নয়াদিল্লি: ২০১৪ সালে ইরাকে আইএস জঙ্গিদের হাতে অপহৃত ৩৯ জন ভারতীয়ের মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার রাজ্যসভায় জানালেন বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ। পশ্চিমবঙ্গ ছাড়াও মৃতদের মধ্যে রয়েছে বিহার, হিমাচল প্রদেশ এবং পঞ্জাবের বাসিন্দা।

মঙ্গলবার রাজ্যসভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে বিদেশমন্ত্রী বলেন, একটি গণকবর থেকে দেহগুলি বের করে বাঘদাদে ডিএনএ পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে। তিনি বলেন, “গতকাল আমরা খবর পেয়েছি যে ৩৮ জনের ডিএনএ নমুনা পুরোপুরি মিলে গিয়েছে। ৩৯তম জনের ডিএনএ নমুনা মিলেছে ৭০ শতাংশ।”

সুষমা আরও বলেন, “মাটির অনেক গভীরের ছবি তুলতে পারে, আমরা এমন উপগ্রহ ব্যবহার করা হয়েছিল। সেখানেই এই দেহগুলির সন্ধান পাওয়া যায়। দেহগুলির একটা বৈশিষ্ট ছিল। সবারি পায় ছিল অইরাকি জুতো। তখনই আমরা দেহগুলি বের করে ডিএনএ পরীক্ষার জন্য পাঠাতে বলি।”

২০১৪-এর জুনে ৪০ জনের একটি দলকে ইরাকের মসুলে অপহরণ করে আইএস জঙ্গিরা। সেখান থেকে কোনো রকমে পালিয়ে আসতে পারেন হরজিত মাসিহ নামে একজন। তিনিই তখন বলেছিলেন যে বাকিদের গুলি করে মেরে দিয়েছে জঙ্গিরা। যদিও তখন এই খবর অস্বীকার করে কেন্দ্র।

গতবছর মসুল আইএস জঙ্গিমুক্ত হওয়ার পর অনেক গণকবরের সন্ধান পাওয়া যায়। তখনই মৃত ব্যক্তিদের পরিবারের থেকে ডিএনএ নমুনা সংগ্রহ করে কেন্দ্র।

মঙ্গলবার সংসদে বিরোধীরা এই মৃত ব্যক্তিদের প্রতি সমাবেদনা জানালেও কংগ্রেস নেতা গুলাম নবি আজাদ জানান, গত বছর কেন্দ্র দাবি করেছিল অপহৃত ভারতীয়রা নিরাপদে রয়েছে, তাদের উদ্ধার করে নিয়ে আসা হবে।

ইরাক থেকে দেহগুলি নিয়ে আসার জন্য বিদেশ দফতরেরব প্রতিমন্ত্রী ভি কে সিংহকে সেখানে পাঠানো হচ্ছে। একটি বিমানে সব দেহ নিয়ে আসা হবে। সেই বিমান প্রথম অমৃতসর, তারপর পটনা হয়ে কলকাতায় নামবে।

 

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন