৬ বিধায়ক, ৩ সাংসদ এবং প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি-সহ আর যে সব ‘ভিভিআইপি’ করোনার শিকার

0
coronavirus

খবর অনলাইন ডেস্ক: ভারতে রবিবার পর্যন্ত করোনাভাইরাসের শিকার হয়ে মৃত্যু হয়েছে ৮৬ হাজার ৭৫২ জনের। মৃতদের মধ্যে রয়েছেন সাংসদ, বিধায়ক থেকে শুরু করে প্রাক্তন রাষ্ট্রপতির মতো ভিভিআইপি-রাও।

প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি

Pranab Mukherjee
[প্রয়াত প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়]

ভারতে কোভিড-১৯ আক্রান্ত হয়ে মৃতের তালিকায় উল্লেখযোগ্য নাম প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়। তিনি নয়াদিল্লিতে সেনাবাহিনীর আর অ্যান্ড আর হাসপাতালে মস্তিষ্কের অস্ত্রোপচারের জন্য ভরতি হয়েছিলেন। তবে মারণ ভাইরাসের সংক্রমণের জেরে তাঁর শারীরিক পরিস্থিতির ক্রমাবনতি ঘটতে থাকে। পরিণামে প্রয়াত হন প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি।

তিন সাংসদ

রাজ্যসভায় নির্বাচিত হওয়ার কয়েক মাসের মধ্যেই করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছেন বিজেপি সাংসদ অশোক গস্তি। উত্তর কর্নাটকের রাইচূড়ের বাসিন্দা অশোক গত জুন মাসে রাজ্যসভার সাংসদ হওয়ার পর থেকে একটি বারের জন্য সংসদে যাওয়ার সুযোগ মেলেনি।

ashok gasti
[প্রয়াত বিজেপি সাংসদ অশোক গস্তি]

তিরুপতির সাংসদ বালি দুর্গাপ্রসাদ রাওয়ের মৃত্যু হয়েছে করোনায়। ৬৪ বছরের দুর্গাপ্রসাদের একাধিক কো-মর্বিডিট ছিল।

তামিলনাড়ুর কন্যাকুমারীর কংগ্রেস সাংসদ এইচ বসন্তকুমারের মৃত্যু হয়েছে করোনায়। তামিলনাড়ুর প্রথমবারের সংসদ সদস্য এইচ বসন্তকুমার অতীতে দু’বার নাঙ্গুনেরি বিধানসভা কেন্দ্র থেকে বিধায়ক হিসেবে নির্বাচিত হয়েছিলেন। তিনি প্রদেশ কংগ্রেস কমিটির কার্যকরী সভাপতি ছিলেন।

ছয় বিধায়ক

উত্তরপ্রদেশের কারিগরি শিক্ষামন্ত্রী কমল রানি বরুণ এবং আরও এক মন্ত্রী ও প্রাক্তন ক্রিকেটার চেতন চৌহানের মৃত্যু হয়েছে কোভিড-১৯ আক্রান্ত হওয়ার পর।

[প্রয়াত চেতন চৌহান]

মধ্যপ্রদেশে কংগ্রেস বিধায়ক গোবর্ধন ডাঙ্গি মারা যান করোনায়।

পশ্চিমবঙ্গেও মৃত্যু হয়েছে দুই বিধায়কের। এক জন এগরার তৃণমূল বিধায়ক সমরেশ দাস এবং অন্যজন ফলতার তমোনাশ ঘোষ। মৃত্যুকালে তাঁদের বয়স হয়েছিল যথাক্রমে ৭৬ এবং ৬০ বছর।

[প্রয়াত এগরার বিধায়ক সমরেশ দাস]

তামিলনাড়ুতে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ডিএমকে বিধায়ক জে আনবাঝাগানের। আগে থেকেই তাঁর হার্ট এবং কিডনির রোগ ছিল।

তালিকা এখানেই শেষ নয়!

করোনায় মৃত ভিভিআইপি-দের তালিকা এখানেই শেষ নয়। সারা দেশে আরও বেশ কিছু স্বনামে পরিচিত রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বের মৃত্যুর কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছিল করোনা।

করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর মৃত্যু হয়েছে রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী এবং প্রবীণ বামপন্থী নেতা শ্যামল চক্রবর্তীর। জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে উল্টোডাঙার একটি নার্সিংহোমে তাঁকে ভরতি করা হয়।

[রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী শ্যামল চক্রবর্তী]

মৃত্যু হয়েছে মহারাষ্ট্রের প্রাক্তন সাংসদ হরিবাবু জাওয়ালে, লেহর কংগ্রেস নেতা এবং প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী পি নামগিয়াল, পুনের বিধায়ক সুধারক পরিচারক প্রমুখের।

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন