোর সাড়ে পাঁচটা নাগাদ বাড়ি ছাড়েন চিদাম্বরমের ছেলে কার্তি। সকাল ৬.১০টায় চেন্নাই থেকে বিমান ধরে তিনি দিল্লির উদ্দেশে রওনা দেন। বিমানবন্দরে দাঁড়িয়ে কার্তি বলেন, এ সব করা হচ্ছে টিভিতে দর্শক টানার জন্য। কংগ্রেস দল এবং প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর ভাবমূর্তি নষ্ট করে কিছু মানুষের মনোরঞ্জন করার চেষ্টা চলছে। এই মামলায় আমরা কেউ-ই জড়িত নই। তবে নিজেদের নির্দোষ প্রমাণ করতে আইনি এবং রাজনৈতিক ভাবে লড়াই করব।

একই ভাবে বুধবার সন্ধ্যায় চিদাম্বরমও কংগ্রেসের দলীয় কার্যালয়ে বসে সাংবাদিক বৈঠক করে বলেন, “আমি কোনো দোষ করিনি”। সিবিআই সূত্রে খবর, এ দিনই বিশেষ আদালতে তোলা হবে তাঁকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.