NIA
প্রতীকী ছবি

ওয়েবডেস্ক: সন্ত্রাসে অর্থ জোগান দেওয়ার তদন্তে নিযুক্ত তিন এনআইএ (ন্যাশনাল ইনভেস্টিগেশন এজেন্সি) আধিকারিককে অপসারণ করল সংস্থা।  ওই তিন আধিকারিকের বিরুদ্ধে তদন্তের স্বার্থে ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

এই মামলাটিতে মূল অভিযুক্ত হিসাবে নাম রয়েছে লস্কর-ই-তইবা’র সহপ্রতিষ্ঠাতা হাফিজ সইদের। এমনই একটি গুরুত্বপূর্ণ মামলার তদন্তে নিযুক্ত তিন এনআইএ আধিকারিকের বিরুদ্ধে ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ ওঠায় তাঁদের অপসারণের সিদ্ধান্ত নেয় সংস্থা।

বর্তমানে এনআইএ ভারতে সন্ত্রাসমূলক কাজে যোগান দেওয়া অর্থ নিয়ে একাধিক মামলার তদন্ত করছে। ভারতে সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপের ডালপালা ছড়াতে কোথা থেকে, কোন পথে, কার মারফত অর্থ ঢুকছে, সে সব নিয়েই তদন্ত করছে সংস্থা। যে তিন আধিকারিককে অপসারণ করা হয়েছে, তাঁদের মধ্যে রয়েছেন সুপারিন্টেড অব পুলিশ পর্যায়ের আধিকারিকও। তবে কারও নাম-ই প্রকাশ্যে নিয়ে আসা হয়নি।

এনআইএ-র এক উচ্চপদস্ত কর্তা জানিয়েছেন, অভিযুক্ত দুই আধিকারিককে তাঁদের মূল সংস্থায় ফেরত পাঠানো হয়েছে, অন্য দিকে তৃতীয় ব্যক্তিকে এনআইএ শাখা অফিসে অ-স্পর্শকাতর পদে বদলি করা হয়েছে।

ঘটনার সততা স্বীকার করে নিয়ে এনআইএ মুখপাত্র জানিয়েছেন, ওই তিন আধিকারিকের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছিল। ডেপুটি ইন্সপেক্টর জেনারেল পর্যায়ের এক আধিকারিক তিন আধিকারিকের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের তদন্ত পরিচালনা করছেন। তাঁদের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের নিরপেক্ষ তদন্তের জন্যই তাঁদের অন্যত্র অপসারণ করা হয়েছে।

জানা গিয়েছে, দিল্লি-ভিত্তিক এক ব্যবসায়ী পাকিস্তান ভায়া দুবাই হয়ে বেআইনি টাকা চালান করেন। তাঁর বাড়িতে তল্লাশি চালায় এনআইএ। অভিযোগ, ওই ব্যবসায়ীর টাকা লেনদেন সুগম করে দিতেই ঘুষ চেয়েছিলেন ওই তিন আধিকারিক।

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন