খেলা শুরু ত্রিপুরায়! এ বার যেতে পারেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

0

খবর অনলাইন ডেস্ক: টিম পিকে-এর সদস্যদের আগরতলার হোটেলে আটকে রাখার অভিযোগ তুলেছে তৃণমূল। সেই ঘটনার প্রতিবাদে বুধবার আগরতলার প্রেস ক্লাবে সাংবাদিক সম্মেলন করল তৃণমূলের প্রতিনিধি দল।

এ দিন সকালে বিমানবন্দরে নেমে ব্রাত্য বসু (Bratya Basu) বলেন, “ত্রিপুরায় খেলা শুরু হয়ে গিয়েছে। গোটা ভারতের মতো ত্রিপুরাও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দিকে তাকিয়ে রয়েছে”।

Shyamsundar

ত্রিপুরার সমীক্ষা চালাতেই আইপ্যাকের ২৩ সদস্যের একটি দল গিয়েছে সেখানে। কিন্তু তৃণমূলের অভিযোগ, পুলিশ দিয়ে রবিবার রাত থেকে তাঁদের হোটেলে ‘বন্দি’ করে রাখা হয়েছে। একই সঙ্গে জানা যায়, টিম পিকে (Team PK)-এর ওই ২৩ সদস্যদের কোভিড রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। তার পরও মুক্তি দেওয়া হয়নি তাঁদের।

ত্রিপুরায় পৌঁছেছে তৃণমূলের প্রতিনিধিদল। তিন সদস্যের প্রতিনিধি দলে রয়েছেন আইনমন্ত্রী মলয় ঘটক, শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু ও তৃণমূলের শ্রমিক সংগঠন আইএনটিটিইউসি-র রাজ্য সভাপতি ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায়।

আগরতলায় সাংবাদিক বৈঠক করে ব্রাত্য প্রশ্ন তোলেন, “আইপ্যাক তো কোনো রাজনৈতিক দল নয়। তাদের কেন সমন পাঠানো হল”?

অন্য দিকে মলয় ঘটক বলেন, “দু’টি টিকা নেওয়া সত্ত্বেও আই প্যাকের কর্মীদের বিরুদ্ধে বিপর্যয় মোকাবিলা আইনে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে কেন”?

একই সঙ্গে পশ্চিমবঙ্গের শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, “আমরা দলনেত্রীর নির্দেশে এখানে এসেছি। আইপ্যাকের দলের সঙ্গে কথা বলব। সাধারণ মানুষের সঙ্গে কথা বলব। রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলন গড়ে তুলব। প্রয়োজনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও (Mamata Banerjee) আসবেন”।

তৃণমূলের অভিযোগ, ত্রিপুরায় মানুষের কণ্ঠরোধ করার চেষ্টা করা হয়েছে। এটা মানুষ মেনে নেবে না। ব্রাত্য বলেন, “ত্রিপুরায় গণতন্ত্র নেই। মানুষ বদল চাইছে। বাংলায় মানুষ বিজেপিতে ছুঁড়ে ফেলে দিয়েছে। সারা দেশেও তাই হতে চলেছে। ত্রিপুরাতেও তাই হবে”।

আরও পড়তে পারেন: নিম্নচাপের গতিপথের কারণে চরম অতি ভারী বর্ষণের আশঙ্কা দক্ষিণবঙ্গের একাধিক জেলায়, ভ্রূকুটি বন্যারও

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন