নয়াদিল্লি: কুলভূষণ যাদবের মৃত্যুদণ্ড নিয়ে ভারত-পাকিস্তানের সম্পর্কে টানাপোড়েনের মাঝেই পাকিস্তান দাবি করল, তারা তিন সন্দেহভাজন ভারতীয় গুপ্তচরকে গ্রেফতার করেছে।  চিন পাকিস্তান ইকোনমিক করিডর (সিপিইসি), আজাদ কাশ্মীরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্র এবং চিনা ইঞ্জিনিয়ারাই তাদের নজরে ছিল। এই খবর দ্য এক্সপ্রেস ট্রিবিউনের।

পাকিস্তানি পুলিশ জানিয়েছে, ধৃত তিন জনের নাম খলিল, ইমতিয়াজ ও রশিদ। এরা তিন জনেই ভারতের গোয়েন্দা সংস্থা ‘রিসার্চ অ্যান্ড অ্যানালিসিস উইং’-এর এজেন্ট।  রাওয়ালকোটের কমবাইন্ড মিলিটারি হাসপাতাল, সিপিইসি-র বিভিন্ন প্রকল্প, আজাদ কাশ্মীরের বিভিন্ন সংবেদনশীল প্রকল্প এবং চিনা ইঞ্জিনিয়ারদের ওপর নজরদারি করার দায়িত্ব ছিল ওই তিন গুপ্তচরের। তিন জনকে পাকিস্তানের সন্ত্রাসবাদ-বিরোধী আইন এবং বিস্ফোরক আইনে ধরা হয়েছে। ধৃতদের পাকিস্তানের  সন্ত্রাসবাদ-বিরোধী আদালতে তোলা হবে। 

পুলিশ জানিয়েছে, ধৃতরা কবুল করেছে, তারা ভারতীয় সেনাবাহিনীর অফিসার এবং ‘র’-এর অফিসার মেজর রণজিৎ, মেজর সুলতান এবং আরও এক অফিসারের সঙ্গে যোগাযোগ রেখে চলতেন। ভারতীয় সেনাবাহিনী ও ‘র’ অফিসারদের সঙ্গে যোগাযোগ করার জন্য তারা প্রায়ই নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে যেত। পাকিস্তানের অভিযোগ, গত বছর আব্বাসপুরের বোমা বিস্ফোরণের সঙ্গে জড়িত ছিল। ধৃত তিন জনই আব্বাসপুরের তারোটি গ্রামের বাসিন্দা। 

রাওয়ালকোটে এক সাংবাদিক সম্মেলনে ধৃত তিন জনকে হাজির করে পাকিস্তানি কর্তৃপক্ষ।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here